Work From Home-এ ক্লান্ত! কাজ করতে চান রাজবাড়ি বা গাছবাড়ি'তে থেকে, নয়া ব্যবস্থা আনছে IRCTC

work from hotel: সাধ্যের মধ্যেই রাখা হবে খরচ, জানাচ্ছে সংস্থা

work from hotel: সাধ্যের মধ্যেই রাখা হবে খরচ, জানাচ্ছে সংস্থা

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা আবহে মানুষ অভ্যস্ত হয়ে উঠেছে ওয়ার্ক ফ্রম হোমে। যদিও লকডাউন হোক বা সংক্রমণের ভয় ঘরে থাকতে থাকতে মানুষ কিছুটা হলেও মানসিক ভাবেও বিধ্বস্ত। এই অবস্থায় চমক নিয়ে হাজির কেন্দ্রীয় সরকারের সংস্থা আই আর সি টি সি৷ এবার তারা চালু করছে ওয়ার্ক ফ্রম হোটেল৷ ইতিমধ্যেই তারা এই ব্যবস্থা চালু করে দিয়েছে কেরালায়। খুব শীঘ্রই এই ব্যবস্থা চালু হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গে।

শান্তিনিকেতন, সুন্দরবন, দার্জিলিং, মন্দারমণি ও বেশ কিছু রাজবাড়ির সাথে তারা এই বিষয়ে চুক্তি করতে চলেছে। যেখানে গিয়ে অফিসের কাজ করা যাবে হোটেলে বসেই। সঙ্গে থাকা পরিবার তারা কিছুটা খোলা হাওয়ায় শ্বাস নেবে। ওয়ার্ক ফ্রম হোটেলে'র জন্যে যে সব ব্যবস্থা দেখা হচ্ছে। প্রথমত গোটা হোটেল, রিসর্ট বা রাজবাড়ী যাই হোক না কেন সেটা যেন সম্পূর্ণ ভাবে কোভিড প্রটোকল মেনে চলে। ঘর পুরোপুরি স্যানিটাইজ হতে হবে। থাকতে হবে স্ট্রং ওয়াই ফাই। থাকবে পার্কিং এর ব্যবস্থা। এর পাশাপাশি যারা ওয়ার্ক ফ্রম হোটেল করবেন তাদের জন্যে থাকবে ব্রেকফাস্ট, লাঞ্চ ও ডিনার। এছাড়া দু'বার করে থাকবে চা-কফির ব্যবস্থা। সাত দিনের এই প্যাকেজ পাওয়া যাবে মাথাপিছু ১০ হাজার টাকার মধ্যে।

ইতিমধ্যেই কেরলে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ওয়ার্ক ফ্রম হোটেল। একাধিক করপোরেট সংস্থা তাদের কর্মীদের এই সুবিধা দিয়েছে। পশ্চিমবঙ্গেও আই টি প্রফেশনাল'রা এই সুবিধা পাবেন বলে আশাবাদী আই আর সি টি সি। সংস্থার জেনারেল ম্যানেজার দেবাশিষ চন্দ্র জানিয়েছেন, "পূর্ব ভারত পর্যটনের খনি। কিন্তু আমাদের সেই ব্যবসা করোনার জন্যে সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে গেছে। মানুষ দীর্ঘ দিন ঘরে ঘরে থেকে থেকে ক্লান্ত। আমরা তাই পর্যটনকে নতুন মোড়কে হাজির করেছি। ইতিমধ্যেই আমরা একাধিক হোটেল, রিসর্ট, রাজবাড়ীর সাথে কথা বলে নিয়েছি। আমাদের চেষ্টা সাধ্যের মধ্যেই সাধ পূরণ যাতে হয়। সেই কারণেই খরচ যাতে মানুষের পকেটের মধ্যেই থাকে সেই চেষ্টা করা হয়েছে।" বিভিন্ন হোটেল হয় স্যাটেলাইট হাসপাতাল নয়তো বন্ধ অবস্থায় পড়ে আছে। এই অবস্থায় ওয়ার্ক ফ্রম হোটেল ব্যবস্থা থেকে তাদেরও কিছুটা লাভ হবে বলে তারা আশাবাদী। আপাতত বুকিং করা যাবে www.irctctourism.com থেকে।

Published by:Ananya Chakraborty
First published: