Home /News /kolkata /
মহা শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আমফান আছরে পড়তে না পড়তেই তুমুল ঝড়ে লণ্ডভণ্ড কলকাতা

মহা শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আমফান আছরে পড়তে না পড়তেই তুমুল ঝড়ে লণ্ডভণ্ড কলকাতা

ঢাকুরিয়ায় গাছ পড়ে রাস্তা বন্ধ। জল জমে আরও বিপত্তি। দুর্যোগে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন কলকাতার একাধিক এলাকা।

ঢাকুরিয়ায় গাছ পড়ে রাস্তা বন্ধ। জল জমে আরও বিপত্তি। দুর্যোগে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন কলকাতার একাধিক এলাকা।

ঝড় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই সর্বত্রই গাছ ভেঙে পড়ার খবর আসতে থাকে।

  • Share this:

#কলকাতা: ঘূর্ণিঝড় আমফানের প্রভাবে বুধবার সকাল থেকেই শহর জুড়ে বৃষ্টি শুরু হয়েছিল তবে হাওয়া সেরকম ছিলনা। মাঝে কয়েকবার আকাশ পরিষ্কারও হয়েছিল। আশার আলো দেখা দিয়েছিল শহরবাসীর মনে। একদিকে করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক গত দু মাস ধরে তাড়া করে বেড়াচ্ছিল সবাইকেই। আর তার মাঝেই মূর্তিমান বিভীষিকার মতো এসে পৌঁছালো আমফান ঘূর্ণিঝড়। আর এই ঘূর্ণিঝড় দেখিয়ে দিল মানুষ কতটা অসহায়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই বৃষ্টির দাপট যেমন বাড়তে শুরু করল, তেমন ভাবেই ঝড় শুরু হতে লাগল। বেলা ৩টা থেকে ঝড়ের দাপট মারাত্মক। বিকাল ৪টে নাগাদ ১০৫ কিলোমিটার বেগে ঝড় হতে শুরু করে কলকাতা জুড়ে, আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর জানায় এই ঝড়ের গতিবেগ বিকেল ৫টা নাগাদ আরও বাড়বে।

মঙ্গলবার রাতভর হালকা, ঝিরঝিরে বৃষ্টি এবং হাওয়ার জন্য কলকাতা বিভিন্ন জায়গায় বেশ কয়েকটি গাছ পড়ে যায়। আর বেলা ২টোর পর থেকে যখন ঝড়ের গতিবেগ বাড়তে থাকে তখন উত্তর থেকে দক্ষিণ, পূর্ব থেকে পশ্চিম সর্বত্রই একের পর এক গাছ ভেঙে পড়ার খবর আসতে শুরু করে কলকাতা পৌরসভার কন্ট্রোলরুমে। পার্ক স্টিট, থিয়েটার রোড, সাদার্ন এভিনিউ, রেড রোড কলকাতা ময়দান, ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল-এর সামনে, ইডেন গার্ডেন্সের সামনে, ক্যামাক স্ট্রীট, গড়িয়াহাট, কসবা, পাইকপাড়া, টালা, বাগমারী, খিদিরপুর সর্বোচ্চ একের পর এক গাছ ভেঙে পড়ার খবর আসতে থাকে। ক্যামাক স্ট্রীট, বিবিডি বাগ, পাইকপাড়া এলাকায় গাছ ভেঙে পড়ে ৩টি গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

ঝড় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই সর্বত্রই গাছ ভেঙে পড়ার খবর আসতে থাকে। তবে কলকাতা পুরসভার বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের কর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে যায় এবং বিভিন্ন জায়গায় গাছ কেটে রাস্তা পরিষ্কার করার চেষ্টা করে। কলকাতা পুলিশের কর্মীরাও বেশ কিছু জায়গায় পৌঁছে দিয়ে গাছকেটে বাঁশরী এ রাস্তা পরিষ্কার করে। বিকেল ৫টা পর্যন্ত এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে কলকাতা শহরে কোন ব্যক্তির দুর্ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। সকাল থেকেই কলকাতা পুরসভা এবং কলকাতা পুলিশের পক্ষ থেকে সর্বত্রই মাইকে ঘোষণা করা হয় যাতে বেলা বারোটার পর কেউ রাস্তায় না বেরোয়।

ABHIJIT CHANDA

Published by:Ananya Chakraborty
First published:

Tags: Cyclone Amphan, Kolkata, Super Cyclone

পরবর্তী খবর