‘গুলি চালানোর ঘটনায় গণতন্ত্র মেনে জ্যোতি বসু, বুদ্ধদেববাবুকে ছোঁব না’, একুশের মঞ্চ থেকে মমতার বার্তা

‘গুলি চালানোর ঘটনায় গণতন্ত্র মেনে জ্যোতি বসু, বুদ্ধদেববাবুকে ছোঁব না’, একুশের মঞ্চ থেকে মমতার বার্তা

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jul 21, 2017 03:25 PM IST
‘গুলি চালানোর ঘটনায় গণতন্ত্র মেনে জ্যোতি বসু, বুদ্ধদেববাবুকে ছোঁব না’, একুশের মঞ্চ থেকে মমতার বার্তা
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jul 21, 2017 03:25 PM IST

#কলকাতা: বছর বছর ১৩ জনের মৃত্যুর প্রতিবাদে ফিরে ফিরে আসে যে সমাবেশ, তারই মঞ্চ থেকে এদিন সেই ঘটনায় কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ গুলি চালানো নিয়ে গঠিত কমিশনের অনুমোদন অনুসারে নিহতদের পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা করে অর্থ সাহায্য করার কথা ঘোষণা করল সরকার ৷

২১ জুলাই গুলি চালানো নিয়ে কড়া অবস্থান নিতে চলেছে রাজ্য সরকার ৷ যারা গুলি চালিয়েছিল তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নতুন করে এফআইআর করবে রাজ্য ৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘গণতন্ত্র মেনে জ্যোতি বসু, বুদ্ধদেববাবুকে ছোঁব না ৷’ যাতে চমকৃত রাজনৈতিক মহল ৷

পট-পরিবর্তনের মঞ্চ। রাজ্য রাজনীতির ইতিহাসে এভাবেই বোধহয় লেখা থাকবে ২১ শে জুলাইয়ের কথা। শহীদ তর্পণ মঞ্চ হিসাবে যার পথচলা শুরু, গত ২৪ বছরে সেটিই দেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক ইভেন্ট । সেই মঞ্চ থেকেই মমতা ঘোষণা করলেন, ‘২১ জুলাই একটা বড় চক্রান্ত ছিল রিপোর্ট দিয়েছে তদন্ত কমিশন ৷’

১৯৯৩ সালে রাইটার্স অভিযানে পুলিশের গুলিতে ১৩ জনের মৃত্যুর প্রতিবাদেই ২১ জুলাই-এর প্রতিবাদ। সমাবেশ। স্লোগান বদলেছে। লক্ষ্য বদলেছে। রাজনৈতিক কৌশলেও বদল এসেছে বারবার। ১৯৯৮ সালে তৃণমূল কংগ্রেসের জন্মের পর জায়গাও বদলাল। কিন্তু তৃণমূল আর ২১ জুলাইকে আলাদা করার কোনও উপায়ই নেই। এই দিনে নিজের বক্তৃতায় দলের কৌশলগত অবস্থানও স্পষ্ট করেন তৃণমূল সুপ্রিমো। গত ১৯ বছর ধরে ২১ জুলাইয়ের বার্তাতেই তা স্পষ্ট। এবারও তাঁর ব্যতিক্রম হল না ৷

শহীদ মঞ্চ থেকেই স্পষ্ট করলেন ২৪ বছর আগের ঘটনা নিয়ে ভবিষ্যত পদক্ষেপ ৷ বললেন,‘২১ জুলাই একটা বড় চক্রান্ত ছিল ৷ রিপোর্ট দিয়েছে তদন্ত কমিশন ৷ কমিশন গড়েছিল আমাদের সরকার ৷ আমাদের অনেক কর্মীর বিরুদ্ধে পরোয়ানা ছিল ৷ কমিশন পরোয়ানা তুলে নিতে বলেছে ৷ আমরা ওই মামলাগুলি তুলে নিচ্ছি ৷ জ্যোতিবাবু, বুদ্ধবাবুকে ছোঁব না ৷ তবে যারা গুলি চালিয়েছিল তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে ৷ কমিশনের সুপারিশ মেনে শহিদ পরিবারগুলিকে ২ লক্ষ টাকা করে সাহায্য করা হবে ৷’

প্রতিবারের মতো এবারও সভায় হাজির রেকর্ড সংখ্যক লোক ৷ তার সঙ্গে সঙ্গতি রেখেই ছিল নিরাপত্তার আয়োজন। লক্ষাধিক লোকের জমায়েতে বিশৃঙ্খলা এড়াতে নজরদারির জন্য গোটা কলকাতা শহর জুড়ে গতবারের থেকে এবার দ্বিগুণেরও বেশি সিসিটিভি লাগানো হয় ৷

২০১১ সালে নিউ ইয়র্ক টাইমের প্রতিবাদে তাই লেখা হয়,পশ্চিমবঙ্গের ওপর এই দিনের প্রভাব আমেরিকার স্বাধীনতা দিবসের মতোই। হাভার্ড ক্রনিকালের বিশ্লেষণ, তৃণমূল কংগ্রেসের এই ইভেন্ট বাংলার মে-ডে।

First published: 03:25:22 PM Jul 21, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर