corona virus btn
corona virus btn
Loading

লক ডাউনঃ বন্ধ স্কুল, মিড ডে মিলের আলু-চাল পেতে অভিভাবকদের হুড়োহুড়ি

লক ডাউনঃ বন্ধ স্কুল, মিড ডে মিলের আলু-চাল পেতে অভিভাবকদের হুড়োহুড়ি

চাল ও আলু পাওয়াতে খুশি অভিভাবকরা।

  • Share this:

#কলকাতাঃ লক ডাউনের আগে মিড ডে মিলের চাল ও আলু পাওয়া নিয়ে কার্যত হুড়োহুড়ি পড়ে গেল অভিভাবকদের মধ্যে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘোষণা মত মিড ডে মিল পাওয়া পড়ুয়াদের দু'কেজি করে আলু ও চাল দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় স্কুল শিক্ষা দফতর।। রাজ্যে লক ডাউন ঘটনার জেরে সোমবার দুপুর তিনটের মধ্যে আলু ও চাল দেওয়ার প্রক্রিয়া প্রত্যেকটি স্কুলকে শেষ করার নির্দেশ দেয় স্কুল শিক্ষা দফতর । সেইমতই সোমবারই সকাল থেকে প্রত্যেকটি স্কুল থেকেই আলু ও চাল পাওয়া নিয়ে কার্যত হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। সকাল থেকেই  কলকাতার বিভিন্ন প্রাথমিক ও উচ্চ প্রাথমিক স্কুলে অভিভাবকদের লম্বা লাইন দেখা যায়। যদিও কলকাতার বিভিন্ন স্কুলে নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যেই আলু ও চাল দেওয়া প্রক্রিয়া শেষ করা সম্ভব হয়েছে বলেই দাবি স্কুল শিক্ষা দফতরের। এদিকে, লকডাউনের আগেই মিড ডে মিলের চাল ও আলু পাওয়াতে খুশি অভিভাবকরা। মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগকে স্বাগতও জানালেন তাঁরা।

করোনা আতঙ্কের জেরে রাজ্যে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত স্কুলগুলি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। স্কুল বন্ধ হয়ে যাওয়ার জন্য মিড ডে মিল পাওয়া পড়ুয়ারা কী খাবেন তা নিয়ে চিন্তিত ছিলেন অনেক নিম্নবিত্ত পরিবারের বাবা-মায়েরা। পড়ুয়াদের স্কুল বন্ধের সঙ্গে সঙ্গেই গত সপ্তাহেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন মিড-ডে-মিল পাওয়া পড়ুয়াদের দু'কেজি করে চাল ও আলু দেওয়া হবে। সেই মতই শুক্রবার ও শনিবার দফায় দফায় স্কুল শিক্ষা দফতরের আধিকারিকদের নিয়ে বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বৈঠকে প্রাথমিকভাবে বিভিন্ন দিন ধরে ধরে আলু ও চাল দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও পরিস্থিতির পরিবর্তনে ফের সিদ্ধান্ত বদল করে স্কুল শিক্ষা দফতর।  সেই মতই শনিবার রাত এবং সোমবার দুপুর তিনটে পর্যন্ত কলকাতা ও শহরতলীর বিভিন্নন স্কুলে আলু ও চাল দেওয়ার প্রক্রিয়া শেষ করা হয়।

শনিবার রাত পর্যন্ত বিভিন্ন স্কুলে দেওয়া হলেও সোমবার সকাল থেকেও বিভিন্ন স্কুলে লম্বা লাইন দেখা যায় অভিভাবকদের। মিড ডে মিলের আলু ও চাল দেওয়া হলেও শিশুরা কোনভাবেই স্কুলে আসবে না বলেই আগেই নির্দেশিকা জারি করেছিল স্কুল শিক্ষা দফতর। তবে কিছু সংখ্যক স্কুল পর্যাপ্ত আলু পাইনি বলেও অভিযোগ জানিয়েছে দফতরে। তবে মিড ডে মিলের আলু ও চাল দেওয়াকে কেন্দ্র করে যাতে অতিরিক্ত জমায়েত না হয় তার নির্দেশিকা জারি করা হয়েছিল। বেশ কিছু আভিভাবকের দাবি, বেশ কিছু স্কুলে তেমন সতর্কতা নজরে আসেনি।

SOMRAJ BANDOPADHYAY

First published: March 23, 2020, 4:31 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर