৩দিনের জন্য পুলিশ হেফাজতে ভুয়ো চিকিৎসক অভিযোগে ধৃত অরোদীপ চট্টোপাধ্যায়

৩দিনের জন্য পুলিশ হেফাজতে ভুয়ো চিকিৎসক অভিযোগে ধৃত অরোদীপ চট্টোপাধ্যায়

ফের ৩দিনের জন্য পুলিশ হেফাজতে ভুয়ো চিকিৎসক অভিযোগে ধৃত অরোদীপ চট্টোপাধ্যায়।

  • Share this:

#কলকাতা: ফের ৩দিনের জন্য পুলিশ হেফাজতে ভুয়ো চিকিৎসক অভিযোগে ধৃত অরোদীপ চট্টোপাধ্যায়। গতকাল তল্লাশিতে উদ্ধার হওয়া ওষুধ ও নথি ব্যপারে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে যায় পুলিশ। গত ২৯শে জুন লেকটাউন থেকে গ্রেফতার করা হয় অরোদীপ চট্টোপাধ্যায়কে। ধৃতের বিরুদ্ধে প্রতারণা, জালিয়াতি সহ একাধিক ধারায় মামলা রুজু হয়।

গতকাল অরোদীপের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে বেশকিছু ওষুধের বোতল বাজেয়াপ্ত করেছেন তদন্তকারীরা। পুলিশের দাবি, বোতলের গায়ে ওষুধের উপাদানের নাম লেখা নেই। শুধু সাংকেতিক অক্ষরে লেখা অরোদীপের নাম। ওই ওষুধই অরোদীপ চিকিৎসায় ব্যবহার করত কিনা তা জানার চেষ্টা করেছে পুলিশ। বোতলে উপাদানের নাম লেখা নেই কেন? ৩ দিনের জন্য হেফাজতে নিয়ে তাও জানার চেষ্টা করবে পুলিশ।

নিজেকে এমডি অঙ্কোলজিস্ট বলে পরিচয় দিতেন অরদীপ চট্টোপাধ্যায়। লেকটাউনের এস কে দেব রোডের উপর ঝাঁ চকচকে বাড়ি। তার একতলাতেই ১২ শয্যা নিয়ে হাসপাতাল। বাইরে সাইনবোর্ড ঝোলানো। এ হেন চিকিৎসকের নাকি নেই কোনও এমবিবিএস ডিগ্রি। নেই কোনও রেজিস্ট্রেশনও। সামান্য উচ্চ মাধ্যমিক পাশ অরদীপের এই কীর্তিতে অবশ্য অবাক হচ্ছে না পাড়ার লোকেরা। তাদের বক্তব্য, আচমকাই জাঁকজমক বেড়েছিল অরদীপের। চিকিৎসার মান নিয়ে বিস্তর অভিযোগও ছিল তাদের। পুলিশের কাছে অভিযোগও জমা পড়েছিল। পুলিশ স্বতঃপ্রণোদিত মামলা করে তদন্ত শুরু করে। বাবা অসীম কুমার চট্টোপাধ্যায় হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক, পাড়ায় চেম্বারও আছে তাঁর। কিন্তু ছেলের এই কীর্তি নিয়ে মুখ খুলতে চাইছেন না বাড়ির কেউই। অরদীপ নিজে বলছেন বিদেশ থেকে নাকি তিনি ডিগ্রি নিয়ে এসেছেন, যদিও সার্টিফিকেট দেখাতে পারেননি।

First published: 08:05:58 PM Jul 04, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर