corona virus btn
corona virus btn
Loading

ডাকাতি রুখে নিহত নিরাপত্তারক্ষী, রক্ষীকে পিটিয়ে ‘খুন’ ডাকাতদের

ডাকাতি রুখে নিহত নিরাপত্তারক্ষী, রক্ষীকে পিটিয়ে ‘খুন’ ডাকাতদের
প্রতীকী ছবি

সোনার দোকানে রাত পাহারার পারিশ্রমিক ছিল একশো টাকা। সেই টাকার জন্যই প্রতিরাতের মত রবিবারও ভাঙড় থানার কাছেই সোনাপট্টিতে পাহারা দিচ্ছিলেন বছর ষাটেকের সৈয়দ আলি মোল্লা।

  • Share this:

#কলকাতা: ভাঙড় থানা থেকে ঢিলছোঁড়া দুরত্বে সোনাপট্টিতে ডাকাতি রুখতে গিয়ে প্রাণ হারালেন নিরাপত্তারক্ষী। রবিবার রাতে এলাকায় টহল দেওয়ার সময় ডাকাতদলের সামনে পড়েন তিনি। ডাকাতি আটকাতে গেলে সৈয়দ আলি মোল্লাকে কুপিয়েখুন করে ডাকাতদল। ঘটনায় গ্রেফতার এক। আটক আরও একজন।

সোনার দোকানে রাত পাহারার পারিশ্রমিক ছিল একশো টাকা। সেই টাকার জন্যই প্রতিরাতের মত রবিবারও ভাঙড় থানার কাছেই সোনাপট্টিতে পাহারা দিচ্ছিলেন বছর ষাটেকের সৈয়দ আলি মোল্লা। রাত একটা নাগাদ আচমকাই সোনাপট্টির পিছন-দিকে হামলা চালায় দশ-বারোজনে ডাকাতদল। একটি দোকানের পিছনের দরজা ভাঙার চেষ্টা করে তারা। টর্চ জ্বেলে বিষয়টি দেখতে যান নিরাপত্তারক্ষী। তখনই ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাঁর উপর চড়াও হয় দুষ্কৃতীরা। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় সৈয়দ আলি মোল্লার। বেগতিক দেখে চম্পট দেয় ডাকাতরা। ঘটনার সময়ে এলাকায় টহলরত এক কনস্টেবল ও ভিলেজ পুলিশকেও মারধরের অভিযোগ।

প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, মুখঢাকা দুষ্কৃতীদের পরণে ছিল জলপাইরঙা পোশাক। কথা বলছিল হিন্দিতে। পুলিশের অনুমান,স্থানীয় কারও মদতে সোনাপট্টিতে হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা৷ তবে ভুল খবর থাকায় সোনার বদলে ইমিটেশন গয়নার দোকানের দরজা ভাঙতে যায়৷

সংসারে স্ত্রী, পাঁচ মেয়ে। দিন আনি দিন খাই পরিবারের একমাত্র রোজগেরে। সৈয়দ আলি মোল্লার মৃত্যুতে দিশাহারা পরিবার। বারুইপুর পুলিশ জেলায় পর -পর কয়েকটি ডাকাতির ঘটনার কিনারা হয়নি এখনও। ফের আরও এক খুন। পুলিশের নিষ্ক্রিয়তায় বাড়ছে ক্ষোভ।

First published: February 25, 2020, 9:34 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर