• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • ‘৩৫ হাজার প্রার্থীর মনোনয়ন দিতে পেরেছি’, মনোনয়ন পত্র নিয়ে বিজেপির দাবির উল্টোসুর দিলীপের

‘৩৫ হাজার প্রার্থীর মনোনয়ন দিতে পেরেছি’, মনোনয়ন পত্র নিয়ে বিজেপির দাবির উল্টোসুর দিলীপের

File photo

File photo

এ যেন একেবারে উলটপুরাণ ! মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়া নিয়ে বিজেপির অন্দরেই ভিন্ন সুর ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: এ যেন একেবারে উলটপুরাণ ! মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়া নিয়ে বিজেপির অন্দরেই ভিন্ন সুর ৷ তৃণমূলের সুরেই তাল মেলালেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ ৷

    বিজেপি প্রার্থীরা মনোনয়ন জমা দিতে পারছেন না ৷ বিজেপির রাজ্য সভাপতির এমনই একটি অভিযোগে তোলপাড় হয়ে গিয়েছিল রাজ্য রাজনীতি ৷ এমনকী, মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়া নিয়ে হাইকোর্ট থেকে সুপ্রিম কোর্ট সর্বত্র মামলা দায়ের করে বিজেপি ৷ কিন্তু আচমকাই পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে সমস্ত নাটকের যবনিকা পড়ল যেন এক ঝটকায় ৷

    বৃহস্পতিবার তৃণমূলের বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘৩৫ হাজার প্রার্থীর মনোনয়ন দিতে পেরেছি ৷ এর আগে বিরোধীরা এত প্রার্থী দিতে পারেনি ৷ ’ একইসঙ্গে এই ঘটনাকে ‘অভূতপূর্ব’ বলে আখ্যা দিলেন তিনি ৷ পাশাপাশি, তিনি আরও বলেন, ‘বুদ্ধিজীবীরাও ভুল বুঝতে পেরে পথে নেমেছেন ৷’

    গত ২ এপ্রিল থেকে শুরু হয় পঞ্চায়েত নির্বাচনের মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়া ৷ আর সেই মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়া নিয়ে জেলায় জেলায় হিংসার খবর উঠে আসে সংবাদ শিরোনামে ৷ এই ইস্যু নিয়েই বিজেপি কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করার সিদ্ধান্ত নেয় বিজেপি ৷ কিন্তু সেই সময় হাইকোর্টে কর্মবিরতি চলায় সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয় বিজেপি ৷ এমনকী, বিরোধীদের চাপে পড়েই মনোনয়ন জমা দেওয়ার সময়সীমাও বাড়িয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল নির্বাচন কমিশন ৷ কিন্তু রাজ্য সরকারের চাপে পড়ে এবং পঞ্চায়েত আইনি জটিলতায় বাধা পেয়ে ফের মনোনয়ন জমা দেওয়ার সময়সীমা বাড়িয়েও শেষমেশ নির্দেশিকা বাতিল করে কমিশন ৷

    তবে, পঞ্চায়েত ভোটের মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়া নিয়ে নাকি কোনও সংঘর্ষই হয়নি ৷ সবাই সুষ্ঠুভাবে মনোনয়ন জমা দিতে পেরেছেন বলে মন্তব্য করেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় ৷ সন্ত্রাসের অভিযোগ তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়ে শান্তিপূর্ণ সংহতিপূর্ণ ভোটের পক্ষেই সওয়াল করেছিলেন তিনি ৷ পাশাপাশি তিনি আরও বলেছিলেন, ৫১% আসনে মনোনয়ন জমা দিয়েছে তারা ৷ যদি সন্ত্রাসই হত তাহলে এত মনোনয়ন জমা হয় কী করে ?’ এই প্রশ্ন তুলেই পার্থবাবু বিরোধী দলগুলিকে কটাক্ষ করে বলেন, সার্বিকভাবে বিরোধীরা বেশি মনোনয়ন দিয়েছে ৷ এদিন বিজেপির রাজ্য সভাপতিও কার্যত এহেন মন্তব্যের পক্ষেই যেন সমর্থন যোগালেন ৷

    প্রসঙ্গত, বুধবারই বিরোধীদের অভিযোগ নিয়ে মুখ খোলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ নির্বাচন ঘিরে রাজ্যে ‘মিথ্যা’, ‘কুৎসা’, ‘অপপ্রচার’ চলছে বলে দাবি করেন তিনি ৷ মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্যের চব্বিশ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই বিজেপি রাজ্য সভাপতি তাঁর দাবি থেকে সরে আসেন ৷ কেন রাজ্যের শাসক দলের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ থেকে সরে এলেন তিনি ? সেই বিষয়টি নিয়ে কিন্তু মুখে কুলুপ এঁটেছেন দিলীপ ঘোষ ৷ শাসকের সুরেই কেন তাল মেলালেন তিনি ? এর পিছনে কি তবে রয়েছে অন্য কোনও উদ্দেশ্য ? সেই নিয়েই প্রশ্ন উঠছে রাজনৈতিক মহলে ৷

    First published: