‘আপনার ট্যুইট ও মন্তব্য খারাপ লাগছে, এসময় সরকারের পাশে দাঁড়ানো উচিত’, রাজ্যপালকে মমতার চিঠি

‘আপনার ট্যুইট ও মন্তব্য খারাপ লাগছে, এসময় সরকারের পাশে দাঁড়ানো উচিত’, রাজ্যপালকে মমতার চিঠি
জগদীপ ধনখড় ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
  • Share this:

#কলকাতা: এবার রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের চিঠির প্রাপ্তি স্বীকার করে পাল্টা চিঠি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ৷ রাজ্যের অশান্ত পরিস্থিতিতে প্ররোচনা নয়, শান্তিরক্ষায় সহযোগিতার আর্জি জানিয়ে রাজ্যপালকে চিঠি পাঠালেন মুখ্যমন্ত্রী ৷ যদিও রাজ্যপালের তলবের জবাবে মুখ্যমন্ত্রীর চিঠি দেওয়ার কথা জানতে পেরেই জগদীপ ধনখড় পাল্টা ট্যুইট করে জানান, ‘তিনি বা তাঁর দফতর কোনও চিঠি পায়নি ৷’ পরে

মুখ্যসচিব ও ডিজি সাড়া না দেওয়ায় এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই ডাকেন রাজ্যপাল । আইনশৃঙ্খলা নিয়ে আলোচনার জন্য মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রীকে রাজভবনে আহ্বান জানান জগদীপ ধনখড়। শান্তিশৃঙ্খলা ভঙ্গে ইন্ধন না দিয়ে সাংবিধানিক দায়িত্ব মেনে সরকারকে সাহায্য করা উচিত। চিঠিতে জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । তিনি লিখেছেন, ‘রাজ্য সরকার এবং সরকারি আধিকারিকদের সমালোচনা করে যে ভাবে আপনি ঘনঘন টুইট করেছেন এবং সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন তা বেদনার। আপনি জেনে নিঃসন্দেহে খুশি হবেন দেশ জুড়ে যা চলছে তার মধ্যে রাজ্যে শান্তি বজায় রাখাই এখন রাজ্য প্রশাসনের প্রধান লক্ষ্য। শান্তিশৃঙ্খলা ভঙ্গে ইন্ধন না দিয়ে সাংবিধানিক দায়িত্ব মেনে সরকারকে সাহায্য করা উচিত।’

সোমবার সকাল থেকেই ট্যুইট। আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রাজ্যপাল। বিকেলের ট্যুইটে জানা গেল, রাজ্যপাল ডেকেছেন মুখ্যমন্ত্রীকে। ট্যুইটে জগদীপ ধনখড় লিখেছেন, ‘পরিস্থিতির গুরুত্ব বুঝে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মঙ্গলবার রাজভবনে ডেকেছি। মুখ্যমন্ত্রী তাঁর সময় মত আসুন। মুখ্যমন্ত্রীর থেকে রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে খোঁজখবর নেব। মুখ্যসচিব ও ডিজিপির থেকে কোনও সাড়া মেলেনি। এটা দুর্ভাগ্যের এবং তাঁদের থেকে অপ্রত্যাশিত ৷’

cm letter to governor

রাজভবন থেকে এরপরের ট্যুইটে বলা হয়, বিভিন্ন সূত্র মারফত তারা জানতে পেরেছে, মুখ্যমন্ত্রী নাকি রাজ্যপালকে চিঠিতে জবাব দিয়েছেন। সন্ধের দিকে, নবান্নে সূত্রে জানানো হয়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যপালকে চিঠি দিয়েছেন। পাল্টা ট্যুইট করে রাজ্যপাল জানান, তিনি কোনও চিঠি পাননি ৷যদিও পরে চিঠি দিয়ে প্রাপ্তি স্বীকার করে ফের মমতার সমালোচনায় মুখর রাজ্যপাল ৷

এই চিঠি-সংঘাতের মধ্যেই আসরে নেমে পড়ে তৃণমূল। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরোধিতায় গত কয়েক দিন ধরেই রাজ্যের নানা প্রান্তে অশান্তি। পরিস্থিতির কথা জানতে সোমবার সকাল ১০টায় মুখ্যসচিব ও রাজ্য পুলিশের ডিজিকে রাজভবনে তলব করেন রাজ্যপাল। কিন্তু, দু’জনের কেউই এ দিন রাজভবনে যাননি। এরপরই মুখ্যমন্ত্রীকে রাজভবনে ডেকে পাঠান রাজ্যপাল। মুখ্যমন্ত্রী চিঠিতে যার জবাব দেন। মুখ্যমন্ত্রীর চিঠি পেয়ে ফের পালটা ট্যুইট করেন রাজ্যপাল।

First published: 08:48:12 PM Dec 16, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर