ময়দানে হাওয়া খেতে যাবেন ? সাবধান ! দূষণ নিয়ে লাল সঙ্কেত আছে কিন্তু...

ময়দানে হাওয়া খেতে যাবেন ? সাবধান ! দূষণ নিয়ে লাল সঙ্কেত আছে কিন্তু...

বড়দিন ও তার পরের দিন জুড়েই কলকাতায় দাপিয়ে বেড়াল দূষিত বাতাস

  • Share this:

ABIR GHOSHAL

#কলকাতা: 'দূষণনগরী' তকমা ঘোচাতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে পরিবেশ দফতর। দূষণ কমাতে নানা ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলছে কলকাতা পুরসভাও। কিন্তু দূষণ কমার কোনও লক্ষণ নেই উৎসব নগরী কলকাতায়। যদিও দূষণ কমাতে গত দুই সপ্তাহ ধরে লাগাতার নানা কৌশল অবলম্বন করে চলেছে পরিবেশ দফতর। রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রন পর্ষদও নানা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। যদিও বড়দিন ও তার পরের দিন জুড়েই কলকাতায় দাপিয়ে বেড়াল দূষিত বাতাস।

রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রন পর্ষদ বাতাসের অবস্থা যাচাই করতে শহরের নানা প্রান্তে মিটার বসিয়েছে। দক্ষিণের যাদবপুর থেকে উত্তরের রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় চত্বর... সর্বত্রই সব জায়গার মিটার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত 'পুওর' ও ' ভেরি পুওর' সঙ্কেত পাঠিয়ে চলেছে, যা দেখে চিন্তিত পরিবেশবিদরা।

শহরে দূষণের অন্যতম কারণ হল গাড়ির ধোঁয়া থেকে তৈরি হওয়া দূষণ। উৎসবের মরশুমে শহরের নানা প্রান্তে প্রচুর গাড়ি যাতায়াত করে। জেলা থেকে প্রচুর গাড়ি আসে, যাদের অধিকাংশ বড় গাড়ি- বাস। সেই গাড়িগুলির ধোঁয়া থেকে তৈরি হওয়া দূষণের জন্যই ময়দান, রবীন্দ্র ভারতী, ফোর্ট উইলিয়াম চত্বর দূষণের লাল সঙ্কেত দেখিয়ে চলছে।

এই সময় ময়দান চত্বরে যেমন বিভিন্ন বয়সের মানুষ যাতায়াত করেন ঠিক তেমনি ভাবে বিধাননগর চত্বরে নিকো পার্ক ও ইকো পার্কে বহু মানুষ যাতায়াত করছেন। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, এই সব এলাকায় বাতাসে ভাসমান সূক্ষ্ম ধূলিকণা ও বড় ধূলিকণার মাত্রা এতটাই বেশি যে তা শিশু ও বৃদ্ধ-বৃদ্ধাদের শরীরের পক্ষে ভীষণ ক্ষতিকর। বিশেষ করে শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যা সবচেয়ে বেশি করে হবে। তাই বিশেষ মাস্ক ছাড়া তাঁদের ময়দান বা এই চত্বরে যাওয়া উচিত নয় বলেই মনে করছেন চিকিৎসকেরা। কিন্তু এই অবস্থা থাকলে সাধারণ মানুষকে সচেতন করা উচিত বলে মনে করছেন পরিবেশবিদরা। তাঁদের বক্তব্য, নিয়মানুযায়ী লাল সঙ্কেত আসলে প্রশাষনের উচিত মাইকিং করে পরিবেশের অবস্থা জানানো। তাঁদের দাবি, বিশ্ব স্বাস্হ্য সংস্থা 'হু'-র গাইডলাইনেও তা বলা আছে। তবে পুরসভা সূত্রে জানানো হচ্ছে, তারা ও দমকল বিভাগ রাস্তায় ক্রমশ জল ছেটানোর কাজ চালিয়ে যাচ্ছে । তাতে অবশ্য কাজের কাজ কিছু হচ্ছে না বলেই ক্ষোভ রয়েছে পরিবেশবিদদের। তবে উৎসবের সময় কতজন যে এই সাবধানবাণী মানবেন তা নিয়ে সন্দেহ আছে। কারণ উৎসবের সময় সবাই হৈ হুল্লোড় করতেই ব্যস্ত। তাই বেড়াতে অবশ্যই বেরোন, তবে সাবধানে থাকুন আর ঢেকে রাখুন নাক-মুখ-চোখ। কারণ বাতাস নয় “শুদ্ধ”।

First published: 01:26:01 PM Dec 26, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर