corona virus btn
corona virus btn
Loading

NEET, JEE(MAIN) পরীক্ষা কেন্দ্রের কাছে স্থগিতের আর্জি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

NEET, JEE(MAIN) পরীক্ষা কেন্দ্রের কাছে স্থগিতের আর্জি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের
File Photo

এবার এই দুটি প্রবেশিকা পরীক্ষা পিছানোর আর্জি কেন্দ্রের কাছে রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার তিনি পরপর দুটি ট্যুইট করেন।

  • Share this:

#কলকাতা: ইতিমধ্যেই ছাড়পত্র দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। ছাড়পত্র পেয়ে ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি সর্বভারতীয় মেডিক্যাল প্রবেশিকা পরীক্ষা বা নিট এবং সর্বভারতীয় ইঞ্জিনিয়ারিং প্রবেশিকা পরীক্ষা বা JEE (MAIN)  পরীক্ষা নেওয়ার আবার বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। আর এবার এই দুটি প্রবেশিকা পরীক্ষা পিছানোর আর্জি কেন্দ্রের কাছে রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার তিনি পরপর দুটি ট্যুইট করেন।

মুখ্যমন্ত্রীর ট্যুইট, " প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শেষ ভিডিও কনফারেন্সে ইউজিসি-র  তরফে সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে পরীক্ষা নেওয়া নিয়ে যে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছিল তা নিয়ে আমি বলেছিলাম। যে পরীক্ষা ছাত্র-ছাত্রীদের বর্তমান পরিস্থিতিতে ঝুঁকির মধ্যে ফেলতে পারে। এখন কেন্দ্রের শিক্ষামন্ত্রীর নির্দেশে NEET,JEE  পরীক্ষা সেপ্টেম্বরে নেওয়া হবে। আমি আবার কেন্দ্রের কাছে আর্জি রাখবো ছাত্র-ছাত্রীদের এই পরীক্ষা নিয়ে কতটা ঝুঁকি রয়েছে তা বিশ্লেষণ করুন এবং পরীক্ষা স্থগিত রাখুন পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত। এটা আমাদের কর্তব্য ছাত্র-ছাত্রীদেরকে সুস্থ পরিবেশ দেওয়া।"

ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি গত জুলাই মাসে এই দুই প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়ার বিজ্ঞপ্তি জারি করার পর পর সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেন কয়েক জন পরীক্ষার্থীর অভিভাবক। বর্তমানে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে এই দুই প্রবেশিকা পরীক্ষা দিলে ছাত্র-ছাত্রীদের জীবনের ঝুঁকি রয়েছে এই বিষয় নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করা হয়। কিন্তু সেই মামলার রায় পরীক্ষা নেওয়ার ক্ষেত্রে ছাড়পত্র দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট কেন্দ্রকে। গত ২১ অগাস্ট ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সির তরফে তারপর বিস্তারিত বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়।

ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি তরফে জানানো হয় আগামী পয়লা সেপ্টেম্বর থেকে ৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সর্বভারতীয় ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রবেশিকা পরীক্ষা বা JEE MAIN নেওয়া হবে। ইতিমধ্যেই ছাত্র-ছাত্রীদের এডমিট কার্ড ইস্যু করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।৮৫৮২৭৩ জন পরীক্ষার্থী এবছর জেইই মেইন পরীক্ষা দেবে। অন্যদিকে সর্বভারতীয় ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রবেশিকা পরীক্ষা বা NEET পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৫৯৭৪৩৩। ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সির তরফে জানানো হয়েছে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের পরামর্শ মতো পরীক্ষা কেন্দ্রগুলিকে স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কিত সকল জাতি মেনে চলা হয় সেই বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশাবলী দেওয়া হচ্ছে। খুব শীঘ্রই সর্বভারতীয় মেডিক্যালে প্রবেশিকা পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড ইস্যু করা হবে বলেও ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সির তরফে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

এদিনের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কেন্দ্রের কাছে দাবি এবং সেই পরিপ্রেক্ষিতে ট্যুইট আরও পরীক্ষা পিছানোর পক্ষে দাবি জোরালো হবে বলেই মনে করছে একাংশ। ইতিমধ্যেই এ রাজ্যের বেশকিছু ছাত্রসংগঠন পরীক্ষা পেছানোর দাবি নিয়ে আন্দোলনের প্রস্তুতি নিচ্ছে। অন্যদিকে ফাইনাল সেমিস্টার-এর পরীক্ষার ভবিষ্যৎ এখন নির্ভর করছে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের ওপর। ইউজিসির পরীক্ষা নেওয়া নিয়ে যে গাইডলাইন জারি করা হয়েছে তাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে মামলা করা হলেও সেই মামলার রায় খুব শীঘ্রই দিতে পারে সুপ্রিম কোর্ট। সব মিলিয়ে দেখার আদৌ কেন্দ্রের তরফে এই দুই প্রবেশিকা পরীক্ষার আর কোনও দিন পরিবর্তিত হয় নাকি।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: August 24, 2020, 6:39 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर