নারকেলডাঙায় ভয়াবহ আগুনে পুড়ে ছাই ২৫টি ঝুপড়ি ! আগুন লাগার কারণ স্পষ্ট নয়

সোমবার ভোর পাঁচটা। হঠাৎ নারকেলডাঙার ছাগলপট্টি বস্তি থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখা যায়। স্থানীয়দের দাবি, এলাকার একটি মিটার ঘর থেকে আগুন ছড়ায়।

সোমবার ভোর পাঁচটা। হঠাৎ নারকেলডাঙার ছাগলপট্টি বস্তি থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখা যায়। স্থানীয়দের দাবি, এলাকার একটি মিটার ঘর থেকে আগুন ছড়ায়।

  • Share this:

    #কলকাতা: ভোররাতে নারকেলডাঙায় বস্তিতে বিধ্বংসী আগুন। ভোর পাঁচটা নাগাদ ক্যানাল ইষ্ট রোডের খালপাড়ের বস্তিতে আগুন লাগে। পুড়ে যায় বেশ কয়েকটি ঝুপড়ি। প্লাস্টিক ছাউনি থাকায় দ্রুত ছড়ায় আগুন। ঘটনাস্থলে যান দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। মিটার-ঘর থেকে আগুন লাগে বলে দাবি স্থানীয়দের।

    বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে ছাই সংসার। লকডাউনের জন্য অনেকেই ঘরে চাল, খাবার মজুত করেছিলেন। আগুনের লেলিহান শিখায় সব শেষ। বইপত্তর, জামাকাপড়,অতিকষ্টে জমানো সঞ্চয় হারিয়ে বোবা নারকেলডাঙার খালপাড়ের ছাগলপট্টির বাসিন্দারা। সব হারানোর যন্ত্রণা চোখে বসে ক্যানাল ইস্ট রোডের পুড়ে যাওয়া বস্তির বাসিন্দা সাহিদা বিবি, মহম্মদ ইমরানরা।

    সোমবার ভোর পাঁচটা। হঠাৎ নারকেলডাঙার ছাগলপট্টি বস্তি থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখা যায়। স্থানীয়দের দাবি, এলাকার একটি মিটার ঘর থেকে আগুন ছড়ায়। বাঁশ ও প্লাস্টিকের মতো দাহ্য পদার্থ দিয়ে তৈরি বস্তিতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে কয়েক মিনিটে। কিছু বোঝার আগেই দাউদাউ করে জ্বলতে থাকে গোটা বস্তি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় দমকলের দশটি ইঞ্জিন। তবে কিছুই বাঁচানো যায়নি।ভস্মীভূত হয়ে যায় প্রায় ২৫টি ঝুপড়ি।

    চোখের নিমেষে পর-পর ঝুপড়ি পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আগুন নেভানোর কাজে হাত লাগান এলাকার মানুষ। দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় অবশেষে আয়ত্বে আসে আগুন। ততক্ষণে আগুনের গ্রাসে শেষ হয়ে গেছে শেষ সম্বলটুকুও। চোখের সামনে ভেঙে পড়েছে বহু কষ্টে গড়ে তোলা মাথার একফালি ছাদ। ঘটনাস্থলে আসেন দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে থাকার আশ্বাস দেন মন্ত্রী।

    কিভাবে আগুন লাগল, স্পষ্ট নয়। আগুন লাগার কারণ নিয়ে তদন্ত হবে,জানিয়েছেন দমকলমন্ত্রী।

    Published by:Siddhartha Sarkar
    First published: