corona virus btn
corona virus btn
Loading

বিতর্কের অবসান, ১ অক্টোবর থেকে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে চুড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা নেবে রাজ্য, শিক্ষামন্ত্রী-উপাচার্য বৈঠকে সিদ্ধান্ত

বিতর্কের অবসান, ১ অক্টোবর থেকে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে চুড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা নেবে রাজ্য, শিক্ষামন্ত্রী-উপাচার্য বৈঠকে সিদ্ধান্ত

গত শুক্রবারই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে নির্দেশ দেন তিনদিনের মধ্যেই পরীক্ষা কিভাবে নিতে হবে তা নিয়ে যাতে বৈঠক করে দ্রুত রিপোর্ট দেন।

  • Share this:

#কলকাতা: অবশেষে সব বিতর্কের অবসান। রাজ্যের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র ছাত্রীদের পরীক্ষা নেওয়া হবে। আগামী ১  অক্টোবর থেকে ১৮ অক্টোবর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলি এই পরীক্ষা নেবে। সোমবার উপাচার্যদের সঙ্গে ভার্চুয়ালি বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেই বৈঠকেই পরীক্ষার দিনক্ষণ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কিন্তু কিভাবে পরীক্ষা নেওয়া হবে তা ঠিক করবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি।

সোমবারের বৈঠকে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় উপাচার্যদের উদ্দেশ্যে স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছেন " সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশকে মানতে হবে। ইউজিসি যেভাবে নোটিফিকেশন করেছে তা দেখে নিতে হবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে। পরীক্ষা কিভাবে নিতে হবে তা নিয়ে রাজ্য সরকার আর কোন অ্যাডভাইজারি দেবে না বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে।"

সোমবারের বৈঠকে শিক্ষা মন্ত্রী জানিয়ে দেন ১ থেকে ১৮  অক্টোবর পর্যন্ত পরীক্ষা নিলে ৩১ অক্টোবরের মধ্যেই ফল প্রকাশ করে দিতে হবে। যদিও পরীক্ষা নেওয়ার পর এত কম সময়ের মধ্যে কিভাবে ফল প্রকাশ সম্ভব সোমবারের বৈঠকে তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেন বেশ কয়েক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা। তবে পরীক্ষা নেওয়ার ভার বিশ্ববিদ্যালয়গুলির ওপর ছেড়ে দেওয়া হলেও বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয় হোম অ্যাসাইনমেন্ট বা অনলাইনে কোন পরীক্ষা নেওয়া যায় নাকি সেই বিষয়েও ভাবনাচিন্তা শুরু করেছে। যদিও কলকাতা ও শহরতলীর বিশ্ববিদ্যালয়গুলির পক্ষে অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হলেও জেলা বা প্রান্তিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলির ক্ষেত্রে কতটা সম্ভব তা নিয়ে দিনের বৈঠকে সংশয় প্রকাশ করেন উপাচার্যরা।

গত শুক্রবারই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে নির্দেশ দেন তিনদিনের মধ্যেই পরীক্ষা কিভাবে নিতে হবে তা নিয়ে যাতে বৈঠক করে দ্রুত রিপোর্ট দেন। সেই মোতাবেক সোমবারের মধ্যেই পরীক্ষা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। ইউজিসি তরফে যে গাইডলাইন জারি করা হয়েছিল সেখানে ৩১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পরীক্ষা নেওয়ার কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী আগেই জানিয়েছিলেন সেপ্টেম্বরের মধ্যে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয় কারণ করোনা ভাইরাস সংক্রমণ যে হারে বাড়ছে সেই আশঙ্কার কথা জানিয়ে। এই দিনের বৈঠকে ঠিক হয়েছে রাজ্য সরকার যে অক্টোবর মাসে ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র ছাত্রীদের পরীক্ষা নেবে সেই বিষয়ে ইউজিসিকে চিঠি লিখবে। এক্ষেত্রে সুপ্রিম কোর্টের রায় ছিল অর্থাৎ কোন রাজ্য যদি সেপ্টেম্বরে পরীক্ষা না নিতে পারে সে ক্ষেত্রে ইউজিসি সঙ্গে আলাপ আলোচনা করতে পারে। সোমবারের বৈঠকে স্থির হয়েছে এই বিষয় নিয়ে ইউজিসি সঙ্গে এক প্রকার আলাপ-আলোচনা করে নেবে উচ্চ শিক্ষা দপ্তরের আধিকারিকরা।

গত জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহে রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলি কিভাবে পরীক্ষা নেবে ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র ছাত্রীদের সেই বিষয়ে এক অ্যাডভাইজারি জারি করে। যদিও সেই অ্যাডভাইজারি জারির পর পরই ইউজিসি তরফে পরীক্ষা নিয়ে গাইডলাইন জারি করা হয়।যা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকেও চিঠি লেখেন। তবে সোমবারের বৈঠকে উপাচার্যদের শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন পরবর্তী ক্ষেত্রে রাজ্য সরকার আর কোন পরীক্ষা নেওয়া নিয়ে অ্যাডভাইজারি দেবে না। তবে জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহে রাজ্য যে অ্যাডভাইজারি দিয়েছিল পরীক্ষা কিভাবে নিতে হবে সেই অ্যাডভাইজারি অবশ্য প্রত্যাহার করা হচ্ছে না অন্তত এই দিনের বৈঠকে এমনটাই জানানো হয়েছে উপাচার্যদের। তবে সোমবারের ভার্চুয়ালি বৈঠক নিয়ে সন্ধ্যা পর্যন্ত শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় কোন মন্তব্য করতে চাননি।

 সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by: Elina Datta
First published: August 31, 2020, 6:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर