Home /News /kolkata /
ছাদের কার্নিশে বিপজ্জনক ভাবে ক্যাটওয়াক করছে ১ বছরের "পুচকা", ফোন গেল কলকাতা পুলিশে!

ছাদের কার্নিশে বিপজ্জনক ভাবে ক্যাটওয়াক করছে ১ বছরের "পুচকা", ফোন গেল কলকাতা পুলিশে!

তবে যাকে নিয়ে এত কান্ড সেইপুচকা অবশ্য মনের আনন্দে ঘুরে বেড়াচ্ছে ঘর, বারান্দায়।

  • Share this:

Susovan Bhattacharjee

#কলকাতা: ঈশান কোণে তখন সবে মেঘ জমেছে। হঠাৎ করেই নজর আসে ছাদের কার্নিশে "ক্যাটওয়াক"। চোখ কচলে ভালো করে দেখতেই চক্ষু চড়কগাছ ডাক্তার বাবুর। কয়েক মাস আগেও তাকে নিয়ে বেশ হুলুস্থুল পড়ে গিয়েছিল বেহালার ম্যান্টনের বেচারাম চ্যাটার্জি স্ট্রিটে। পাড়ার মোড়ে মোড়ে আলোচনা হয়েছিল, "পুচকা" নিখোঁজ। যদিও মান অভিমান ভাঙিয়ে পুচকা ফেরত এলেও তার মন ছিল উড়ু উড়ু। রেডিওতে তখন সন্ধ্যাবেলায় গান বাজছে। রাতের আহারের জন্য রান্নাঘরে মাছ ভাজাও হচ্ছে। ভাজা মাছের গন্ধে ম ম করছে গোটা ঘর। যদিও দেখা নেই পুচকা'র।

সবই তো হল, কিন্তু কে এই পুচকা? ম্যান্টনের ডাক্তার বাবু বলছেন, পুচকা হল আমার ১ বছরের এক বিড়াল। ভীষণ দুষ্টু। আর ভীষণ ঘর পালানোর প্রবণতা তার। এহেন পুচকাই বুধবার রাতে ক্যাটওয়াক সারছিলেন তিন তলা এক স্কুল বাড়ির ছাদের কার্নিশে। লকডাউনের সকালে ১০০ নম্বরে ফোন যায়। ফোনের ওপর প্রান্ত থেকে জানা যায় এক বিড়াল বেহালার ম্যান্টনের এক স্কুল বাড়ির কার্নিশে আটকে আছে। যদি তাকে উদ্ধার করা যায়। খবর পাওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট টিমের সদস্যরা পৌঁছে যান ম্যান্টনের চ্যাটার্জি পাড়ায়। আধ ঘন্টার মধ্যেই পুচকা'কে উদ্ধার করে তারা। এই নিয়ে কলকাতা পুলিশের তরফে এক সপ্তাহের মধ্যে দু'বার এমন ভাবে বিড়াল উদ্ধার করা হল।পুচকা

উদ্ধার হওয়ায় হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন ডাক্তার শ্যামল গুহ। তার বাড়িতে ১৫টি বিড়াল আছে। তার মধ্যে পুচকা হল সবচেয়ে ছোট ও দুষ্টু। গতকাল সারারাত বৃষ্টিতে ভিজেছে পুচকা। ডাক্তারবাবু বলছেন, খিদে ও জলে ভিজে কাহিল হয়ে পড়েছিল তার আদরের পুচকা। তাকে উদ্ধার করে দেওয়ায় কলকাতা পুলিশের ডি এম জি'কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি। তবে যাকে নিয়ে এত কান্ড সে অবশ্য মনের আনন্দে ঘুরে বেড়াচ্ছে ডাক্তার বাবুর ঘর, বারান্দায়। দুপুরে মাছ-ভাত খেয়ে ঘুমিয়েছে। আর তাতেই নিশ্চিত বোধ করছে ম্যান্টনের চ্যাটার্জি পাড়া।

Published by:Simli Raha
First published:

Tags: Kitten, Kolkata Police

পরবর্তী খবর