corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনার রক্তচক্ষু মহানগরে, লকডাউনে সদাসতর্ক কলকাতা পুলিশ ও সিপি, দৌড়ে বেড়াচ্ছেন গোটা শহরে

করোনার রক্তচক্ষু মহানগরে, লকডাউনে সদাসতর্ক কলকাতা পুলিশ ও সিপি, দৌড়ে বেড়াচ্ছেন গোটা শহরে

থানার আধিকারিক শুধু নন, পুলিশ কর্তারাও দৌড়ে বেরচ্ছেন শহরের বিভিন্ন প্রান্তে।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা ভাইরাস থেকে মানুষকে সচেতন করতে রাস্তায় পুলিশ। কখনও নাকা চেকিং এ, কখনও এলাকায় টহল দিচ্ছে উর্দিধারী। নরমে-গরমে বোঝাচ্ছেন বাড়িতে থাকার কথা। থানার আধিকারিক শুধু নন, পুলিশ কর্তারাও দৌড়ে বেরচ্ছেন শহরের বিভিন্ন প্রান্তে। লালবাজারের টপ বস ও সেই তালিকা আছেন। কখনও শহর পরিদর্শন, কখনও থানা পরিদর্শন আবার কখনও মাস্ক বিতরন করে মিষ্টি ভাবে জানান দেওয়া মাস্কটা বাধ্যতামূলক। শহরকে করোনা মুক্ত করার জন্য একাধিক দাইত্ব তার। মিটিং-প্ল্যানিং সবই চালাচ্ছে অনুজ শর্মা।

এই সব জায়গায় ছাড়াও তার নজর থাকছে, তার অফিসিয়াল ট্যুইটার অ্যাকাউন্টে। বিভিন্ন এলাকার ডেপুটি কমিশনার ট্যুইট করা ছবি থেকে অভিযোগ সবই তার নজরে। রবিবারই সুদীপ্ত সেনগুপ্ত নামে এক ব্যাক্তি ট্যুইট করে জানান, অত্যাবশ্যকীয় পন্য যাতায়াতের জন্য যে অনুমতি দেওয়া হচ্ছে অনলাইনে, তাতে তিনিও আবেদন জানান। তার সংস্থাটি জরুরি পরিসেবার সঙ্গে যুক্ত, কোম্পানির আই-ডি ও চিঠি দেওয়া হয়েছে। তার জন্য সাহায্য চাই। এই ট্যুইট কিছু সময়ের মধ্যেই দেখেন কলকাতা পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা। সেটি দেখেই তিনি তার সহকর্মী যুগ্ম কমিশনার (অপরাধ) মুরলী ধরকে বিষয়টি দেখার নির্দেশ দেন। সেইখানেই "ওকে স্যার" বলে উত্তর ও দেন মুরলী ধর।

যদিও এটি প্রথমবার নয়, আগেও এই ধরনের বিভিন্ন সাহায্য মিলেছে ট্যুইট করার মাধ্যমে। লকডাউনে যখন সবাই ঘর বন্দি তখন কলকাতা পুলিশের একটাই বার্তা " আপনি বাড়ি থাকুন, দরকার হলে বলুন পাশে আছি" যা শুনে অনেকেই আশ্বস্ত বোধ করছেন।

Susovan Bhattacharjee
Published by: Ananya Chakraborty
First published: April 19, 2020, 10:27 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर