• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • ফের কলকাতায় ওলা চালকের বিরুদ্ধে হেনস্থার অভিযোগ

ফের কলকাতায় ওলা চালকের বিরুদ্ধে হেনস্থার অভিযোগ

ফের ওলা চালকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠল কলকাতায় ৷ এবারে শুধু অভব্যতা বা অশালীন আচরণ নয়, এক তরুণীকে মারধরের অভিযোগ উঠল এক ওলা ক্যাব চালকের বিরুদ্ধে ৷

ফের ওলা চালকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠল কলকাতায় ৷ এবারে শুধু অভব্যতা বা অশালীন আচরণ নয়, এক তরুণীকে মারধরের অভিযোগ উঠল এক ওলা ক্যাব চালকের বিরুদ্ধে ৷

ফের ওলা চালকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠল কলকাতায় ৷ এবারে শুধু অভব্যতা বা অশালীন আচরণ নয়, এক তরুণীকে মারধরের অভিযোগ উঠল এক ওলা ক্যাব চালকের বিরুদ্ধে ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: ফের ওলা চালকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠল কলকাতায় ৷ এবারে শুধু অভব্যতা বা অশালীন আচরণ নয়, এক তরুণীকে মারধরের অভিযোগ উঠল এক ওলা ক্যাব চালকের বিরুদ্ধে ৷ ঘটনাটি ঘটেছে বেনিয়াপুকুরের দরগা রোডে ৷ নিগৃহীতা তরুণীর নাম রিনি শীল ৷ অভিযুক্ত ওলা চালকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি ৷

    পেশায় ফ্যাশন ডিজাইনার রিনি শীল জানিয়েছেন, শনিবার ভোরে তিনি যখন গাড়ি নিয়ে বেনিয়াপুকুরের দরগা রোডের দিকে যাচ্ছিলেন, তখন এক ওলা ক্যাব এসে তাঁর গাড়ির পিছনে ধাক্কা মারে ৷ চার নম্বর লোহাপুলের কাছে ভোরের রাস্তা তখন একদম ফাঁকা ৷ রিনির অভিযোগ, তাঁর গাড়িতে ধাক্কা মারার পর ওলা চালক গাড়ি থেকে নেমে উল্টে তাঁকেই হুমকি দিতে শুরু করে ৷

    চালকের অভব্য আচরণের প্রতিবাদ জানালে রিনির গাড়ির চাবি কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন অভিযুক্ত ওলা ড্রাইভার ৷ ঝামেলা থেকে নিজেকে বাঁচাতে পড়িমরি গাড়িতে স্টার্ট দিয়ে বাড়ি চলে আসেন রিনি ৷ কিন্তু তাতেই নিস্তার মেলেনি ৷ রিনির গাড়ির পিছু নিয়ে ওলা চালক বাড়ি বয়ে এসে তাঁর বাবা ও ভাইকেও হুমকি দেন বলে অভিযোগ ৷ এই অসভ্যতায় বিরক্ত হয়ে ওলা ক্যাবটির নম্বর নিয়ে বেনিয়াপুকুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ওই তরুণী ৷ তাঁর ভয়, বাড়ি চিনে নিয়েছে ওই ড্রাইভার ৷ এবার যদি অতর্কিত হামলা চালায় ৷

    এর আগে ওলা ড্রাইভারদের বিরুদ্ধে এ শহরের বুকে অভব্যতা ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে ৷ হলুদ ট্যাক্সির রিফিউজাল শুনতে শুনতে বিরক্ত শহরবাসী সবে ওলার মতো অনলাইন ক্যাবের পরিষেবায় খুশি হতে শুরু করেছিল ৷ কিন্তু মাত্র কয়েকমাসের ব্যবধানে অনলাইন ক্যাব চালকদের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ ওঠায় আতঙ্কিত কলকাতাবাসী ৷

    First published: