অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত ইয়াস, শক্তি বাড়িয়ে এগোচ্ছে স্থলভূমির দিকে

ইয়াসের রোষ থেকে বাঁচতে বাংলা, ওড়িশায় সতর্ক প্রশাসন৷

এ দিন বিকেল সাড়ে পাঁচটার সময় ওড়িশার পারাদ্বীপ থেকে ১৬০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছিল ইয়াস (Cyclone Yaas)৷

  • Share this:

    #কলকাতা: স্থলভূমিতে আছড়ে পড়ার আগে পূর্বাভাস মতোই যথাসম্ভব শক্তিবৃদ্ধি করে নিচ্ছে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস৷ রাত ৯টায় আলিপুর আবহাওয়া দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, ইতিমধ্যেই অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে ইয়াস৷ ঘণ্টায় ১৫ কিলোমিটার গতিতে স্থলভূমির দিকে বঙ্গোপসাগেরর উপরে উত্তর এবং উত্তর পশ্চিম দিকে এগোচ্ছে সে৷

    এ দিন বিকেল সাড়ে পাঁচটার সময় ওড়িশার পারাদ্বীপ থেকে পূর্ব- দক্ষিণ পূর্বে ১৬০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছিল ইয়াস৷ যে বালেশ্বরের কাছে ইয়াসের আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে, সেথান থেকে ২৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ এবং দক্ষিণ পূর্বে অবস্থান করছিল সে৷ অন্যদিকে দিঘা থেকে ২৪০ কিলোমিটার এবং সাগর থেকে ২৩০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছিল ইয়াস৷ হাওয়া অফিস আগেই জানিয়েছে, স্থলভূমিতে আঘাত হানার সময় ইয়াসের গতিবেগ থাকতে পারে ঘণ্টায় ১৫৫ থেকে ১৬৫ কিলোমিটারের মধ্যে৷ যা পৌঁছতে পারে ১৮৫ কিলোমিটারে৷

    হাওয়া অফিসের সতর্কবার্তা জানানো হয়েছে, শক্তি বৃদ্ধি করতে করতে আরও উত্তর এবং উত্তর পশ্চিম দিকে এগোবে ইয়াস৷ বুধবার ভোরেই ওড়িশা উপকূলে ধামরা বন্দরের কাছাকাছি পৌঁছে দিতে পারে এই অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়৷ বুধবার দুপুরের দিকে সাগর এবং পারাদ্বীপের মধ্যে ধামরা বন্দরের কাছে এবং বালেশ্বরের দক্ষিণ অংশ দিয়ে স্থলভূমিতে ঢুকবে ইয়াস৷ ফলে বালেশ্বর, জগৎসিংহপুর, ভদ্রক, কেন্দাপাড়া এবং পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব মেদিনীপুরে সবথেকে বেশি ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে৷

    ইয়াসের দাপটে বুধবার দুই মেদিনীপুরেই অতি প্রবল বর্ষণের সতর্কবার্তা জারি হয়েছে৷ পাশাপাশি বাঁকুড়া, ঝাড়াগ্রাম এবং দক্ষিণ চব্বিশ পরগণায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে৷ কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, পূর্ব বর্ধমান, নদিয়া, পুরুলিয়া, মালদহ, মুর্শিদাবাদ, মালদহ, কালিম্পং এবং দার্জিলিং জেলায় ভারী বর্ষণের পূর্বাভাস রয়েছে৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: