কলা বিভাগ থেকে চাকরি প্রার্থীর সংখ্যা কমছে,চাকরি বাড়ছে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের, সমীক্ষায় প্রকাশ

কলা বিভাগ থেকে চাকরি প্রার্থীর সংখ্যা কমছে,চাকরি বাড়ছে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের, সমীক্ষায় প্রকাশ

কলা,বিজ্ঞান এবং বাণিজ্য বিভাগকে ছাপিয়ে চাকরি করার যোগ্যতা এগিয়ে রয়েছেন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রার্থীরাই

  • Share this:

Somraj Banerjee

#কলকাতা: কলা বিভাগ থেকে চাকরি প্রার্থীর সংখ্যা কমছে,চাকরি বাড়ছে ইঞ্জিনিয়ারিং-এর প্রার্থীদের এ.আই.সি.টি.ই  সমীক্ষায় সামনে এল এই তথ্য ৷ কলা,বিজ্ঞান এবং বাণিজ্য বিভাগকে ছাপিয়ে চাকরি করার যোগ্যতা এগিয়ে রয়েছেন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রার্থীরাই। এ.আই. সি.টি.ই বা অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল ফর টেকনিক্যাল এডুকেশন সারা দেশজুড়ে এই সমীক্ষা করে। তাদের সম্প্রতি সমীক্ষায় এরকমই রিপোর্ট উঠে এসেছে। মূলত কোন বিভাগ থেকে কত শতাংশ পড়ুয়ারা চাকরি পাচ্ছেন তা নিয়ে সমীক্ষা করে এ আই সি টি ই। ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ক্ষেত্রে বছরের পর বছর চাকরি প্রার্থীদের সংখ্যা বাড়ছে।তুলনামূলকভাবে কলা ও বাণিজ্য বিভাগে চাকরি প্রার্থীর সংখ্যা কমছে।

রিপোর্ট বলছে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে চাকরিযোগ্য প্রার্থীর সংখ্যা ৫৭ শতাংশ। অন্যদিকে কলা বিভাগে এই সংখ্যাটা মাত্র ২৯%। সেই তুলনায় ভাল ফল বাণিজ্যের। বাণিজ্যে এই মুহূর্তে চাকরি যোগ্য প্রার্থী রয়েছেন ৪৭%। সমীক্ষায় বলা হয়েছে, গত দু-তিন বছর ধরে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে চাকরিপ্রার্থীর সংখ্যা অল্প-অল্প করে বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের তুলনায় ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে এক-লাফে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের চাকরিপ্রার্থীর সংখ্যা ৬ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। উল্টো দিকে বি.এ পাস করা চাকরি প্রার্থীদের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে। গত শিক্ষাবর্ষে চাকরি প্রার্থীর সংখ্যা ৩৮ শতাংশের কাছাকাছি গেলেও এবার তা এক ধাপে ১২ শতাংশ কমে গেছে। বিষয়টি উদ্বেগজনক বলেই মনে করছে শিক্ষা মহল। উল্লেখযোগ্যভাবে সায়েন্সে চাকরি প্রার্থীর সংখ্যা ১৩% গতবারের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে।

রিপোর্ট বলছে, শুধুমাত্র আজ আর্টস, সায়েন্স,ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে নয় এম.বি.এ,বি.বি.এর মতো চাকরি মূলক কোর্স গুলিতেও একই অবস্থা।এম.বি.এ তে গতবার যেখানে ৩৯ শতাংশ চাকরি যোগ্য প্রার্থী ছিল এবার তা কমে দাঁড়িয়েছে ৩৬ শতাংশের কাছাকাছি। তবে উল্লেখযোগ্যভাবে কম্পিউটার সাইন্সে চাকরির যোগ্য প্রার্থীর সংখ্যা ভালোভাবেই বেড়েছে। গত দু'বছরে নিরিখে ১২% চাকরিপ্রার্থীর সংখ্যা বেড়েছে কম্পিউটার সাইন্সে রিপোর্টে এমনই উল্লেখ করা হয়েছে । দৌড়ে অবশ্য পিছিয়ে রয়েছে পলিটেকনিক পড়ুয়াদের মধ্য থেকে চাকরি প্রার্থীর সংখ্যা। গতবারের তুলনায় ৪ শতাংশ কমে গিয়ে এবারে চাকরিযোগ্য প্রার্থীর হার দাড়িয়েছে ১৪ শতাংশের কাছাকাছি।

ইঞ্জিনিয়ারিং ক্ষেত্রে চাকরির যোগ্য প্রার্থীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে অনেকেই মনে করছেন যেহেতু ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ে পড়ুয়াদের কাছে বিভিন্ন দিকে চাকরির সুযোগ থাকছে ৷ তার জন্যই চাকরিপ্রার্থীর সংখ্যা বাড়ছে । অন্যদিকে তুলনামূলকভাবে কলা বিভাগ থেকে পড়ে চাকরি পাওয়ার জায়গা তুলনামূলক কম তার জেরেই কলা বিভাগে চাকরি প্রার্থীর সংখ্যা কমছে। ব্যাঙ্কিং বা অন্যান্য প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় কলা বিভাগের পড়ুয়াদের তুলনায় ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়ারা এগিয়ে রয়েছে  ৷ সমীক্ষা তাই বলছে, তার জেরেই কলা বিভাগের পড়ুয়ারা পিছিয়ে পড়ছে মত শিক্ষাবিদদের একাংশের। ইতিমধ্যেই এই রিপোর্ট পেয়েছে এ রাজ্যের উচ্চ শিক্ষা দপ্তর। সূত্রের খবর, এই রিপোর্ট নিয়ে খুব শীঘ্রই রাজ্যের কয়েকজন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এবং জয়েন্ট বোর্ডের আধিকারিকদের নিয়ে আলোচনায় বসবেন।

First published: 09:13:29 PM Dec 11, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर