Football World Cup 2018

বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে ন্যায্যমূল্যে ওষুধের দোকান খুলতে নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Feb 22, 2017 04:50 PM IST
বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে ন্যায্যমূল্যে ওষুধের দোকান খুলতে নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Feb 22, 2017 04:50 PM IST

#কলকাতা: বুধবার টাউন হলের বৈঠকে কড়া ভাষায় বেসরকারি নার্সিংহোম ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষগুলিকে হুঁশিয়ারি দেন মুখ্যমন্ত্রী ৷

লাগামছাড়া বিল, চিকিৎসায় গাফিলতি, স্বচ্ছ্বতার অভাব, দামী পরীক্ষার নির্দেশ। প্রয়োজন ছাড়া আইসিসিইউ, ভেন্টিলেশনে ঢোকানোর পরামর্শ, লাইফ সাপোর্টে অপারেশন, কেস সামারি না দেওয়া টাকা না পেলে মৃতদেহ আটকে রাখা সহ একাধিক অভিযোগ নিয়ে বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষকে নজিরবিহীন ভর্ৎসনা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ তিনি বলেন, ‘সেবাই হাসপাতালের শেষ কথা, সেবা নিয়ে ব্যবসা করা উচিৎ নয় ৷’

অভিযোগ দীর্ঘদিনের। আগুনে ঘিয়ের কাজ করে সিএমআরআইয়ের ঘটনা। চিকিৎসায় গাফিলতিতে রোগী মৃত্যুর অভিযোগে ভাঙচুর হয় সিএমআরআই। আবারও প্রশ্ন ওঠে দামী বেসরকারি চিকিৎসা পরিষেনা নিয়ে। এরপরই বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকে বসার সিদ্ধান্ত নেন মুখ্যমন্ত্রী। আর বৈঠকে প্রথম থেকেই স্বমেজাজে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সব বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষগুলির উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ, ‘আপনারাও ন্যায্যমূল্যের ওষুধের দোকান খুলুন ৷ ১০০ শতাংশ লাভ করতে গিয়ে গলা কাটা বিল করবেন না ৷’

বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিংহোমে নজরদারি রাখতে হেল্থ রেগুলেটরি কমিশন তৈরি করবে রাজ্য। ক্লিনিক্যাল এশটাব্লিশমেন্ট অ্যাক্ট আরও কঠোর করতে আগামী ৩ মার্চ বিল আনা হচ্ছে বিধানসভায়। কোনওভাবেই চিকিৎসার নামে রোগীদের নিয়ে ব্যবসা বরদাস্ত করা হবে না।

একইসঙ্গে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষদের মুখ্যমন্ত্রীর তিরস্কার, ‘২,০৮৮ টি মধ্যে কলকাতায় ৩৭০টি নার্সিংহোম ৷ নার্সিংহোমগুলির বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ ৷ নামী-দামি বেসরকারি হাসপাতাল এই তালিকায় ৷ সরকারের স্বাস্থ্য বিমা থাকা সত্ত্বেও চার্জ করা হচ্ছে ৷ কেন চার্জ করা হচ্ছে বিমার আওতায় থাকা রোগীকে? স্বচ্ছতার অভাব বেসরকারি হাসপাতালগুলিতে ৷ ইচ্ছাকৃত বাড়তি স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে দেওয়া হচ্ছে ৷ এই সবকটা কাজ বেআইনি ৷ বিল না মেটানোয় মৃতদেহ আটকে রাখা হয়েছে ৷ নোট বাতিল,তাও চেকে টাকা নেয়নি হাসপাতালগুলি ৷ অকারণে দামি পরীক্ষা করতে দেওয়া হচ্ছে ৷ ঘটি বাটি বিক্রি করেও চিকি‍ৎসার খরচ মেটাতে পারছেন না রোগীর পরিবার ৷ প্যাকেজের নামে চলছে টাকার খেলা ৷ প্রয়োজন ছাড়াই রোগীকে ICU তে রাখা হচ্ছে ৷ একই ওষুধের নাম বার বার লেখা হচ্ছে ৷ রোগীর পরিবার তা বুঝতেও পারছেন না ৷ কোথায় যাবে রোগীর পরিবার ৷ অযথা ভেন্টিলেশনেও রাখা হচ্ছে রোগীকে ৷ রোগীর পরিবার বিলের ঠেলায় নিঃস্ব হয়ে যাচ্ছে ৷ এত স্বাস্থ্য পরীক্ষার প্রয়োজনীয়তা কোথায়?’

বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষগুলিকে সরকারের তরফে মুখ্যমন্ত্রীর আশ্বাস, ‘ভালো কাজ করলে সরকার সাহায্য করবে কিন্তু ভালো কাজ না করলে সরকার পাশে থাকবে না ৷’

First published: 04:50:00 PM Feb 22, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर