‘বৈঠক বাতিলের পরও রাজ্যপালের বিশ্ববিদ্যালয়ে যাওয়ার দরকার কী ছিল? ওনার উদ্দেশ্য স্পষ্ট’, শিক্ষামন্ত্রীর পাল্টা তোপ

‘বৈঠক বাতিলের পরও রাজ্যপালের বিশ্ববিদ্যালয়ে যাওয়ার দরকার কী ছিল? ওনার উদ্দেশ্য স্পষ্ট’, শিক্ষামন্ত্রীর পাল্টা তোপ

রাজ্যপালের বক্তব্যের পাল্টা প্রতিক্রিয়া শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ।

  • Share this:

#কলকাতা: সাংবিধানিক পদে থেকে অসাংবিধানিক কাজ করেছেন রাজ্যপাল। রাজ্যের শিক্ষাব্যবস্থা ঠিক পথেই চলছে। রাজ্যপালের বক্তব্যের পাল্টা প্রতিক্রিয়া শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের । বুধবার কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে বেনজির ঘটনা। বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজ্যপাল, গরহাজির খোদ উপাচার্য। গরহাজির অন্য আধিকারিকরাও। তাতে প্রবল ক্ষুব্ধ রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় ৷ বলেন, ‘শিক্ষাক্ষেত্রে নীতিপঙ্গুত্ব চলছে ৷ এই পরিস্থিতি বদলের চেষ্টা করছি ৷ সবরকম চেষ্টাই ব্যর্থ হয়ে যাচ্ছে ৷ সেই ব্যর্থতার জন্যই দায়ী রাজ্য ৷’

এরপরই রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের নীতিপঙ্গুত্বের পাল্টা জবাবে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘এখানে জাতীয় শিক্ষানীতি চালুর চেষ্টা করছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় ৷ রাজ্যপাল একটি সাংবিধানিক পদ, কিন্তু  অসাংবিধানিক কাজ করছেন আমাদের রাজ্যপাল ৷’ এখানেই শেষ নয় রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের উদ্দেশ্য নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ৷ তিনি বলেন, ‘রাজ্যপালের গতিবিধি হাস্যকর ৷ বৈঠক বাতিলের কথা জানতেন রাজ্যপাল ৷ বৈঠক বাতিলের পরও বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজ্যপালের যাওয়ার কী দরকার ছিল? এতেই রাজ্যপালের উদ্দেশ্য স্পষ্ট ৷’

বুধবার কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজস্ট্রিট ক্যাম্পাসে ছিল সেনেটের বৈঠক। যা মঙ্গলবার স্থগিত করে দেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। রাজ্যপাল অবশ্য এদিন ক্যাম্পাসে যান। সেখানেই উগড়ে দেন ক্ষোভ। ফের নিশানা করেন রাজ্য সরকারকে। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে শিক্ষাক্ষেত্রে নীতি পঙ্গুত্বের অভিযোগে সরব জগদীপ ধনখড়। এখানেই না থেমে সুর আরও চড়ান রাজ্যপাল। বলেন, ‘উন্নতির জন্য আমি যাই বলি তাই একটা জায়গায় চলে যায়। একটা কৃষ্ণগহ্বরে। যেটা সরকারের কাছে রয়েছে। হাতজোড় করে আবেদন, বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতিরকরণ করবেন না। শিক্ষা নিয়ে খেলবেন না ৷’

বাম আমলে বার বার অভিযোগ উঠেছে শিক্ষায় অনিলায়নের। মোদি সরকারের বিরুদ্ধে বার বার শিক্ষায় গৈরিকিকরণের অভিযোগে সরব হয় তৃণমূল-সহ বিজেপি বিরোধীরা। এবার তৃণমূলের রাজত্বে শিক্ষায় নীতি পঙ্গুত্ব এবং রাজনীতিকরণের অভিযোগে সরব হলেন আচার্য-রাজ্যপাল। যা রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাতকে আরও তুঙ্গে নিয়ে গেল।

First published: 08:12:44 PM Dec 04, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर