কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘একজন শিয়াল হুক্কা হুয়া করছে, পাশ থেকে শুরু হুক্কা হুয়া,’ কটাক্ষ ফিরহাদের

‘একজন শিয়াল হুক্কা হুয়া করছে, পাশ থেকে শুরু হুক্কা হুয়া,’ কটাক্ষ ফিরহাদের

বিজেপিতে রাজীবের যোগদান প্রসঙ্গে ফিরহাদ বলেন, ‘আমার মনে হয় না, রাজীব গ্যাস খাবে ৷’

  • Share this:

#কলকাতা: শুভেন্দু, শীলভদ্র, অতীন ঘোষের পর এবার রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ এবার দলের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যেই ক্ষোভ উগরে দিলেন বনমন্ত্রী ৷ রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যে নয়া শোরগোল রাজ্য রাজনীতিতে ৷ একের পর এক নেতার দলবিরোধীদের মন্তব্য নিয়ে ফিরহাদ হাকিমের প্রতিক্রিয়া,‘একজন শিয়াল হুক্কা হুয়া করছে, পাশ থেকে শুরু হুক্কা হুয়া’ ৷

রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলবিরোধী মন্তব্য নিয়ে ফিরহাদ ববি হাকিমকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘ডিপ্রেশন একটা অদ্ভুত রোগ ৷ একজনকে দেখে আরেকজনের ডিপ্রেশন হয় ৷ বন্ধুদের বলব, ডিপ্রেশনের কোনও জায়গা নেই ৷ মনে রাখতে হবে আমরা সবাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সৈনিক ৷’

রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলবিরোধী মন্তব্য রাজনৈতিক মহলে নয়া জল্পনা তাহলে কী বনমন্ত্রীও এবার বিজেপির পথেই পা বাড়াতে চলেছেন ৷ পরিস্থিতি দেখে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও তাঁকে আহবান জানাতে ভোলেননি ৷ রাজীবের প্রসঙ্গে রবিবার দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, "কখনও রাজীব বলছেন। কখনও অন্যরা। তৃণমূলের সবাই একে একে সরব হচ্ছেন।" এখানেই শেষ নয়। দিলীপ ঘোষ আরও বলেন, 'রাজীবকে দলে স্বাগত। ভাল ছেলে। ভাল কাজ করেছিল। ও দলে আসতে চাইলে স্বাগত।'

বিজেপিতে রাজীবের যোগদান প্রসঙ্গে ফিরহাদ বলেন, ‘রাজীব পরিণত, বুদ্ধিমান ছেলে ৷ বিজেপির লোকেরা গ্যাস দেওয়ার চেষ্টা করবে ৷ আমার মনে হয় না, রাজীব গ্যাস খাবে ৷’

বিতর্কের সূত্রপাত শনিবার ৷ হরিদেবপুরের এক রাজনৈতিক কর্মসূচিতে যোগ দিয়ে দলের বিরুদ্ধেই ক্ষোভ উগরে দেন বনমন্ত্রী ৷ রাজীব বলেন, ‘স্তাবকতা করতে পারলে নম্বর বেশি। ভালকে খারাপ, খারাপকে ভাল বলতে পারি না তাই আমার নম্বর কম। অন্যদের বেশি। দলে স্তাবকরা সব সামনের সারিতে ৷ কাজ না করে ঠান্ডা ঘরে বসে স্তাবকতার জোরে দলের নেক নজরে ৷’

এখানেই শেষ নয় অতীন ঘোষের পর শুভেন্দুকে নিয়েও বেসুরো মন্তব্য রাজীবের মুখেও ৷ বলেন, শুভেন্দু অধিকারী দল ছাড়লে তৃণমূলের ক্ষতি ৷ নেতাদের এত ক্ষোভ কেন তাও দলের অনুসন্ধান করে দেখা উচিত ৷ প্রকাশ্যে দলের বিরুদ্ধে কথা বলায় রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর প্রবল ক্ষুব্ধ হয়েছেন মন্ত্রী অরূপ রায়, কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় সহ দলের বহু নেতা ৷

মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যের কড়া সমালোচনা তৃণমূলের আরেক মন্ত্রী অরূপ রায়ের মুখে ৷ বলেন, ‘চোরের মায়ের বড় গলা। দলে থেকে ব্ল্যাকমেলিং করা যাবে না।যারা বেশি পায় তারা আরও বেশি চায় ৷ এদের দলের জন্য কোনও আত্মত্যাগ নেই, শুধু নিতেই এসেছে ৷ ’ ক্ষোভ উগরে দিলেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ও ৷ বলেন, যাঁরা যাবেন, চলে যাক ৷ শুভেন্দু চলে গিয়েছে ৷ মন্ত্রিত্ব থেকে পদত্যাগ করেছেন ৷ শেষদিন পর্যন্ত ভোগ করতে হবে না ৷ সুর-অসুর বুঝি না ৷ একটাই সুর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷’

নেত্রীর কড়া বার্তাতেও বদলাল না পরিস্থিতি ৷ শুক্রবার কালীঘাটের সভায় তৃণমূল সুপ্রিমোর কড়া বার্তার পরেরদিনই সরব রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ তৃণমূলের কপালে নয়া চিন্তার ভাঁজ এখন বনমন্ত্রী ৷

Published by: Elina Datta
First published: December 6, 2020, 6:46 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर