দেড় মাসেই ফের বাজারে হাজির জাল ২ হাজারের নতুন নোট

দেড় মাসেই ফের বাজারে হাজির জাল ২ হাজারের নতুন নোট

প্রধানমন্ত্রী বলছেন, কালো টাকার পাশাপাশি জাল টাকার মোকাবিলা করতেই নোট-বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

  • Share this:

#কলকাতা:  প্রধানমন্ত্রী বলছেন, কালো টাকার পাশাপাশি জাল টাকার মোকাবিলা করতেই নোট-বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কিন্তু ছাপার দেড় মাসের মধ্যেই বাজারে মিলল নয়া দু'হাজার টাকার জালনোট। তাও আবার এরাজ্যেই। দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার বারুইপুর থেকে বেশ কয়েকটি জাল দু'হাজারের নোট ও প্রিন্টার উদ্ধার করে পুলিশ। গ্রেফতার করা হয় জাল নোটের কারবারিকেও।

আর্বিভাব হওয়ার আগে থেকেই শোনা যাচ্ছিল, এই নোট নকল হওয়া সম্ভব নয় ৷ সরকারি সূত্রে খবর, নতুন ৫০০ ও ২০০০ টাকার নোটের ক্ষেত্রে এতটাই সতর্কতা নেওয়া হয়েছে যে পাকিস্তানও নতুন নোটের জাল করতে পারবেন না ৷ কিন্তু নোট বাতিল দুর্ভোগের মধ্যেই সরকারের চিন্তা বাড়াল নকল দু’হাজার টাকার নোট ৷

৮ নভেম্বর, ২০১৬

প্রথম দু'হাজার টাকার জালনোট প্রকাশ্যে আনে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া।

১০ নভেম্বর, ২০১৬

বাজারে ছাড়া হয় নতুন দু'হাজারের নোটগুলি। জানানো হয়, এই নোট জাল করা কার্যত অসম্ভব।

২২ ডিসেম্বর, ২০১৬

বাজার ছাড়ার পর দেড় মাসও কাটেনি। তার আগেই মিলল নতুন দু'হাজারের জালনোটের হদিশ। বৃহস্পতিবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার বারুইপুরে মিলল জাল দু'হাজার টাকার নোট। কীভাবে জালনোটের হদিশ পেল পুলিশ?

বারুইপুরের বকুলতলার একটি দোকান থেকে খাবার কিনে ২ হাজার টাকার নোট দেয় দু'জন নাবালক। সেই নোট দেখেই সন্দেহ হয় দোকানির। খবর দেওয়া হয় পুলিশে। দুই নাবালককে জেরা করতেই হদিশ মেলে জালনোট ছাপার আঁতুরঘরের। জানা যায়, বারুইপুরের গোলামবাড়িতে প্রসেনজিৎ বিশ্বাসের বাড়ি থেকে সেই নোটগুলি চুরি করেছে তারা ৷

 এরপরই শুক্রবার সকালে প্রসেনজিৎ বিশ্বাসকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে বাজেয়াপ্ত করা হয় কাগজ-কালি-প্রিন্টার এবং বেশ কয়েকটি দু'হাজার টাকার জালনোট। এদিন ধৃতকে বারুইপুর আদালতে তোলা হলে তিন দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়।

এর আগে কর্ণাটক ও হায়দরাবাদ থেকে ২০০০ টাকার নোটের ফটোকপি করে জাল করার খবর প্রকাশ্যে এসেছিল ৷

First published: 07:14:31 PM Dec 23, 2016
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर