কলকাতা

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘UGC-র থেকেই আসুক অক্টোবরে পরীক্ষার অনুমতি, তারপরেই পরীক্ষার সূচী’

‘UGC-র থেকেই আসুক অক্টোবরে পরীক্ষার অনুমতি, তারপরেই পরীক্ষার সূচী’

বুধবারের অভিজ্ঞতা নিয়ে বৈঠকে উপাচার্য জানিয়ে দিলেন ইউজিসি তরফে রাজ্যের দেওয়া চিঠির উত্তর না আসা পর্যন্ত আপাতত কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কবে কোন পরীক্ষা নেওয়া হবে তার সূচি ঘোষণা করবে না।

  • Share this:

#কলকাতা: স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র-ছাত্রীদের পরীক্ষার রূপরেখা কি হবে তা নিয়েই মূলত বুধবার কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্থ প্রত্যেকটি কলেজের অধ্যক্ষ দের নিয়ে ভার্চুয়ালি বৈঠক করেন উপাচার্য সোনালী চক্রবর্তী বন্দ্যোপাধ্যায়। গত সপ্তায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ঘোষণা করেছেন অক্টোবর মাসের ১ থেকে ১৮ তারিখ পর্যন্ত পরীক্ষা নেওয়া হবে। বুধবারের অভিজ্ঞতা নিয়ে বৈঠকে উপাচার্য জানিয়ে দিলেন ইউজিসি তরফে রাজ্যের দেওয়া চিঠির উত্তর না আসা পর্যন্ত আপাতত কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কবে কোন পরীক্ষা নেওয়া হবে তার সূচি ঘোষণা করবে না। যদিও অক্টোবর মাসেই বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষা নেবে সেই প্রস্তুতি নিয়েই যাতে কলেজগুলি পদক্ষেপ নেয় সেই বিষয়েও উপাচার্য এদিন অধ্যক্ষদের জানিয়েছেন।

এই দিনের বৈঠকে প্রত্যেকটি কলেজের অধ্যক্ষ দের থেকে তাদের মতামত জেনে নেন উপাচার্য সোনালী চক্রবর্তী বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্যদিকে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ও আপাতত পরীক্ষার সূচি ঘোষিত করছে না। বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশিকা জারি হল অক্টোবর মাসে পরীক্ষা নেওয়ার ব্যাপারে ইউজিসির অনুমতি না আসা পর্যন্ত পরীক্ষার সূচি ঘোষিত করার ব্যাপারে ধীরে চলার নীতি নিয়েছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। যদিও এই প্রসঙ্গে উপাচার্য সুরঞ্জন দাস বলেন " আমরা সুপ্রিম কোর্টের রায় ও ইউজিসির নির্দেশিকা মেনে পরীক্ষা নেব বলে ইতিমধ্যেই বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। পরীক্ষার নির্ঘণ্ট কি হবে তা যখন ঠিক হবে আপনারা যথাসময়ে জানতে পারবেন।" যদিও ইউজিসির চিঠির উত্তর আসা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অপেক্ষা করতে চাইছে নাকি সে বিষয়ে অবশ্য যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য কোন মন্তব্য করতে চাননি।

সেপ্টেম্বর মাস নয়, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা অক্টোবর মাসেই। কিছুদিন আগেই উপাচার্যদের সঙ্গে ভার্চুয়ালি বৈঠকে এমনটাই জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। যদিও এই বিষয়ে রাজ্যের তরফে নতুন করে কোনো অ্যাডভাইজারি দেওয়া হবে না বলেও উপাচার্যদের জানানো হয়েছিল। অক্টোবর মাসে রাজ্যের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর এর ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র ছাত্রীদের পরীক্ষা নেবে রাজ্য এই বিষয়টা নিয়ে ইতিমধ্যেই গত সপ্তাহে চিঠি দিয়েছে রাজ্যের উচ্চ শিক্ষা দপ্তর। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় অবশ্য জানিয়েছেন আবারো চিঠি দেওয়া হবে রাজ্যের তরফে। সুপ্রিম কোর্টের রায় অনুযায়ী ইউজিসি সঙ্গে আলোচনা করে নিতে হবে রাজ্যকে পরীক্ষার সময়সূচি পরিবর্তন করতে হলে। কারণ ইউজিসির গাইডলাইন অনুযায়ী সেপ্টেম্বর মাসেই পরীক্ষা নেওয়ার কথা বলা হয়েছিল।

সেক্ষেত্রে ইউজিসি অক্টোবর মাসে পরীক্ষা নেওয়ার ব্যাপারে রাজ্যের সঙ্গে সহমত পোষন করলে তবেই কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কবে কোন পরীক্ষা নেবে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র ছাত্রীদের সেই বিষয় নির্ঘণ্ট ও প্রকাশ করবে। বুধবার কলেজ অধ্যক্ষের সঙ্গে ভার্চুয়ালি বৈঠকে এমনটাই জানিয়েছেন উপাচার্য সোনালী চক্রবর্তী বন্দ্যোপাধ্যায়। অধ্যক্ষ তার সঙ্গে বৈঠকে উপাচার্য জানিয়েছেন ইতিমধ্যেই রাজ্যের তরফের চিঠি গেছে ইউজিসির কাছে। ইউজিসি থেকে রাজ্যে উচ্চশিক্ষা দপ্তর ও অনুমতিপেলেই অক্টোবর মাসে পরীক্ষা নেওয়ার ব্যাপারে চূড়ান্ত নির্ঘন্ট ঘোষণা করে দেবে। বুধবারের বৈঠক অবশ্য একাধিক অধ্যক্ষ ছাত্র-ছাত্রীদের উপস্থিতি কিভাবে নথিবদ্ধ করবে সেই নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। শুধু তাই নয় অনলাইনে কিভাবে খাতা জমা দেওয়া সম্ভব এবং অনলাইনে খাতা জমা দিলেও তা কিভাবে তাড়াতাড়ি দেখা সম্ভব সে নিয়েও অধ্যক্ষরা এদিন বলেন উপাচার্য কে। এ প্রসঙ্গে নিউ আলিপুর কলেজের অধ্যক্ষ জয়দীপ সারাঙ্গী বলেন " বুধবার উপাচার্যের সঙ্গে আমাদের খুব ভালো আলোচনা হয়েছে। উনি আমাদের জানিয়েছেন পরীক্ষা নিয়ে প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে। ইউজিসি কে চিঠি পাঠিয়েছে রাজ্য। ইউজিসি থেকে অনুমতি এলেই রাজ্যের তরফে তা জানানোর পরপরই পরীক্ষার সূচি ঘোষণা করবে বিশ্ববিদ্যালয়।"

গত সপ্তাহেই কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য সোনালী চক্রবর্তী বন্দ্যোপাধ্যায় অবশ্য ঘোষণা করেছিলেন স্নাতক ও স্নাতকোত্তর এর ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা হবে ১ থেকে ১৮ই অক্টোবর পর্যন্ত। ফল প্রকাশ করা হবে ৩১ অক্টোবরের মধ্যেই। তবে বুধবারের অধ্যক্ষদের সঙ্গে বৈঠকে আপাতত ইউজিসির  থেকে উত্তর দিকে তাকিয়ে রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় সেই মনোভাব স্পষ্ট করেছেন এদিন অধ্যক্ষদের কাছে। আর তাই এখন রাজ্যের দেওয়া চিঠির প্রেক্ষিতে ইউজিসি কি উত্তর দেয় সে দিকেই তাকিয়ে কলকাতা,যাদবপুরের এর মত বিশ্ববিদ্যালয়গুলি।

 সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: September 9, 2020, 10:03 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर