আগে হাত পরিষ্কার করুন, তারপর নেওয়া হেব ভাড়া! নিয়ম শুরু সরকারি বাসে

আগে হাত পরিষ্কার করুন, তারপর নেওয়া হেব ভাড়া! নিয়ম শুরু সরকারি বাসে
ফোন ব্যবহারের আগে ও পরে হাত ধুয়ে পরিষ্কার করে শুকিয়ে নিন বা বারবার স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন।

করোনা নিয়ে সচেতনতায় সরকারি বাস স্যানিটাইজ করার কাজ আগেই শুরু করে দিয়েছিল রাজ্য পরিবহন দফতর।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা নিয়ে সচেতনতায় এবার নয়া উদ্যোগ রাজ্য পরিবহন দফতরের। এবার থেকে সরকারি বাসে উঠলেই আগে হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে। তারপর মিলবে সিটে বসার অনুমতি।ইতিমধ্যেই হাওড়া, এসপ্ল্যানেড সহ একাধিক বাস ডিপোতে শুরু হয়ে গিয়েছে এই কাজ। বাসের কন্ডাক্টর  দের কাছে থাকছে এই হ্যান্ড স্যানিটাইজার। তিনি বা ডিপোর কেউই আপনার হাতে এই স্যানিটাইজার দেবেন। করোনা নিয়ে সচেতনতায় সরকারি বাস স্যানিটাইজ করার কাজ আগেই শুরু করে দিয়েছিল রাজ্য পরিবহন দফতর।

সল্টলেক, কসবা, তারাতলা, বেলঘড়িয়া, লেক ও এসপ্ল্যানেড ডিপোতে চলছে এই কাজ। এক একটি বাস ট্রিপ সেরে ফেরার পরই ডিপোতে স্প্রে করে স্যানিটাইজ করা হচ্ছে। দফতর থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে কোনও বাস জীবাণুনাশক স্প্রে ছাড়া চলতে দেওয়া হবে না। বিভিন্ন ডিপোতে গিয়ে দেখা যাচ্ছে, প্রথমেই বাসের মেঝে পরিষ্কার করা হচ্ছে। তার পরে জীবাণুনাশক  স্প্রে দেওয়া হচ্ছে দু'বার করে।

করুণাময়ী বাস ডিপোর ম্যানেজার শংকর ভট্টাচার্য বলেন," প্রতিদিন আমরা বাস পরিষ্কার করার কাজ করি। কিন্তু এই করোনার ঘটনার জেরে আমরা প্রতি ট্রিপ শেষ হয়ে যাওয়ার পরে বাসে জীবাণুনাশক স্প্রে করে দিচ্ছি। আর রাতের বেলা ডিপোতে আরও একবার বাস পরীক্ষা করা হচ্ছে। এর জন্য আমাদের যারা স্টাফ রয়েছেন তারা শিফটে ডিউটি করছেন।" এই সল্টলেক করুণাময়ী ডিপো থেকে প্রায় ৮০ টি এসি ভলভো বাস প্রতিদিন যাতায়াত করে। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য পরিবহন নিগম এই বাস চালানো ও রক্ষণাবেক্ষণের কাজ করে। এছাড়া এখান থেকে এস বি এস টি সি'র বাসও চলাচল করে।

রাজ্য  পরিবহন দফতরের তরফ থেকে বিভিন্ন নিগমকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে সমস্ত ডিপোতেই যেন এই ব্যবস্থা জারি করে রাখা হয়। অন্যদিকে, বিমানবন্দর যাতায়াত করছে যে সমস্ত বাস, তার চালক ও কন্ডাক্টরদের দেওয়া হচ্ছে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার। যে সমস্ত ডিপো থেকে বাসগুলো চলাচল করছে, সেখান থেকেই এগুলো দেওয়া হচ্ছে। এন বি এস টি সি'র তরফ থেকেও তাদের যে বাস শিলিগুড়ি, কোচবিহার আর হিলি যাচ্ছে সেখানে এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। দফতরের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষের সাথে বাসের চালক ও কন্ডাক্টরদের স্পর্শ ঘটে৷ তাই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নিয়ম মেনেই যাবতীয় প্রস্তুতি সারা হয়েছে। তাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যাত্রীদের হাতেও এই স্যানিটাইজার দেওয়া হবে। এসপ্ল্যানেড ডিপো থেকে চলাচল করে দূরপাল্লার বাসও। সেখানেও চলছে এই কাজ। বিশেষ করে বাংলাশ্রী ও ভলভো বাসে বেশি নজরদারি রয়েছে। তবে করোনার জেরে এই সমস্ত বাসেও কমেছে যাত্রী সংখ্যা।

First published: March 18, 2020, 12:03 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर