corona virus btn
corona virus btn
Loading

রেড লাইট এলাকায় অভুক্ত যৌনকর্মীদের খাওয়াদাওয়ার ভার নিলেন রূপান্তরকামীরা

রেড লাইট এলাকায় অভুক্ত যৌনকর্মীদের খাওয়াদাওয়ার ভার নিলেন রূপান্তরকামীরা

রূপান্তরকামীদের সঙ্গে আরও বেশকিছু মানুষ একজোট হয়ে প্রতিদিনের প্রয়োজনীয়, শুকনো খাবার জুগিয়ে চলেছে এই পতিতা ও তাদের সন্তানদের

  • Share this:

#কলকাতা: গোটা বিশ্বজুড়ে যখন প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস এর থাবা চওড়া হচ্ছে। প্রতিদিন নতুন করে করোনা আক্রান্তের খবর আসছে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে। এ রাজ্যও তার ব্যতিক্রম নয়। গোটা দেশ জুড়ে ২১ দিনের লকডাউনে বহু মানুষের জীবন জীবিকা চ্যালেঞ্জের মুখে। গ্রাসাচ্ছাদন করাই এখন সবচেয়ে চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে অনেক মানুষের কাছেই। মোহাবিষ্ট, স্বার্থপর, বিবেকহীন মানুষের কাছে মারণ করোনা ভাইরাস শাপে বর হয়ে উঠলো।

কালীঘাটের লালবাতি এলাকা। সমাজের এক অন্ত্যজ শ্রেণী যৌনকর্মীরা এখানেই থাকে বহুদিন ধরে। তাই বলে কী আর করোনা আতঙ্ক এখানে দানা বাঁধে নি! গত বেশ কিছুদিন ধরেই ব্যবসায় মন্দা, আর জনতা কার্ফু এর পর ২১ দিনের লকডাউন, তাদের মুখের গ্রাস ও কেড়ে নিতে বসেছে। সবথেকে সমস্যার মুখে পড়েছে কালীঘাটের এই পতিতাপল্লীর বৃদ্ধা, শিশু, প্রতিবন্ধীরা। এদের দেখার কেউ নেই প্রায়ই। আগামী দিনগুলো আদৌ খাবর জুটবে কিনা, তা নিয়ে ঘুম ছুটেছিল প্রত্যেকেরই। একদিকে করোনা আতঙ্ক, আর তার সঙ্গে ভবিষ্যতের অভুক্ত থাকার চিন্তা আরও হতাশার দিকে ঠেলে দিচ্ছিলো এই অসহায় মানুষগুলোকে।

মানুষের পাশেতো মানুষই থাকে। চিরাচরিত সেই ধারণার ব্যতিক্রম এবারেও হল না। পৃথিবীর ইতিহাসে দেখা গিয়েছে, যে কোনও বড়ো বিপর্যয়ের সময় মানুষের তরে মানুষ,পাশে দাঁড়ানোর গৌরবোজ্জ্বল অধ্যায় রচিত হয়েছে। এবারেও এই তথাকথিত বিবেকহীন শহরের কিছু মানুষ এই অসহায় মানুষগুলোর পাশে দাঁড়ালো। যারা এদের পাশে দাঁড়ালো, তাদেরকেও এই সমাজ দূরে সরিয়ে রাখে। স্বাভাবিক সময়ে এদের মানুষ হিসাবেই সম্মান দেয় না। সেই রূপান্তরকামীদের সহমর্মিতা পেলো এই অন্ত্যজ পতিতারা। প্রতিদিন নিয়ম করে এই রূপান্তরকামীদের সঙ্গে আরও বেশকিছু মানুষ একজোট হয়ে প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় শাকসবজি, চাল, ডাল, সাবান, শুকনো খাবার জুগিয়ে চলেছে এই পতিতা ও তাদের সন্তানদের।

পশ্চিমবঙ্গ শিশু সুরক্ষা কমিশনের মাধ্যমে প্রথম কালীঘাটের অসহায় শিশুদের কথা তুলে ধরেন। শিশু সুরক্ষা কমিশনের মাধ্যমে রূপান্তরকামীদের নিয়ে কাজ করা সংগঠন 'প্রান্ত কথা ' জানতে পারেন এদের অসহায়তার দিনলিপি। এক মুহূর্ত দেরি না করে কলকাতা ও তার আশপাশের রূপান্তরকামীরা এবং তাদের শুভানুধ্যায়ী কিছু নাগরিক নিজেদের চেষ্টায় এই অসহায় মানুষগুলোর পাশে দাঁড়াতে শুরু করেন তার শিশু সুরক্ষা কমিশনের চেয়ারপার্সন অনন্যা চক্রবর্তী জানিয়েছেন, কালীঘাট শুধু নয়, খিদিরপুর, বৌবাজার, সোনাগাছি সহ কলকাতার বিভিন্ন পতিতাপল্লীর মানুষ চূড়ান্ত অসহায় অবস্থার মধ্যে আছে। আমাদের প্রত্যেকেরই উচিত এদের পাশে দাঁড়ানো। কিন্তু রূপান্তরকামীরা যেভাবে পাশে দাঁড়িয়েছে তাকে কুর্নিশ করা ছাড়া আর অন্য কোন উপায় জানা নেই।

এই এই দমবন্ধ করা দিনে সঠিকভাবে শারীরিক দূরত্ব তৈরি করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এই অন্য মানুষ গুলো দেখিয়ে দিল কীভাবে ভালোবাসার নৈকট্য তৈরি করা যায়!

ABHIJIT CHANDA

Published by: Ananya Chakraborty
First published: April 5, 2020, 4:44 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर