Home /News /kolkata /
প্রাথমিক টেট নিয়ে বিরাট সিদ্ধান্ত রাজ্যের, মুখ্য সচিবের বৈঠকে তৈরি হয়ে গেল রূপরেখা

প্রাথমিক টেট নিয়ে বিরাট সিদ্ধান্ত রাজ্যের, মুখ্য সচিবের বৈঠকে তৈরি হয়ে গেল রূপরেখা

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ সূত্রে জানা গিয়েছে, মেটাল ডিটেক্টর ব্যবহারের পাশাপাশি এ বছর বায়োমেট্রিক অ্যাটেনডেন্সেরও ব্যবস্থা করা হচ্ছে পরীক্ষা কেন্দ্রগুলিতে।

  • Share this:

#কলকাতা: প্রাথমিকের টেট পরিচালনার ক্ষেত্রে নিরাপত্তার সঙ্গে কোনও আপোস করতে রাজি নয় রাজ্য। তার জন্যই এবার ডিএম, ও এসডিও অফিসে চালু থাকবে হেল্পলাইন। এই মর্মে জেলাগুলিকে বিশেষ নির্দেশ দিলেন রাজ্যের মুখ্য সচিব। ডিএম ও এসডিও অফিসে যে হেল্প লাইনগুলি থাকবে সেই হেল্পলাইনের নম্বর প্রচার করবে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।

এই মর্মে এদিনের বৈঠকে আলোচনা হয়েছে বলে নবান্ন সূত্রে খবর। যদিও এদিনের বৈঠকে রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতরের আধিকারিকরা উপস্থিত থাকলেও ছিলেন না স্কুলশিক্ষা সচিব মনীশ জৈন।

আরও পড়ুন: কেন্দ্রীয় নীতির বিরোধিতায় সব রাজ্যে রাজভবন অভিযানের ডাক সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার

এদিনের বৈঠকে বলা হয়, সাঁতরাগাছি ফ্লাইওভার দিয়ে সম্প্রতি যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। বিশেষত সাঁতরাগাছি ব্রিজের মেরামতি কাজ চলছে রাজ্যের পূর্ত দফতরের তত্ত্বাবধানে। প্রাথমিকের টেটের দিন যাতে সাঁতরাগাছি ব্রিজে ট্রাফিক ব্যবস্থা যাতে সচল থাকে সেই নিয়ে হাওড়া পুলিশের পুলিশ কমিশনারকে বিশেষভাবে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্য সচিব।নবান্ন সূত্রে এমনটাই খবর।

পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে যাতে কোনও রকম ট্রাফিক তৈরি না হয় হাওড়া ও কলকাতার মধ্যে, সে বিষয়েও নিশ্চিত করতে বলা হয় হাওড়া ও কলকাতা পুলিশের সিপিকে। মোট কত লক্ষ পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দেবেন এবং পরীক্ষা নিয়ে পর্ষদের কী ভাবনা সেই বিষয়ে এদিনের বৈঠকে বিস্তারিত উল্লেখ করা হয় জেলা প্রশাসন গুলিকে।

আরও পড়ুন: 'এমন উপাচার্য পাঠানো হচ্ছে যাঁর আদর্শ আরএসএস', বিশ্বভারতী নিয়ে বললেন ফিরহাদ

নবান্ন সূত্রে খবর এদিনের বৈঠকে জানানো হয় প্রায় ৭ লক্ষ পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে চলেছে। ১৪৫৩টি পরীক্ষা কেন্দ্রে পরীক্ষা নেওয়া হবে। ছাত্রছাত্রীরা প্রশ্নপত্রের একটি করে কপি নিয়ে যেতে পারবেন পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে। এই মর্মে বৈঠকে জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারদের সঙ্গে আলোচনা হয়।

পাশাপাশি পরীক্ষা চলাকালীন যাতে বিদ্যুৎ সংযোগ ব্যবস্থা সচল থাকে প্রত্যেকটি পরীক্ষা কেন্দ্রে, সে বিষয়ে রাজ্য বিদ্যুৎ দফতররকে বিশেষ নির্দেশ দেওয়া হয়। পাশাপাশি প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের তরফে পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে কী কী পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে, সে বিষয়েও এদিনের বৈঠকে জেলাশাসক, পুলিশ সুপারদের বিশেষভাবে বলা হয়।

ইতিমধ্যেই প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ সূত্রে জানা গিয়েছে, মেটাল ডিটেক্টর ব্যবহারের পাশাপাশি এ বছর বায়োমেট্রিক অ্যাটেনডেন্সেরও ব্যবস্থা করা হচ্ছে পরীক্ষা কেন্দ্রগুলিতে। পাশাপাশি ১৬ দফা গাইডলাইন ইতিমধ্যেই পাঠানো হয়েছে জেলাগুলিকে। ১৬ দফা গাইডলাইন পাঠানোর সঙ্গে সঙ্গে ইন্টারনেট বন্ধ রাখা যায় কিনা, সে বিষয়ে রাজ্যে স্বরাষ্ট্র দফতরকে চিঠি দেওয়া হয়েছে পর্ষদের তরফে।

Published by:Teesta Barman
First published:

Tags: CM Mamata Banerjee, Nabanna, Primary TET