corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে মমতার শেষ ২১ জুলাই, পরের বার বিজেপির সরকারের থেকে অনুমতি নিয়ে করতে হবে শহিদ দিবস’, কটাক্ষ দিলীপের

‘মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে মমতার শেষ ২১ জুলাই, পরের বার বিজেপির সরকারের থেকে অনুমতি নিয়ে করতে হবে শহিদ দিবস’, কটাক্ষ দিলীপের

‘পরের বার ঐতিহাসিক সভা নয়, হবে পথসভা ৷ তাও বিজেপি সরকারের থেকে অনুমতি নিয়ে শহিদ দিবসের মিটিং করতে হবে ৷’ সাংবাদিক বৈঠকে এমনই কড়া ভাষায় তৃণমূলকে আক্রমণ করেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি

  • Share this:

#কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে এটাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শেষ ২১ জুলাই। সভা শুরুর আগেই এভাবে আক্রমণ শানাতে শুরু করেছিলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ ৷ তৃণমূলের ভার্চুয়াল সভায় নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য শেষ হতেই একের পর এক কটাক্ষ ভেসে আসে দিলীপ ঘোষের তরফ থেকে ৷

‘পরের বার ঐতিহাসিক সভা নয়, হবে পথসভা ৷ তাও বিজেপি সরকারের থেকে অনুমতি নিয়ে শহিদ দিবসের মিটিং করতে হবে ৷’ সাংবাদিক বৈঠকে এমনই কড়া ভাষায় তৃণমূলকে আক্রমণ করেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি ৷ তৃণমূল আমলে তাদের জনসভার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না, এই অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, ‘২১ সালের একুশে জুলাই একুশ জনকেও সঙ্গে পাবেন না মমতা। এখনই মানুষ সঙ্গে নেই তো তখন আরও থাকবে না ৷ তবে তবুও আমরা ধর্মতলায় সভার অনুমতি দেব ৷ ওদের মতো বাধা দেব না ৷’

এদিনের শহিদ দিবসের ভার্চুয়াল মঞ্চ থেকে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একাধিক দাবি ও প্রতিশ্রুতি প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘নিশ্চিত হার বুঝে বিভ্রান্ত হয়ে বাকিদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন নেত্রী ৷’ শহিদ দিবসের মঞ্চ থেকে একুশে ফিরলে আজীবন ফ্রি রেশনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ সেই প্রসঙ্গে প্রবল কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের ৷ বলেন, ‘এখন বলছেন, এতদিন তাহলে কেন রেশন দেননি? কেন এ রাজ্যে ২ টাকা কেজির চাল খেতে হয়? সরকার যদি থাকে তবে ফ্রিতে রেশন। আসলে দিদির মনেই ‘যদি’ ঢুকে গেছে। উনি নিজেও বুঝতে পারছেন আর ফেরা হবে না। তাই ফ্রি রেশনের মিথ্যা প্রতিশ্রুতি ৷ ’

তৃণমূল সরকারকে নিশানা করে রাজ্য বিজেপি সভাপতির অভিযোগ, ‘মানুষকে দুঃস্থ করে রেখেছে তৃণমূল সরকার। সব জায়গা থেকেই কাটমানি খাচ্ছে তৃণমূল। পঙ্গপালের মতো রাজ্যে লুঠ করছে তৃণমূল ৷ রেশন থেকে ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষতিপূরণের টাকা সবই লুঠ হয়ে যাচ্ছে ৷’ সাংবাদিক বৈঠকে তৃণমূল সরকারের উদ্দেশে আরও একবার রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের মুখে শোনা গেল পুরনো স্লোগান- ‘উনিশে হাফ হয়েছে, একুশে সাফ হবে।’

Published by: Elina Datta
First published: July 21, 2020, 9:23 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर