হঠাৎ অসংলগ্ন কথাবার্তা! আবার হাসপাতালে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের স্ত্রী মীরা দেবী

ফের হাসপাতালে মীরা ভট্টাচার্য।

দ্ধদেব ভট্টাচার্যের অসুস্থতায় ভেঙে পড়েছেন মীরাদেবী, এমনটাই আপত ভাবে মনে করা হচ্ছে।

  • Share this:

    #কলকাতা: কোভিড জয় করে বাড়ি ফিরে এসেছিলেন তিনি। কিন্তু ২৪ ঘণ্টাও কাটল না। ফের হাসপাতালে ভর্তি করতে হলো মীরা ভট্টাচার্যকে।  সূত্রের খবর, প্যানিক অ্যাটাক হয়েছে তাঁর। অসংলগ্ন কথাবার্তা বলছেন তিনি। কখনও কখনও কথা জড়িয়ে যাচ্ছে। পরিস্থিতি বিবেচনা করে একটুও দেরি না করে তাঁকে আজ সন্ধ্যেতেই  উডল্যান্ডস হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।  কন্যা সুচেতনাও আসেন হাসপাতালে। বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের অসুস্থতায় ভেঙে পড়েছেন মীরাদেবী, এমনটাই আপত ভাবে মনে করা হচ্ছে। যদিও চিকিৎসকরা এখনও কোনও বার্তা দেননি।

    মীরা ভট্টাচার্যের কোভিড ধরা পড়েছিল গত মঙ্গলবার। দ্রুততার সঙ্গে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে। তিনি চিকিৎসায় খুব ভালো সাড়া দিয়ে সুস্থও হয়ে ওঠেন। আজ দুপুরে মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায় তাঁকে ফোন করে তাঁর ও বুদ্ধবাবুর স্বাস্থ্যের খোঁজও নেন। কিন্তু বিধি বাম। হঠাৎই অসুস্থ হয়ে পড়েন মীরাদেবী। তিনি বাড়ি ফিরতেই দ্রুত স্বাস্থ্যের অবনতি হতে থাকে প্রাক্তন মুখ্যন্ত্রীর।  সেই ধাক্কাই সম্ভবত তিনি সামলাতে পারেননি।

    বুদ্ধদেববাবুকে অতীতে বারংবার অনুরোধ করা হলেও তিনি হাসপাতাল যেতে রাজি হননি। কিন্তু গতকাল অর্থাৎ শুক্রবার রাত থেকেই তাঁর শারীরিক সমস্য়া বাড়ে। এদিন সকালে তাঁর অক্সিজেন স্যাচুরেশন ৮০-র নীচে নেমে যায়। চেতনাও হারিয়ে ফেলেন তিনি। আত্মীয় পরিজনরা তাঁকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যায়।‌ হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসার জন্য ৬ সদস্যের মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে। বাইপ্যাপ সাপোর্টে আছেন তিনি। হাসপাতলে আসার পর সিটি স্ক্যান করা হয়েছে তাঁর। ফুসফুসে কিছু পরিবর্তন লক্ষ্য করা গিয়েছে। হাসপাতাল সূত্রে খবর, যে টেস্টগুলো করা হয়েছে সেগুলি নিয়ে রেডিওলজিস্ট এর সাথে আলোচনা করা হবে। রক্তের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে পরীক্ষার জন্য। সন্ধ্যায় তার রিপোর্টে এলে তাঁর স্বাস্থ্যের অবস্থাটা আরও পরিস্কার হবে। আপাতত তাঁকে অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে। অ্যান্টিবায়োটিক স্টেরয়েড চলছে। চেতনা রয়েছে, সব মিলিয়ে এখন স্থিতিশীল রয়েছেন তিনি। কিন্তু সুস্থতা ধরে রাখতে পারলেন না মীরাদেবী।

    Published by:Arka Deb
    First published: