কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে মে দিবস পালন করল সিপিএম 

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে মে দিবস পালন করল সিপিএম 
অভুক্তদের খাওয়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে সিপিএমের বিভিন্ন শাখা সংগঠন৷

এবছর পরিস্থিতি ভিন্ন। লকডাউনের জেরে কোনও জমায়েত করা যাচ্ছে না। সেই কথা মাথায় রেখেই অভিনব পদ্ধতিতে কর্মসূচি করা হয়েছে দলের পক্ষ থেকে।

  • Share this:

#কলকাতা: মে দিবস। এই দিনটিকে প্রতি বছরই বেশ গুরুত্ব দিয়ে পালন করে সিপিএম। সকালে পতাকা উত্তোলন থেকে শুরু করে আলোচনা সভা, জনসভা করা হয়ে থাকে। মে দিবসের গুরুত্ব, তাৎপর্য তুলে ধরা হয় সাধারণ মানুষের কাছে। মূলত সিপিএমের শ্রমিক সংগঠন সিটু এবিষয়ে মুখ্য ভূমিকা নিলেও ছাত্র- যুব- মহিলা সংগঠনের তরফেও কর্মসূচি নেওয়া হয়ে থাকে।

কিন্তু এবছর পরিস্থিতি ভিন্ন। লকডাউনের জেরে কোনও জমায়েত করা যাচ্ছে না। সেই কথা মাথায় রেখেই অভিনব পদ্ধতিতে কর্মসূচি করা হয়েছে দলের পক্ষ থেকে। কাজে লাগানো হয়েছে স্যোশাল মিডিয়াকে। যেমন দলের ফেসবুক লাইভে আসেন দলের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি ও প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ কারাট। সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, 'লকডাউন পরিস্থিতিতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিক শ্রেণি। সরকারকে দায়িত্ব নিয়ে এদের পাশে দাঁড়াতে হবে।'

রাজ্যেও মে দিবস পালনে বেশকিছু উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ডিওয়াইএফআই-এর পক্ষ থেকে 'হেনরির হাতুড়ির সুর' নামে একটি কর্মসূচি নেওয়া হয়। সংগঠনের ফেসবুক পেজে সংগঠনের সদস্যরা নাটক, গান, আবৃত্তির মতো বেশকিছু সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করেন৷ সংগঠনের নেতা কলতান দাশগুপ্ত বলেন, 'লকডাউনের সময় অবশ্যই সামাজিক দুরত্ব মেনে চলতে হবে। কিন্তু মানুষের সঙ্গে যোগাযোগও রাখতে হবে। লকডাউনের নিয়ম মেনে বাইরে না বেরিয়েও অনেক কর্মসূচি করা যায় প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে।' এর আগেও 'ভাষণ নয় রেশন দাও' বলে একটি কর্মসূচি হয়েছিল। সংগঠনের সদস্যরা বাড়িতে বসেই সরকারের কাছে নিজেদেরকে দাবি জানিয়েছিল।

এ দিন মে দিবস উপলক্ষে বিশেষ কর্মসূচি ছিল। সকাল ৯টা, বিকেল ৫টা ও রাত ৯টায় এটা করা হয়েছিল। এরই পাশাপাশি মে দিবসের ঐতিহাসিক গুরুত্ব মানুষের সামনে তুলে ধরতে নেতারা নিজেদের স্যোশাল মিডিয়াতে বেশকিছু ভিডিও আপলোড করেন।

এ বিষয়ে সিপিএমের রাজ্য কমিটির সদস্য তাপস সিনহা বলেন, 'পরিস্থিতি অনুযায়ী সঠিক নিয়ম মেনে কাজ করতে হচ্ছে। লকডাউন পরিস্থিতিতে আমরা স্যোশাল মিডিয়ায় সাহায্য সেগুলো করেছি। তবে এরই পাশাপাশি বেশকিছু পদক্ষেপ করা হচ্ছে লকডাউনের নিয়ম মেনে। যেমন এই সময়ে যাতে কোনও মানুষই অভুক্ত না থাকে তার জন্য রাজ্য জুড়ে মানুষের পাশে রয়েছেন দলের কর্মী সমর্থকেরা। রাজ্যের পাশাপাশি ভিন রাজ্য আটকে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকদের খাবার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। দাঁতনেও আজ প্রচুর মানুষের জন্য খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। এমনকী বিদেশে আটকে থাকা শ্রমিকদের সাহায্যের জন্যও উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।'

তবে প্রতিবারের মতো এবারেও পতাকা উত্তোলন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: May 2, 2020, 12:05 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर