মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ 'দুর্ভাগ্যজনক', মমতাকে চিঠি দিয়ে জবাব দিল কমিশন

মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ 'দুর্ভাগ্যজনক', মমতাকে চিঠি দিয়ে জবাব দিল কমিশন

মমতার অভিযোগের জবাব দিল কমিশন৷

নন্দীগ্রামে ঘটনার দিন তাঁর নিরাপত্তা ব্যবস্থায় কী কী ঘাটতি ছিল, তার বিস্তারিত ব্যাখ্যা মুখ্যমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে দিয়েছেন সুদীপ জৈন৷

  • Share this:

    #কলকাতা: নিরাপত্তা অধিকর্তাকে বদল করে দেওয়া নিয়ে বাঁকুড়ার সভা থেকে সরব হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ একই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী প্রশ্ন তুলেছিলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের নির্দেশেই কমিশন চলছে কি না? সংবাদমাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্য শুনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি লিখে এই জোড়া অভিযোগেরই জবাব দিল কমিশনের৷

    মুখ্যমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে সহকারী নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন বিস্তারিত ভাবে জানিয়েছেন, গত ১০ মার্চ নন্দীগ্রামে আঘাত লাগার ঘটনায় তাঁর নিরাপত্তা ব্যবস্থায় বড়সড় গাফিলতি থাকার অভিযোগেই সরানো হয়েছে রাজ্যের নিরাপত্তা অধিকর্তা বিবেক সহায়কে৷ একই ভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে পূর্ব মেদিনীপুরের এসপি প্রবীণ প্রকাশ এবং জেলাশাসক বিভু গয়ালের বিরুদ্ধেও৷ এবং তা করা হয়েছে রাজ্যের মুখ্যসচিব এবং বিশেষ পর্যবেক্ষকদের দেওয়া রিপোর্টের ভিত্তিতেই৷ কারণ নিজের রিপোর্টেই রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় স্বীকার করে নিয়েছিলেন, যে মুখ্যমন্ত্রীর মতো জেড প্লাস স্তরের ভিভিআইপি-র নিরাপত্তা আয়োজনে আরও উন্নত সমন্বয়ের প্রয়োজন৷

    নন্দীগ্রামে ঘটনার দিন তাঁর নিরাপত্তা ব্যবস্থায় কী কী ঘাটতি ছিল, তার বিস্তারিত ব্যাখ্যা মুখ্যমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে দিয়েছেন সুদীপ জৈন৷ রাজ্যে নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা দুই বিশেষ পর্যবেক্ষকও যে বিবেক সহায়ের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপের সুপারিশ করেছিলেন, চিঠিতে তাও জানিয়েছেন সুদীপ জৈন৷ একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, রাজ্যের মুখ্যসচিব এবং ডিজিপি-ই বিবেক সহায়ের জায়গায় জ্ঞানবন্ত সিং-কে নিরাপত্তা অধিকর্তার দায়িত্ব দিয়েছেন৷

    চিঠিতে সহকারী নির্বাচন কমিশনার দাবি করেছেন, নির্বাচনী ব্যবস্থায় ভোটারদের পর রাজনৈতিক দলগুলিই সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ অংশ৷ একই সঙ্গে কমিশনের তরফে চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রীকে বলা হয়েছে, এখনও পর্যন্ত তৃণমূলের তরফে চারবার তাদের প্রতিনিধি দল কমিশনে দরবার করেছে৷ প্রত্যেকবার যথাযথ ভাবে তাঁদের বক্তব্য শোনা হয়েছে৷ কলকাতা এবং দিল্লিতে এই সাক্ষাতের দিনক্ষণও উল্লেখ করা হয়েছে কমিশনের চিঠিতে৷ কমিশন কোনও নির্দিষ্ট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বজায় রাখছে বলে যে অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রী তুলেছেন, তা যে কমিশনের পছন্দ নয় এবং তা কমিশনের মর্যাদাহানি করছে, মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে তাও লিখেছেন সুদীপ জৈন৷ সবশেষে সুদীপ জৈন লিখেছেন, এর পরেও মুখ্যমন্ত্রী এমন অভিযোগ তুললে তা দুর্ভাগ্যজনক বলেই মনে করবে কমিশন৷ এবং একমাত বলতে পারবেন, কেন তিনি এমন অভিযোগ তুলছেন৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: