Mamata Banerjee: সোমবারে হোম-ম্যাচ , নিয়ম ভেঙে সকাল সকাল ভোট দেবেন মমতা

Mamata Banerjee: সোমবারে হোম-ম্যাচ , নিয়ম ভেঙে সকাল সকাল ভোট দেবেন মমতা

রাত পোহালেই ভোট দেবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রীর চলাফেরা যেহেতু এখনও হুইলচেয়ারের উপরেই নির্ভরশীল, তাই এই র‍্যাম্পের সাহায্য নিয়েই তাঁকে ভোটদান করতে হবে।

  • Share this:

    #কলকাতা: রাত পোহালেই শুরু হয়েছে সপ্তম দফার ভোট। যে ৩৪ টি আসনে ভোট সপ্তম দফায় (Bengal Election 7th Phase), তার একটি ভবানীপুর। গোটা রাজ্যেই জানে, এই কেন্দ্রই মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) ঘরের মাঠ। প্রতিবারের মতো এবারও এই কেন্দ্রের মিত্র ইন্সটিটিউশানে ভোট দেবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সূত্রের খবর, তিনি এবার ভোটদান করবেন সকাল দশটা থেকে সাড়ে দশটার মধ্যে। সূত্রের খবর ইতিমধ্যেই ভবানীপুর মিত্র ইন্সিটিটিউশনে র‍্যাম্প তৈরি হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর চলাফেরা যেহেতু এখনও হুইলচেয়ারের উপরেই নির্ভরশীল, তাই এই র‍্যাম্পের সাহায্য নিয়েই তাঁকে ভোটদান করতে হবে।

    প্রতিবছর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভোট দেন বিকেলে। গোটা দিন ধরে পরিস্থিতির উপর নজর রাখেন বাড়ি থেকেই, যোগাযোগ রাখেন দলের শীর্ষনেতৃত্বদের সঙ্গে। তারপর বিকেলে ভোট দিতে যান তিনি। কিন্তু এবার বহু সমীকরণই বদলেছে। এই মাসের প্রথম দিনেই (১ এপ্রিল) প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অগ্নিপরীক্ষা দিয়ে দিয়েছেন। কাজেই এবার তিনি একজন ভোটার, তৃণমূলের সর্বময় কর্ত্রী হিসেবে তাঁর নজর থাকবে ৩৪ টি কেন্দ্রেই, ভবানীপুরে আলাদা করে নজর দিতে হবে না। তার ফলেই হয়তো সকাল সকাল ভোটদান। কমিশন প্রতিটি বুথেই বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ব্যক্তিদের জন্য র‍্যাম্প রাখে। এই বার সেই র‍্যাম্প ব্যবহার করতে হবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

    ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণার আগে এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হঠাৎই ঘোষণা করেছিলেন তিনি নন্দীগ্রামে ভোটে দাঁড়াবেন। এই ঘোষণা একটি জল্পনার জন্ম দেয়। প্রশ্ন উঠতে শুরু করে, তিনি কি একটি কেন্দ্রেই দাঁড়াবেন, নাকি ঘরের মাঠ ভবানীপুরও থাকবে। শেষমেশ দেখা যায় নিজে শুধু নন্দীগ্রাম থেকে লড়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভবানীপুরের যুদ্ধ ছেড়ে দেন বিশ্বস্ত সৈনিক রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের হাতে। রাত পোহালেই তাঁর লড়াই সদ্য তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষের সঙ্গে। প্রবীণ পোড়খাওয়া রাজনীতিবিদ শোভনদেব, দক্ষিণ কলকাতার দীর্ঘদিনের বাসিন্দা। সদালাপি মানুষটির ইমেজে কালির দাগ নেই। তাঁর সঙ্গে লড়াইয়ে রুদ্রনীল ঘোষ কতটা সফল হয় সেটাই এখন দেখার।

    Published by:Arka Deb
    First published:

    লেটেস্ট খবর