corona virus btn
corona virus btn
Loading

'পড়ুয়াদের নিয়ে রাজনীতি করবেন না', ফের মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা রাজ্যপালের

'পড়ুয়াদের নিয়ে রাজনীতি করবেন না', ফের মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা রাজ্যপালের

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ ভাল করে পড়ুন। তোষণের রাজনীতি করছেন মুখ্যমন্ত্রী, ট্যুইট জগদীপ ধনখড়ের

  • Share this:

#কলকাতা: কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা নিয়ে শনিবার মুখ্যমন্ত্রীকে ফের নিশানা করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। পড়ুয়াদের নিয়ে তিনি কেন রাজনীতি করছেন ট্যুইট করে দিন সেই প্রশ্নও তোলেন রাজ্যপাল। এদিন তিনি ট্যুইট করে বলেন, "পরীক্ষা নিয়ে কেন রাজনীতি মুখ্যমন্ত্রীর। পরীক্ষা নিয়ে আসর গরম করছেন কেন? সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ ভাল করে পড়ুন। তোষণের রাজনীতি করছেন মুখ্যমন্ত্রী। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশই আইন। পড়ুয়াদের নিয়ে রাজনীতি করবেন না।"

শুক্রবারই সুপ্রিম কোর্ট কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা না নেওয়ার আবেদন খারিজ করে দিয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের রায় স্পষ্টভাবে জানিয়েছে ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে নিতে হবে। সে ক্ষেত্রে রাজ্যগুলি চাইলে ইউজিসির সঙ্গে কথা বলে সময়সীমা বাড়াতে পারে। সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের পরপরই তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসের মঞ্চ থেকেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শিক্ষামন্ত্রীকে নির্দেশ দেন পরীক্ষা কিভাবে নেওয়া সম্ভব তা নিয়ে তিনদিনের মধ্যেই উপাচার্যের সঙ্গে বৈঠক করে যেন নয়া পরিকল্পনা করা হয়। তবে সেপ্টেম্বর মাসে যে পরীক্ষা নেওয়া হবে না সে বিষয়েও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ইতিমধ্যেই স্পষ্ট করে দিয়েছেন শুক্রবারের টিএমসিপির মঞ্চ থেকেই। সূত্রের খবর সোমবার শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সঙ্গে বৈঠক করতে পারেন। অন্যদিকে ইতিমধ্যেই করোনা আবহে JEEMAIN ও নিট পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও সুপ্রিম কোর্ট এই মামলার প্রেক্ষিতে স্পষ্টভাবে রায় দিয়েছে এই দুই পরীক্ষা নেওয়া হবে। যদিও সুপ্রিমকোর্টে আবার এ রাজ্য সহ ৬ টি রাজ্যের তরফে সুপ্রিম কোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আবার মামলা করা হয়েছে সুপ্রিম কোর্টেই।

প্রসঙ্গত করোনা আবহে পরিস্থিতিতে এরাজ্যে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয় সেই বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীকে পরপর দুবার চিঠি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু তাই নয় পরীক্ষা নেওয়া নিয়ে ইউজিসি যে গাইডলাইন জারি করে সেই গাইডলাইন যাতে পুনর্বিবেচনা করা হয় সেই বিষয়ক প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে আবেদন করেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু তারপর সুপ্রিম কোর্টের রায়ের প্রেক্ষিতে পরীক্ষা নিয়ে এক প্রকার তৎপরতা শুরু হয়েছে। যদিও এ রাজ্যের প্রেসিডেন্সি, বিদ্যাসাগর, মৌলানা আবুল কালাম আজাদ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো বিশ্ববিদ্যালয়গুলি চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের ফলাফল প্রকাশ ইতিমধ্যে করে দিয়েছে। বেশিরভাগ বিভাগের ফলাফল প্রকাশ করে দিয়েছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ও।

যদিও সুপ্রিম কোর্টের রায়ের প্রেক্ষিতে ওই চার বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের কোন সমস্যা হবে না বলেই দাবি করছেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তবে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের দিকে তাকিয়েছিল রাজ্যের বাকি বিশ্ববিদ্যালয়গুলির চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের ফলাফল প্রকাশের জন্য। সেক্ষেত্রে এবার পরীক্ষার রূপরেখা কিভাবে তা নিয়েই আগামী সপ্তাহে রাজ্য চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারে বলেই সূত্রের খবর। কিন্তু তার আগেই শনিবারের রাজ্যপালের মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা করে ট্যুইট ফেরে রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাতের তরজা বাড়ালো বলেই মনে করছে রাজনৈতিক শিবিরের একাংশ।

SOMRAJ BANDOPADHYAY

Published by: Ananya Chakraborty
First published: August 29, 2020, 11:25 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर