• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • ট্রেন পিছু যাত্রী দেড় জন! আর্থিক ক্ষতি এড়াতে কমানো হচ্ছে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো  

ট্রেন পিছু যাত্রী দেড় জন! আর্থিক ক্ষতি এড়াতে কমানো হচ্ছে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো  

ইস্ট ওয়েযাত্রীসংখ্যা কম, ক্ষতির আশঙ্কায় ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রো।স্ট মেট্রো।

ইস্ট ওয়েযাত্রীসংখ্যা কম, ক্ষতির আশঙ্কায় ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রো।স্ট মেট্রো।

মেট্রো সূত্রে খবর, আগামী সোমবার ২১ তারিখ থেকে সল্টলেক মেট্রো চলবে ৩০ মিনিট অন্তর। এখন চালানো হচ্ছে ২০ মিনিট অন্তর।

  • Share this:

#কলকাতা: হাজারো চেষ্টা করেও মিলল না কোনও সুরাহা। তাই ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রোর সংখ্যা অবশেষে কমাতে চলেছে মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ। সোমবার ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোয় যাত্রী হয়েছিল ৮৩ জন। মঙ্গলবার যাত্রী হয়েছিল ৯৯ জন। বুধবার যাত্রী বেড়ে হয় ২৮৩ জন। সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা অবধি ১২ ঘন্টা মেট্রো চালিয়ে লাভ হচ্ছে না। সারা দিনে প্রতি ট্রেন পিছু যাত্রী হয়েছিল গড়ে দেড় জন করে। তাই কমিয়ে ফেলা হচ্ছে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর সংখ্যা।

মেট্রো সূত্রে খবর, আগামী সোমবার ২১ তারিখ থেকে সল্টলেক মেট্রো চলবে ৩০ মিনিট অন্তর। এখন চালানো হচ্ছে ২০ মিনিট অন্তর। প্রতি ঘন্টায় এখন মেট্রো চলছে মোট ৬টি। তিনটি মেট্রো চলছে আপে ও তিনটি মেট্রো চলছে ডাউনে। সারাদিনে মেট্রো চলছে ৩৬ জোড়া বা ৭২টি। আগামী ২১ সেপ্টেম্বর থেকে ৩০ মিনিট অন্তর মেট্রো চলায় প্রতি ঘন্টায় আপ লাইনে ২টি ও ডাউন লাইনে ২টি মেট্রো চলবে। ফলে ১২ ঘন্টায় মেট্রো চলবে মোট ৪৮টি।

আশা করা হচ্ছে, এর ফলে খরচের বহর কমবে কিছুটা। তবে এই ৪৮ মেট্রো চালিয়েও আদৌ লাভ হবে কিনা তা নিয়ে সংশয় আছে।  আনলক অধ্যায়ে সোমবার থেকে কলকাতায় চালু হয়ে গিয়েছে মেট্রো পরিষেবা। দমদম থেকে কবি সুভাষের পাশাপাশি মেট্রো চলছে সেক্টর ফাইভ থেকে সল্টলেক স্টেডিয়াম অবধিও। যদিও তিন দিনে যাত্রী সংখ্যা ৫০০ অতিক্রম করেনি ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোয়।

যাত্রী না হওয়ায় মেট্রো চালানো আদৌ লাভজনক কিনা তা নিয়ে উঠছে একাধিক প্রশ্ন। তৃতীয় সপ্তাহ থেকে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো স্টেশন মাত্র ছয়। যে যে দুরত্বে আর যে এলাকায় স্টেশন তা ব্যবহারকারীর সংখ্যা অনেক কম। সল্টলেক এলাকায় যারা বাসিন্দা তারা মেট্রোর বদলে ব্যবহার করেন নিজেদের গাড়ি। যারা নিজেদের গাড়ি ব্যবহার করেন না, তারা অটো, টোটো, মোটর রিক্সা ব্যবহার করেন।

সল্টলেক এলাকায় সেক্টর ফাইভ থেকে মেট্রো রুট ধরে একাধিক রুটের বাস পাওয়া যায়। ফলে বাস মিলছে। যা অনেক ভাড়া কম। ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রোর অধিকাংশ যাত্রী তারা আই টি সেক্টরে কর্মরত। এখন আই টি সেক্টর ওর্য়াক ফ্রম হোম চলছে। ফলে যাত্রীদের যাতায়াতের সংখ্যা ভীষণ কম। করুণাময়ী থেকে সেন্ট্রাল পার্ক অবধি দুই স্টেশনের মধ্যে একাধিক সরকারি অফিস আছে। যদিও সেখানে যারা চাকরি করেন তারা শহরতলির। লোকাল ট্রেন চলছে না। ফলে তারা একেবারে বাসেই যাতায়াত করেন। ফুলবাগান মেট্রো স্টেশন চালু করার অনুমতি দিয়েছিল কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটি।

যদিও ১৬ সেপ্টেম্বর মধ্যে চালু না হলে ফের কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটির অনুমতি নিতে হবে। ফুলবাগান মেট্রো স্টেশন চালু হলে শিয়ালদহ লোকাল ট্রেনের যাত্রীরা এই মেট্রো ব্যবহার করতে পারবেন।মেট্রো মনে করছে আই টি সেক্টর চালু হোক। ফুলবাগান দূর্গা পুজোর আগে চালু করা হবে। তাতে এই প্রকল্প লাভবান হবে। রেল বোর্ডের প্রাক্তন কর্তা সুভাষ রঞ্জন ঠাকুর জানিয়েছেন, "এখন যতটা পথে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো চলছে তার দু'দিকে কোথাও নেই টার্মিনাল নেই। ফলে যাত্রীরা যাবেন কোথায়। তাই কেউ এই ৪ কিমি পথ ব্যবহার করছেন না।"st

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: