কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

'প্যাক আপ', মদন মিত্রের ফেসবুক পোস্টে ঘিরে জোর চাঞ্চল্য়

'প্যাক আপ', মদন মিত্রের ফেসবুক পোস্টে ঘিরে জোর চাঞ্চল্য়
মদন মিত্রের ফেসবুক পোস্ট৷

মদন ঘনিষ্ঠদের বক্তব্য, ক্যাপশনের কারণ জানতে প্রায় হাজার খানেক ফোন এসেছে মদন মিত্র ও তাঁর ঘনিষ্ঠদের কাছেই।

  • Share this:

#কলকাতা: নেট দুনিয়ায় সিটিজেন মদন মিত্র বরাবর ট্রেন্ডিং। তিনিই হঠাৎ করে চায়ের কাপ হাতে ফেসবুকে পোস্ট করলেন একটা ছবি। যে ছবির ক্যাপশনে লেখা 'প্যাক আপ'। আর সেই লেখা নিয়ে ঝড় ফেসবুকে।

মদন ঘনিষ্ঠদের বক্তব্য, ক্যাপশনের কারণ জানতে প্রায় হাজার খানেক ফোন এসেছে মদন মিত্র ও তাঁর ঘনিষ্ঠদের কাছেই। কিন্তু প্যাক আপ বলতে কী বোঝালেন তিনি? ফেসবুকেই তার জবাব দিলেন সিটিজেন মদন মিত্র। কিন্তু তিনি তাঁর জবাবে কাকে উদ্দেশ্য করে বললেন? সরাসরি নাম না করলেও, অনেকেই বলছেন, সাম্প্রতিক কালে রাজনীতিতে একটা নাম নিয়েই চর্চা চলছে। তাকে তোপ দেগেই এই ফেসবুক পোস্ট।

মদন মিত্র জানিয়েছেন, 'আমি বিদ্রোহী, আমি চেঙ্গিস, আমি আপনাকে ছাড়া কাউকে করি না কুর্নিশ।' তিনি যে দলনেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের উপরে আস্থা রাখেন সেটাই আরও একবার স্পষ্ট করেছেন প্রাক্তন মন্ত্রী। পাশাপাশি দলের বিদ্রোহীদের উদ্দেশ করে বলেছেন, আমি 'মা'-কেও অপমান করিনা, 'মাটি'-কেও অপমান করি না, একই সঙ্গে জানি মানুষ সাথে না থাকলে মা আর মাটি দিয়ে চলবে না। মানু্ষকেও সাথে নিতে হবে।'

তিনি যে দলে বিশ্বাসঘাতক নন, সেটাও জানিয়েছেন তিনি। সেখানে উল্লেখ করেছেন, 'আমি বিশ্বাসঘাতক নই। আমি এক আনা পেলে ১৬ আনা ফেরত দেওয়ার চেষ্টা করেছি।' একই সঙ্গে তাঁর মন্তব্য, 'আমি জাহাজে আসিনি, চপারে চেপে উঠিনি। আমি পায়ে হেঁটেও এসেছি।' এ ছাড়া জনপ্রিয়তা নিয়েও নিজের ব্যাখ্যা দিয়েছেন মদন মিত্র। মদন মিত্রের দাবি, তিনি নিজে ২০১৩-১৪ সালে মন্ত্রী ছিলেন। তারপর থেকে তিনি আর মন্ত্রিত্বে নেই। কিন্তু জনপ্রিয়তা কাকে বলে সেটা বোঝার জন্যে তাঁর কাছে এসে দেখা উচিত। একই সাথে মদন মিত্রের চ্যালেঞ্জ মন্ত্রিত্ব ছেড়ে ৬ বছর থাকুন। তারপরে আসুন। বুঝে নেব কার কত জনপ্রিয়তা।

রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, পরিবহণ দফতর নিয়ে দূরত্ব ছিল দু'জনের মধ্যেই। ইউনিয়ন সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দু'তরফের মধ্যেই ছিল দড়ি টানাটানি। ফলে সরাসরি না বললেও আসলে শুভেন্দুকে উদ্দেশ করেই এই সমস্ত কিছু বলেছেন তিনি। তবে শুভেন্দু অনুগামীরা এই বিষয়ে মুখ খুলতে নারাজ।

Abir Ghosal

Published by: Debamoy Ghosh
First published: November 30, 2020, 9:23 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर