• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • ENFORCEMENT BRANCH ARRESTED 3 PEOPLE FOR SELLING SOYBEAN AM

আইসিডিএস প্রকল্পে বরাদ্দ সয়াবিন বিক্রি হচ্ছে মুদি দোকানে, তিনজনকে গ্রেফতার করল এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ

রেশনের চাল, ডাল, আটার কালোবাজারির পর এবার আইসিডিএস প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ সয়াবিনেরও কালোবাজারির অভিযোগ।

রেশনের চাল, ডাল, আটার কালোবাজারির পর এবার আইসিডিএস প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ সয়াবিনেরও কালোবাজারির অভিযোগ।

  • Share this:

#কলকাতা: রেশনের চাল, ডাল, আটার কালোবাজারির পর এবার আইসিডিএস প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ সয়াবিনেরও কালোবাজারির অভিযোগ। আইসিডিএস প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ ২৬০ কেজি সয়াবিন-সহ তিন জনকে গ্রেফতার করল কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ। বুধবার রাতে রিজেন্ট পার্ক থানা এলাকায় অভিযান চালায় কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ। বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে ২০ বস্তা সয়াবিন। এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ সূত্রে খবর, ধৃতদের নাম সেখান থেকেই শেখর ভকত, সৌরভ ভকত এবং বিজয় ভকত নামের তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। ওই এলাকায় এদের একটি মুদি দোকান রয়েছে। সেই দোকান থেকেই আইসিডিএস প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ সয়াবিন খুচরো দামে বিক্রি করা হচ্ছিল।

সেই খবর পেয়েই রিজেন্ট পার্ক থানা এবং কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ যৌথ অভিযান চালায়। প্রথমে যে মুদি দোকানে এই সয়াবিন বিক্রি করা হচ্ছিল সেখানে হানা দেয় পুলিশ। তারপর লাগোয়া একটি আবাসন থেকে উদ্ধার হয় মজুদ করা সয়াবিনের বস্তা। পুলিশের হাত থেকে বাঁচতে ধৃতরা নিজেদের বাড়ির বদলে অন্য আবাসনে লুকিয়ে সয়াবিনের বস্তা মজুত করেছিল।

এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ সূত্রের খবর, যে ১৩ টি বস্তা সোয়াবিন উদ্ধার হয়েছে তার প্রত্যেকটির মধ্যে কুড়িটি করে প্যাকেট ছিল। প্রত্যেকটি প্যাকেট এক কেজি ওজনের। প্রত্যেকটি প্যাকেটের ওপরেই স্পষ্টভাবে লেখা ছিল সেগুলি খুচরা বিক্রির জন্য নয়, শুধুমাত্র আইসিডিএস প্রকল্পের জন্যই তৈরি করা। বর্ধমানের একটি সংস্থা আইসিডিএস প্রকল্পের জন্য সয়াবিন উৎপাদন করে। সেই সয়াবিন কি করে রিজেন্ট পার্কে ধৃত তিন ব্যবসায়ীর কাছে এল তা নিয়েই উঠছে প্রশ্ন। বর্ধমানের যে সংস্থা সয়াবিন উৎপাদন করে তারাই কেউ এই চক্রের সঙ্গে যুক্ত ৷

Published by:Akash Misra
First published: