• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • DILIP GHOSH REACTION ON FAKE LAWYER AND BJP LEADER NAZIA ELAHI KHAN ARRESTED SB

Dilip Ghosh: আইনজীবী সেজে লক্ষাধিক টাকার প্রতারণা, নাজিয়াকে 'ঝেরে' ফেললেন দিলীপ ঘোষ

দিলীপের ভোলবদল

Dilip Ghosh: দিলীপ ঘোষকে প্রশ্ন করা হলে তাঁর সাফ জবাব, 'নাজিয়া এলাহি খান কি আদৌ দলে আছেন? উনি তৃণমূলের পার্টি অফিস থেকে ধরা পড়েছেন। একসময় বিজেপিতে ছিলেন। এখন কি আছেন? একবছর ধরে আমি পার্টি অফিসে দেখিনি। কোন অপরাধ করে থাকলে আইন ব্যবস্থা নেবে। '

  • Share this:

    #কলকাতা: আইনজীবী পরিচয়ে প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন বিজেপির মজদুর সেলের সদস্য নাজিয়া এলাহি খান। অভিযোগ উঠেছে, আইনজীবী পরিচয় দিয়ে দাম্পত্য মামলা মিটমাট করিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে এক দম্পতির থেকে ৬ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন তিনি। দিলীপ ঘোষ, দেবশ্রী চোধুরীদের হাত থেকে বিজেপির পতাকা নিয়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছিলেন নাজিয়া। যদিও বিড়ম্বনা বাড়তেই সেই নাজিয়াকে কার্যত ঝেরে ফেললেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। শুক্রবার ইকোপার্কে এ বিষয়ে দিলীপকে প্রশ্ন করা হলে তাঁর সাফ জবাব, 'উনি (নাজিয়া) কি আদৌ দলে আছেন? উনি তৃণমূলের পার্টি অফিস থেকে ধরা পড়েছেন। একসময় বিজেপিতে ছিলেন। এখন কি আছেন? একবছর ধরে আমি পার্টি অফিসে দেখিনি। কোন অপরাধ করে থাকলে আইন ব্যবস্থা নেবে।'

    জানা গিয়েছে, বঙ্গ বিজেপির সংখ্যালঘু মুখ নাজিয়া নিজেকে আইনজীবী হিসাবে পরিচয় দিলেও তাঁর কাছে আইনজীবী হওয়ার কোনও প্রমাণ মেলেনি। পুলিশ সূত্রে খবর, সঞ্জীব আগরওয়াল নামে এক ব্যক্তি অভিযোগ দায়ের করেন নাজিয়ার বিরুদ্ধে। মামলা লড়ার জন্য নাজিয়া না কি তাঁর কাছ থেকে ৬ লক্ষ টাকা নিয়েছিলেন। কিন্তু মামলা লড়েননি তিনি। আর এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই বিড়ম্বনা বাড়ে গেরুয়া শিবিরের। আর এদিন সেই নাজিয়ার বিষয়ে বলতে গিয়ে 'তৃণমূল পার্টি অফিসের' তত্ত্ব তুলে ধরলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি।

    এদিন ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান নিয়ে তৃণমূল ও শাসক দলের সাংসদ দেবকে একহাত নিয়েছেন দিলীপ। তাঁর কটাক্ষ, 'সাতবছর হয়ে গেছে এতদিন যাননি কেন? এখন নীতি আয়োগ মনে পরেছে, সংসদে যাননা।। ঘাটালের মানুষের যন্ত্রণা একশো বছর ধরে চলছে। তিনি (দেব) সাত বছর বসে আছেন, বিরোধীরা কথা বললেই তবে যাবেন। উনি এখন বসে আছেন দিদি কখন প্রধানমন্ত্রী হবেন, তারপর ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান হবে। ' দিলীপ ঘোষের সংযোজন, 'তৃণমূল ১০ বছর ক্ষমতায় আছে, ঘাটাল মাস্টার প্লান নিয়ে কেন কিছু ভাবেনি। তাতে পঞ্চাশ শতাংশ টাকা রাজ্যেকে দিতে হবে,সেটা দিতে উনি রাজি নন। মোদি করে দেবেন আর দিদি নাম কামাবেন?এটা চলতে পারেনে।'

    রাজ্যের উপনির্বাচন নিয়েও এদিন তৃণমূলের বিরুদ্ধে ফের সুর চড়িয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। বস্তুত এখনই রাজ্যে যে উপনির্বাচন চায় না বিজেপি, তা আরও একবার এদিন স্পষ্ট করে দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। তাঁর কথায়, 'আমাদের রাজ্যে তথ্য গোপন করা হয়। তৃণমূল করোনা ভুলে গিয়ে উপনির্বাচন করতে চায়। মানুষ না থাকলেও চলবে, কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পদ চাই। মানুষকে সচেতন থাকতে হবে। নির্বাচন ভুলে গিয়ে এখন মানুষকে বাঁচানোর চিন্তা করা উচিত। এর আগে এখানে উপনির্বাচন হয়নি, তখন মুখ্যমন্ত্রী গিয়ে বলেননি উপনির্বাচন করতেই হবে। দেশের অন্যান্য জায়গাতেও উপনির্বাচন হয়নি, করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি লকডাউন লাগিয়ে রেখেছে। তারপরও উপনির্বাচন চাইছে!'

    Published by:Suman Biswas
    First published: