ডিভিসির ছাড়া জলে প্লাবিত একাধিক জেলা, মনিটরিং কমিটি গড়ে ২৪ ঘণ্টা নজর মুখ্যমন্ত্রীর

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে মুর্শিদাবাদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে শুভেন্দু অধিকারী ও গোলাম রব্বানিকে। মালদহের দায়িত্বে জাভেদ খান।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Oct 02, 2019 11:20 AM IST
ডিভিসির ছাড়া জলে প্লাবিত একাধিক জেলা, মনিটরিং কমিটি গড়ে ২৪ ঘণ্টা নজর মুখ্যমন্ত্রীর
‘বিহারে বৃষ্টির জেরে জল বেড়েছে ফুলহারে’
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Oct 02, 2019 11:20 AM IST

#কলকাতা: ডিভিসির ছাড়া জলেই উদয়নারায়ণপুর, মালদহ ও মুর্শিদাবাদের কিছু এলাকা প্লাবিত। তবে আতঙ্কের কারণ নেই। রাজ্যে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হলে তা সামলাতে প্রস্তুত রয়েছে প্রশাসন। বিভিন্ন দফতরের মন্ত্রী ও সচিবদের সঙ্গে নবান্নে বৈঠকের পর বললেন মুখ্যমন্ত্রী। বিভিন্ন জেলার পরিস্থিতির ওপর নজরদারিতে একাধিক মন্ত্রীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

বিহার-ঝাড়খণ্ডে বৃষ্টির জেরে প্লাবিত দক্ষিণবঙ্গের বেশ কিছু এলাকা। প্লাবিত হাওড়ার উদয়নারায়ণপুর। ফরাক্কার ছাড়া জল ঢুকেছে মুর্শিদাবাদের বিভিন্ন এলাকায়। মালদহে গঙ্গা, ফুলহারে জল বাড়ছে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রশাসনের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে মঙ্গলবার একাধিক দফতরের মন্ত্রী ও সচিবদের কাছ থেকে রিপোর্ট নিলেন মুখ্যমন্ত্রী। ইতিমধ্যেই ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা থেকে উদ্ধারের কাজ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। ফের ডিভিসিকে টার্গেট করেছেন তিনি।

মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, বারবার কেন্দ্রকে চিঠি দিলেও ডিভিসির ব্যারাজগুলির সংস্কার হচ্ছে না। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে মুর্শিদাবাদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে শুভেন্দু অধিকারী ও গোলাম রব্বানিকে। মালদহের দায়িত্বে জাভেদ খান। হাওড়ায় রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় ও অরূপ রায়। হুগলিতে নজরদারি করবেন ফিরহাদ হাকিম। দুই বর্ধমানের দায়িত্বে মলয় ঘটক।

মুখ্যসচিবের নেতৃত্বে ২৪ ঘণ্টার মনিটরিং সেল তৈরি হয়েছে। জল নেমে গেলে ক্ষয়ক্ষতির পর্যালোচনা করবে কৃষি দফতর।

First published: 11:20:16 AM Oct 02, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर