Dilip Ghosh : পদ্মবন ছেড়ে ঘাসফুলের ঘরে ফেরা মুকুলের! কী মন্তব্য করলেন দিলীপ ঘোষ?

মুকুলের ফুল-বদল Photo : File Photo

দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh) এদিন সংবাদমাধ্যমকে বলেন, “এখন জল্পনা কল্পনা, গান গাওয়ার সময় নেই। আমাদের অনেক কর্মী সন্ত্রাসের শিকার। অনেকে ঘরে ফিরতে পারেননি। তাঁদের সুরক্ষা নিয়ে আপাতত চিন্তিত।”

  • Share this:

    #উত্তর ২৪ পরগনা: বিধানসভা নির্বাচনে লক্ষ্য পূরণ না হওয়ার পর থেকেই তৃণমূলে যোগদানের হিড়িক পড়েছে বিজেপির অন্দরে। এ বার, খোদ বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায়  (Mukul Roy) সপুত্র তৃণমূলে যোগ দেওয়ার খবরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। সপ্তাহান্তের বারবেলায় তৃণমূল ভবনে ইতিমধ্যেই একপ্রস্ত রুদ্ধদ্বার বৈঠক চলেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের (Abhishek Banerjee) সঙ্গে। ২০১৭-তে দলত্যাগের পর ফের ‘ঘরে ফিরছেন’ মুকুল যা রীতিমতো শোরগোল ফেলেছে বঙ্গ বিজেপির অন্দরে। কিন্তু সে প্রসঙ্গে  দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh) এদিন সংবাদমাধ্যমকে বলেন, “এখন জল্পনা কল্পনা, গান গাওয়ার সময় নেই। আমাদের অনেক কর্মী সন্ত্রাসের শিকার। অনেকে ঘরে ফিরতে পারেননি। তাঁদের সুরক্ষা নিয়ে আপাতত চিন্তিত।”

    শুক্রবার, বনগাঁয় দলের সাংগঠনিক বৈঠকে এসে মুকুল রায়ের ‘ঘরওয়াপসি’ নিয়ে এমনই মন্তব্য করলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি। পাশাপাশি সিএএ এনআরসি ইস্যু নিয়েও কথা বললেন দিলীপ। এদিন, বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা বলেন, “রাজ্য়ের যে হিংসা সন্ত্রাস ছড়িয়েছে তার খতিয়ান নেওয়া হবে। টিকাকরণের পর থেকেই সিএএ চালু হওয়ার কথা। বিল পাশ হয়েছে। কিন্তু রাজ্য সরকার সমর্থন করছে না। রাজ্য সরকারের সহযোগিতা না হলে সিএএ চালু করা সম্ভব নয়।” পাশাপাশি, রাজ্যে টিকাকরণ সমস্যা নিয়েও মুখ খোলেন বিজেপি নেতা। তিনি বলেন, “রাজ্য়ে টিকা এসেছে। কিন্তু সেই টিকার সমবন্টন হচ্ছে না।'

    তবে, তাৎপর্যপূর্ণভাবে এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না বনগাঁর বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুর। সিএএ ইস্যু নিয়ে এর আগেও একাধিকবার কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের উপর উষ্মা প্রকাশ করেছিলেন শান্তনু। বনগাঁতে বিজেপি ভাল ফল করলেও মতুয়া ভোটে বেশ খানিকটা ভাগ বসিয়েছে তৃণমূল। এই পরিস্থিতিতে বৈঠকে শান্তনু রায়ের অনুপস্থিতি নজর কেড়েছে। যদিও, সাফাইয়ের সুরে দিলীপবাবু জানিয়েছেন, বিধায়করা অনেকেই সেবা কাজ থেকে শুরু করে দলের কর্মীদের খবরাখবর নিতে ব্যস্ত। তাই তাঁরা বৈঠকে যোগ দিতে পারেননি।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: