Home /News /kolkata /
Bhabanipur By Poll Campaign | Dilip Ghosh: পিস্তল উঁচিয়ে দিলীপ ঘোষের নিরাপত্তারক্ষীরা! রিপোর্ট তলব কমিশনের, যা নির্দেশ এল...

Bhabanipur By Poll Campaign | Dilip Ghosh: পিস্তল উঁচিয়ে দিলীপ ঘোষের নিরাপত্তারক্ষীরা! রিপোর্ট তলব কমিশনের, যা নির্দেশ এল...

এই সেই দৃশ্য

এই সেই দৃশ্য

Bhabanipur By Poll Campaign | Dilip Ghosh: দিলীপ ঘোষের নিরাপত্তারক্ষীদের বিরুদ্ধেও পাল্টা পিস্তল তাক করার অভিযোগ উঠল। আর এই ঘটনার পরই নড়েচড়ে বসল নির্বাচন কমিশন (Election Commission)।

  • Last Updated :
  • Share this:
#কলকাতা: শেষবেলায় জমে গেল ভবানীপুর উপনির্বাচনের (Bhabanipur By Poll) প্রচার। তবে, সোমবার যদুবাবুর বাজারে প্রচারে অংশ নেওয়ার পর দিলীপ ঘোষকে ঘিরে যা ঘটল, তা ছাপিয়ে গেল বাকি ঘটনা। রীতিমতো রণক্ষেত্রের চেহারা নিল যদুবাবুর বাজার চত্বর। এদিন ভবানীপুরে প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়লেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। তাঁকে ঘিরে যেমন তৃণমূল কর্মী-সমর্থকদের ধাক্কাধাক্কির অভিযোগ উঠল, তেমনই দিলীপ ঘোষের নিরাপত্তারক্ষীদের বিরুদ্ধেও পাল্টা পিস্তল তাক করার অভিযোগ উঠল। আর এই ঘটনার পরই নড়েচড়ে বসল নির্বাচন কমিশন (Election Commission)। জেলা নির্বাচনী আধিকারিকদের কাছে বিকেল চারটের মধ্যে রিপোর্ট তলব করল কমিশন।সোমবার সকালে দিলীপ ঘোষ যখন ভবানীপুর কেন্দ্রের অন্তর্গত যদুবাবুর বাজারে BJP-র লিফলেট বিলি করছিলেন, তখনই তাঁর সামনে চলে আসেন তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা। বিজেপির সদ্য প্রাক্তন রাজ্য সভাপতিকে এরপরই শুরু হয় 'জয় বাংলা' স্লোগান। পাল্টা 'জয় শ্রীরাম' স্লোগান দিতে থাকেন বিজেপি নেতা-কর্মীরা। স্লোগানে গলা মেলান দিলীপ ঘোষও। কিন্তু ততক্ষণে শুরু হয়ে গিয়েছে ধ্বস্তাধস্তি। আর সেই সময়ই দিলীপ ঘোষের নিরাপত্তারক্ষীদের বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশ্যে পিস্তল তাক করতে দেখা যায়। সেই ঘটনাই তোলপাড় ফেলেছে ভবানীপুর উপনির্বাচনকে ঘিরে।
এই ঘটনার পরপরই ট্যুইট করা হয় তৃণমূলের অফিসিয়াল ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে। দিলীপ ঘোষের নিরাপত্তারক্ষীদের পিস্তল তাক করার ভিডিও তুলে দিয়ে তৃণমূলের তরফে লেখা হয়, 'বঙ্গ বিজেপির নতুন কাণ্ড। প্রকাশ্য দিবালোকে কী করে এভাবে বন্দুক তাক করা যায়? নেতাদের বিরুদ্ধে কি মানুষের প্রতিবাদ করার অধিকার নেই? মানবাধিকার লঙ্ঘনের এই দৃশ্য লজ্জাজনক! ভবানীপুরের মানুষের নিরাপত্তার জন্য এটা ভয়ংকর!' অপরদিকে, বঙ্গ বিজেপির তরফে অবশ্য ট্যুইট করে লেখা হয়েছে, 'ভবানীপুরের যদুবাজারে বিজেপির নির্বাচনী পথসভায় তৃণমূলী গুন্ডাবাহিনীর দ্বারা ফের রক্ত ঝড়লো বিজেপি কর্মকর্তাদের! নন্দীগ্রামের পর ভবানীপুরের মানুষও ৩০শে সেপ্টেম্বর ভোটবাক্সেই এই অন্যায়ের জবাব দেবে।' আরও পড়ুন: ভবানীপুরে দিলীপ ঘোষের সামনে হঠাৎই তৃণমূল! হাসিমুখ, ধাক্কাধাক্কি, রক্ত! যা হল... আর পরিস্থিতি আন্দাজ করেই নড়েচড়ে বসে নির্বাচন কমিশন। সূত্রের খবর, মূলত দিলীপ ঘোষের নিরাপত্তারক্ষীদের পিস্তল দেখানোর ঘটনাকে বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছে কমিশন। বিকেল চারটের মধ্যে রিপোর্ট চাওয়ার পাশাপাশি অবিলম্বে এলাকার আইন-শৃঙ্খলা শান্ত করার জন্য রিটার্নিং অফিসারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কমিশনের তরফে। গোটা ঘটনার ভিডিও ফুটেজও চেয়ে পাঠানো হয়েছে। এদিনের ঘটনাতেও তৃণমূলকে কটাক্ষ করে দিলীপ ঘোষ অবশ্য বলেছেন, 'তৃণমূল মানুষের কাছে যেতে পারছে না। তাই বিজেপির পিছনে পড়ে আছে। আমাকে বারবার বাধা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু আমি যা করার, তা করে গেছি।' দিলীপকে পাল্টা কটাক্ষ করে রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, 'দিলীপ ঘোষকে তো তাঁর দলই সরিয়ে দিয়েছে। মানুষই তাঁকে চান না। দিলীপ ঘোষ যে কথাবার্তা বলেন, সেটা যে মানুষ পছন্দ করেন না, সেটাই বারবার প্রমাণিত হয়ে যাচ্ছে।'
Published by:Suman Biswas
First published: