corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনে বেসামাল পোর্টব্লেয়ার, জরুরী পরিষেবা স্বাভাবিক রাখতে মঙ্গলবার হাইকোর্টে অনলাইন শুনানি

লকডাউনে বেসামাল পোর্টব্লেয়ার, জরুরী পরিষেবা স্বাভাবিক রাখতে মঙ্গলবার হাইকোর্টে অনলাইন শুনানি

অনলাইনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আন্দামান থেকে হবে জরুরি শুনানি

  • Share this:

#কলকাতা: প্রকৃতির ক্যানভাসে আঁকা সুন্দর দিগন্তের ছবি বলতেই মনের কোণে ভেসে ওঠে আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের স্ফটিকের মতো স্বচ্ছ বিপুল জলরাশি। কেন্দ্রীয় শাসিত অঞ্চল আন্দামান ও নিকোবর। জলপথ এবং আকাশ পথে দেশের মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে যুক্ত হয় দ্বীপপুঞ্জ গুলি। দেশজুড়ে লকডাউন সিদ্ধান্ত সেখানেও বলবত হয়েছে। জরুরী পরিষেবা সঙ্গে যুক্ত একাধিক বিষয়ে দেশের মূল ভূখণ্ডের ওপর নির্ভরশীল আন্দামান। লকডাউন জরুরী পরিষেবা মিলছেনা আন্দামান ও নিকোবর এমনই ইলেকট্রনিক মেইল মারফত কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির কাছে অভিযোগ আসে। আইনজীবীর অভিযোগ খতিয়ে দেখে বিষয়টির গুরুত্ব অনুধাবন করে প্রধান বিচারপতির বেঞ্চ। আন্দামানের পরিস্থিতি সরেজমিনে খতিয়ে দেখতে একটি নজরদারি কমিটি গড়ে দেয় প্রধান বিচারপতি টি বি রাধাকৃষ্ণন এবং বিচারপতি দীপঙ্কর দত্তের বিশেষ বেঞ্চ। ৩০ মার্চের মধ্যে ইমেইল মারফত রিপোর্ট পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয় কমিটিকে। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সরকার আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের মানুষের জরুরী পরিষেবা স্বাভাবিক রাখতে কী পদক্ষেপ করেছে তাও জানতে চায়। রাজ্যের মুখ্য সচিবের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকার কে কলকাতা হাইকোর্টের বিশেষ বেঞ্চ এর বার্তা পৌঁছে দেওয়া হয়। সোমবার কেন্দ্রীয় সরকার আন্দামানের পরিস্থিতি নিয়ে হাইকোর্ট রেজিস্ট্রার জেনারেলের কাছে রিপোর্ট পাঠিয়েছে। মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় সরকারের আন্দামান পরিস্থিতি রিপোর্ট খতিয়ে দেখে পরবর্তী নির্দেশ দান করবে প্রধান বিচারপতির বিশেষ বেঞ্চ। আন্দামানের সঙ্গে মূল ভূখণ্ডের যোগাযোগ পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন এই মুহূর্তে। তাই অনলাইনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আন্দামান থেকে হবে জরুরি শুনানি। প্রয়োজনে হোয়াটস্যাপ ব্যবস্থার সাহায্য নেওয়া হবে বলে ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে বিশেষ বেঞ্চ। খাদ্য, ওষুধ, চিকিৎসা, করোনা আইসোলেশনের ব্যবস্থার খোঁজ হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমেই নেওয়া হতে পারে। আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপ অঞ্চলের করোনা লকডাউন পরিস্থিতি মোকাবিলায় যেভাবে দ্রুত পদক্ষেপ করেছে কলকাতা হাইকোর্ট তা সাম্প্রতিক সময়ে নজিরবিহীন বলছেন আইনজীবীরা।

ARNAB HAZRA

First published: March 30, 2020, 10:33 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर