Home /News /kolkata /
পাইলট কার, কড়া নিরাপত্তা! ৫ এমএল-এর ছোট্ট শিশিটাই যেন শহরের ভিআইপি

পাইলট কার, কড়া নিরাপত্তা! ৫ এমএল-এর ছোট্ট শিশিটাই যেন শহরের ভিআইপি

টিকাকরণের তথ্য সঠিক সময়ে আপলোড করতে হবে। ভারত যা করছে, অনেক দেশ তা অনুসরণ করবে। আধারের মাধ্যমে কোউইন অ্যাপে নথিভুক্ত থাকবে যাবতীয় তথ্য। টিকার পর দেওয়া হবে সবাইকে দেওয়া হবে ডিজিটাল সার্টিফিকেট। দ্বিতীয় ডোজের পর মিলবে একটি শংসাপত্র। ভ্যাকসিন নিয়ে কোনও অসুবিধা হলে তারও ব্যবস্থা থাকছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ৷ Photo-Avijit Chanda

টিকাকরণের তথ্য সঠিক সময়ে আপলোড করতে হবে। ভারত যা করছে, অনেক দেশ তা অনুসরণ করবে। আধারের মাধ্যমে কোউইন অ্যাপে নথিভুক্ত থাকবে যাবতীয় তথ্য। টিকার পর দেওয়া হবে সবাইকে দেওয়া হবে ডিজিটাল সার্টিফিকেট। দ্বিতীয় ডোজের পর মিলবে একটি শংসাপত্র। ভ্যাকসিন নিয়ে কোনও অসুবিধা হলে তারও ব্যবস্থা থাকছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ৷ Photo-Avijit Chanda

  • Share this:

#কলকাতা: সবুজ রংয়ের কাগজের মোড়ক৷ তার উপরে সাদা হরফে ইংরেজিতে লেখা করোনা ভাইরাস ভ্যাকসিন- কোভিশিল্ড৷ আর এই ছোট্ট কাঁচের শিশিকে ঘিরেই মঙ্গলবার দুপুরে কলকাতা বিমানবন্দরে পুলিশ থেকে শুরু করে সরকারি কর্তাদের ব্যস্ততা তুঙ্গে উঠল৷ লন্ডন ফেরত এক যুবকের শরীরেই প্রথম বার এ রাজ্যে করোনা সংক্রমণের খোঁজ মিলেছিল৷ কলকাতা বিমানবন্দর হয়েই কলকাতায় ঢুকেছিলেন তিনি৷ সেই কলকাতা বিমানবন্দর হয়েই মঙ্গলবার প্রথমবার কলকাতায় এল করোনার ভ্যাকসিন৷ বুধবারের মধ্যেই যা গোটা রাজ্যে পৌঁছে যাওয়ার কথা৷

মঙ্গলবার দুপুরে কলকাতা বিমানবন্দরের বাইরের ছবিটা দেখে মনে হচ্ছিল কোনও ভিআইপি-র আগমণ ঘটছে৷ তৈরি পাইলট কার৷ মোতায়েন করা হয়েছে প্রচুর পুলিশকর্মী৷ বেলা পৌনে দুটো নাগাদ স্পাইসজেটের বিশেষ বিমান দমদম বিমানবন্দরে পৌঁছনোর পর দ্রুত নামিয়ে আনা হয় ভায়াল ভরা ৮৩টি বাক্স৷ এ দিন সবমিলিয়ে ৬ লক্ষ ৮৯ হাজার ভ্যাকসিনের ডোজ কলকাতায় এসে পৌঁছেছে৷ এক একটি ভায়াল বা শিশিতে রয়েছে ৫ এমএল করে তরল৷ এক একজনকে ০.৫ এমএল করে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে৷ অর্থাৎ প্রতিটি ভায়াল থেকে দশ জনের শরীরে ভ্যাকসিন দেওয়া যাবে৷

যানজটে যাতে ভ্যাকসিন বহনকারী ইনস্যুলেটেড ভ্যানগুলি আটকে না থাকে, তার জন্য পাইলট কারের ব্যবস্থা ছিল৷ বিমানবন্দর থেকে আধ ঘণ্টার মধ্যেই তা পৌঁছে যায় বাগবাজারে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের সেন্ট্রাল ড্রাগ স্টোরে৷

আগামী ১৬ জানুয়ারি থেকে রাজ্যের ৩৫৩টি কেন্দ্রে প্রাথমিক ভাবে টিকাকরণের কাজ শুরু হবে৷ সবার আগে ভ্যাকসিন পাবেন চিকিৎসক এবং নার্সরা৷ প্রতিটি কেন্দ্রে অন্তত ১০০ জনকে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে৷ কলকাতা সংলগ্ন জেলাগুলিতে আজ রাতের মধ্যেই ভ্যাকসিন পৌঁছে যাওয়ার কথা৷ আর রাজ্যের বাকি অংশে তা বুধবারের মধ্যে পৌঁছে যাবে৷

বাগবাজারের সেন্ট্রাল ড্রাগ স্টোরেও কড়া নিরাপত্তা ভ্যাকসিনগুলি রাখা হয়েছে৷ যদিও যে ভ্যাকসিনের ভায়ালগুলি কলকাতায় এসে পৌঁছেছে সেগুলি খোলা বাজারে বিক্রির জন্য নয়৷ ভ্যাকসিন জেলায় পাঠানোর সময়ও কড়া নজরদারি চলবে৷ যে ইনস্যুলেটেড ভ্যানগুলি করে ভ্যাকসিন পাঠানো হবে, জিপিএস-এর মাধ্যমে সেগুলির উপরে লাগাতার নজরদারি চলবে৷

Avijit Chanda
Published by:Debamoy Ghosh
First published:

পরবর্তী খবর