• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • সুকান্ত সেতুতে চলবে না বাস-ট্রাক

সুকান্ত সেতুতে চলবে না বাস-ট্রাক

পোস্তার বিপর্যয় থেকে শিক্ষা নিয়ে সাবধানী কলকাতা ৷ সুকান্ত সেতুর ভগ্নদশা প্রশাসনের নজরে আসার পর তৎক্ষণাৎ ব্যবস্থা নেওয়া হল ৷

পোস্তার বিপর্যয় থেকে শিক্ষা নিয়ে সাবধানী কলকাতা ৷ সুকান্ত সেতুর ভগ্নদশা প্রশাসনের নজরে আসার পর তৎক্ষণাৎ ব্যবস্থা নেওয়া হল ৷

পোস্তার বিপর্যয় থেকে শিক্ষা নিয়ে সাবধানী কলকাতা ৷ সুকান্ত সেতুর ভগ্নদশা প্রশাসনের নজরে আসার পর তৎক্ষণাৎ ব্যবস্থা নেওয়া হল ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: পোস্তার বিপর্যয় থেকে শিক্ষা নিয়ে সাবধানী কলকাতা ৷ সুকান্ত সেতুর ভগ্নদশা প্রশাসনের নজরে আসার পর তৎক্ষণাৎ ব্যবস্থা নেওয়া হল ৷ শনিবার রাত থেকে মেরামতি ও সংস্কারের কাজ শুরু হচ্ছে দক্ষিণ কলকাতা থেকে বাইপাসগামী এই সেতুতে ৷

    মেরামতি ও সংস্কারের জন্য যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হবে বলে জানা গিয়েছে ৷ শনিবার রাত থেকে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত চলবে এই মেরামতির কাজ ৷ সংস্কারের কাজ চলাকালীন ব্রিজে কোনও বাস, ট্রাক বা লরির মতো ভারী গাড়িকে উঠতে দেওয়া হবে না ৷ তবে ছোট গাড়ি চলাচলে কোনও বাধা নেই ৷

    পদে পদে বিপদ। মুহুর্তের সতর্কতায় সেখান থেকেই ঘটে যেতে পারে বড় কোনও বিপর্যয়। কয়েকদিন আগেই ইটিভি নিউজ বাংলার অর্ন্ততদন্তে সামনে আসে সুকান্ত সেতুর বিপদের ফাঁদ। খালিচোখেই ধরা পড়ে এই উড়ালপুলের বেশ কিছু জয়েন্ট ক্ষয়ে গিয়েছে ৷ এমনকী এক জায়গায় দুটি জয়েন্টের মাঝে তৈরি হয়েছে ফাঁক ৷ সেতুর জয়েন্টগুলি মূল কাঠামোকে ধরে রাখে। এই অংশটি ক্ষতিগ্রস্ত হলে সেতুর কাঠামো দূর্বল হয়ে পড়তে বাধ্য। শুধু প্রথম জয়েন্টই নয়, সেতুর অন্য অংশের ছবিটাও ছিল একইরকম ৷

    সেতুর ক্ষতিগ্রস্থ অবস্থা দেখে শিউরে ওঠেন রেলের বিশেষজ্ঞ সংস্থা রাইটস ৷ এছাড়াও সেতুর উপরের অংশে গার্ডার ঢিলে হয়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা ৷ শুধু এক জায়গায় নয় সেতুর বেশ অনেক জায়গাতেই ক্ষতিগ্রস্থ গার্ডার ৷ এর ফলে যাদবপুরের এই গুরুত্বপূর্ণ উড়ালপুলটি ভেঙে পড়ার আশঙ্কা তৈরি হয় ৷ তারা সতর্ক করেন অবিলম্বে মেরামত না হলে এখান থেকে বড় বিপর্যয় ঘটতে পারে।

    সেই ছবি সামনে আসতেই সতর্কতা মেনে শুরু হল সেতু মেরামতির কাজ ৷ এর আগে চলতি বছরের ৩১ মার্চ কলকাতার বুকেই এক নির্মীয়মান উড়ালপুল ভেঙে প্রাণ হারান ২৭ জন নিরীহ মানুষ ৷ আহতের সংখ্যা ছিল ৮৯ ৷

    First published: