• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • রাজ্যজুড়ে ডেবিট কার্ড জালিয়াতি, কীভাবে আসে জালিয়াতি সেই ফোন?

রাজ্যজুড়ে ডেবিট কার্ড জালিয়াতি, কীভাবে আসে জালিয়াতি সেই ফোন?

এটিএমে চিনা বিপদের মাঝেই, এরাজ্যে একের পর এক ডেবিট কার্ড জালিয়াতি। আজও রাজ্যের তিন প্রান্তে গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট

এটিএমে চিনা বিপদের মাঝেই, এরাজ্যে একের পর এক ডেবিট কার্ড জালিয়াতি। আজও রাজ্যের তিন প্রান্তে গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট

এটিএমে চিনা বিপদের মাঝেই, এরাজ্যে একের পর এক ডেবিট কার্ড জালিয়াতি। আজও রাজ্যের তিন প্রান্তে গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: এটিএমে চিনা বিপদের মাঝেই, এরাজ্যে একের পর এক ডেবিট কার্ড জালিয়াতি। আজও রাজ্যের তিন প্রান্তে গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট থেকে গোপনে টাকা লোপাটের অভিযোগ উঠেছে। প্রত্যেকের অভিযোগ, ব্যাঙ্কের নামে ফোন করে, ভয় দেখিয়ে জেনে নেওয়া হচ্ছে অ্যাকাউন্ট নম্বর ও পিন। তা দিয়েই কাজ হাসিল করছে প্রতারকরা।

    ক্রমশ লম্বা হচ্ছে প্রতারিত ব্যাঙ্ক গ্রাহকদের তালিকা। রবিবারও রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় কার্ড জালিয়াতির অভিযোগ উঠেছে।

    ১) দক্ষিণ দিনাজপুরের পতিরাম ৷ প্রতারিত অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক ৷ SBI অ্যাকাউন্ট থেকে লোপাট ৮০ হাজার টাকা ৷

    ২) মুর্শিদাবাদের সালার ৷ প্রতারিত হস্তশিল্পি ৷ BOI থেকে লোপাট ৬৭ হাজার ৪০০ টাকা ৷

    ৩) পূর্ব মেদিনীপুরের ভগবানপুর ৷ প্রতারিত মা ও মেয়ে ৷ SBI অ্যাকাউন্ট থেকে লোপাট ৯ হাজার টাকা ৷ PNB থেকে উধাও ৪৯ হাজার ৫৬১ টাকা

    প্রত্যেকেরই অভিযোগ, ব্যাঙ্কের নাম করে ফোনে ভয় দেখানো হয়। জেনে নেওয়া হয় অ্যাকাউন্ট নম্বর ও পিন। সচেতনতার অভাবে তা প্রতারকদের হাতে তুলেও দেন অনেকে। কেমনভাবে আসে সেই ফোন? ফোন আসে কখনও মোবাইল নম্বর বা ল্যান্ড নাম্বার থেকে ৷ ফোনে আপনাকে জিজ্ঞেস করা হয়, আপনার এটিএম কার্ডটি ব্লক করা হচ্ছে ৷ যেহেতু আপনি আপনার পরিচয় পত্র জমা দেননি ব্যাঙ্কে ৷

    তারপরই চাওয়া হয় এটিএমের পিনকোড নম্বর ! পিন কোড নম্বর বললেই, ঘাড়ের ওপর বিপদ ৷ ব্যাঙ্কের ফোন ভেবে অনেকেই প্রতারকদের কার্যত হাতে তুলে দিচ্ছেন নিজেদের সঞ্চিত টাকা। ঠেকানোর উপায় কী? অ্যাকাউন্টের গোপন তথ্য নিজের কাছে রাখার পরামর্শই দিচ্ছে ব্যাঙ্কগুলি।

    First published: