• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • শোভনার দেখানো পথে শহরে ফের অঙ্গদানের নজির

শোভনার দেখানো পথে শহরে ফের অঙ্গদানের নজির

ফের অঙ্গদানের সাক্ষী হল কলকাতা ৷ সরকার পরিবারের দেখানো পথে এবার হাঁটল চক্রবর্তী পরিবার ৷

ফের অঙ্গদানের সাক্ষী হল কলকাতা ৷ সরকার পরিবারের দেখানো পথে এবার হাঁটল চক্রবর্তী পরিবার ৷

ফের অঙ্গদানের সাক্ষী হল কলকাতা ৷ সরকার পরিবারের দেখানো পথে এবার হাঁটল চক্রবর্তী পরিবার ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: শোভনা সরকারের পর এবার সমর চক্রবর্তী ৷ ফের অঙ্গদানের সাক্ষী হল কলকাতা ৷ সরকার পরিবারের দেখানো পথে এবার হাঁটল চক্রবর্তী পরিবার ৷ ব্রেন ডেথ হওয়ার পর দমদমের বাসিন্দা সমর চক্রবর্তীর অঙ্গদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁর পরিবার ৷ সমরবাবুর চোখ, লিভার এবং সম্ভব হলে হৃদপিণ্ডও দান করা হবে ৷

    ম্যাসিভ হার্ট অ্যাটাকের পর বেশ কয়েকদিন ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন দমদম ক্যান্টনমেন্টের বাসিন্দা সমর চক্রবর্তী ৷ এদিন সকালে ব্রেন ডেথের কথা চিকিৎসকরা নিশ্চিত করার পর সমরবাবুর অঙ্গদানের ইচ্ছার কথা জানায় তাঁর পরিবার ৷ এরপরই শুরু হয়ে যায় অঙ্গ প্রতিস্থাপনের সরকারি প্রক্রিয়া ৷ ব্রেন ডেথ নিশ্চিত করতে ৪ সদস্যের কমিটি গড়ে অ্যাপেলো হাসপাতাল ৷ কমিটিতে রয়েছেন অ্যাপেলো হাসপাতালের তিন চিকিৎসক ও একজন সরকারের প্রতিনিধি ৷

    অ্যাপোলো হাসপাতালের ডিএমএম চিকিৎসক সুজয় কর জানিয়েছেন, অঙ্গ প্রতিস্থাপনের জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের দল চেন্নাই অ্যাপোলো থেকে কলকাতায় আসছেন ৷ সমর চক্রবর্তীর লিভার প্রতিস্থাপন করা হবে অ্যাপেলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক রোগীর শরীরে ৷ তাঁর দুটি কর্ণিয়া দুই ব্যক্তির দৃষ্টি ফেরানোর কাজে লাগানো হবে ৷ তাঁর হৃদযন্ত্র নিয়ে যাওয়া হচ্ছে দিল্লিতে ৷

    গত জুন মাসেই কলকাতায় অঙ্গদানের বিরল নজির দেখা গিয়েছিল ৷ গড়িয়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ব্রেন ডেথ হয় সত্তর বছরের শোভনা সরকারের। মৃত্যুর পর তাঁর ইচ্ছে অনুযায়ী  চোখ-সহ অন্য অঙ্গ-প্রতঙ্গ দানের সিদ্ধান্ত নেয় পরিবার। কিন্তু সাহায্য করার মতো কাউকে পাচ্ছিলেন না। খবর পেয়ে যোগাযোগ করেন মিন্টো পার্কের একটি বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা। শোভনা সরকারের দেহ পরীক্ষার পর অঙ্গ প্রতিস্থাপনে সবুজ সংকেত দেন তাঁরা। একটি কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয় কেয়া রায়ের শরীরে। অন্য কিডনিটি পাঠানো হয় SSKM-এ। সেখানে শেখ ফিরোজউদ্দিন নামে এক ব্যক্তির শরীরে তা প্রতিস্থাপন করা হয়। অপারেশনের পর দুজনই সুস্থ রয়েছেন। শোভনা দেবীর চোখ দুটি একটি বেসরকারি হাসপাতালে সংরক্ষণ করে রাখা রয়েছে।

    First published: