corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘সরকারি পরিষেবায় স্বচ্ছতা, সপ্তাহে একদিন জনতার দরবার’, জেলা পরিষদের সদস্যদের সঙ্গে বৈঠকে একাধিক নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

‘সরকারি পরিষেবায় স্বচ্ছতা, সপ্তাহে একদিন জনতার দরবার’, জেলা পরিষদের সদস্যদের সঙ্গে বৈঠকে একাধিক নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর
  • Share this:

#কলকাতা: গ্রামেগঞ্জে সমর্থন ধরে রাখতে মরিয়া শাসক শিবির। তাই রাজ্য সরকারি প্রকল্পের সুফল গরিব মানুষ যাতে সঠিক সময়ে পান, জেলা পরিষদের সদস্যদের সেই নির্দেশ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। কোনও বেনিয়ম যে বরদাস্ত করবেন না, তাও বুঝিয়ে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

রাজ্য সরকারের সবচেয়ে বেশি প্রকল্প যাঁদের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রিত হয়, জেলা পরিষদের সেই জনপ্রতিনিধিদের জন্য এবার সরাসরি নির্দেশিকা জারি করলেন মুখ্যমন্ত্রী। সোমবার, নবান্নের সভাঘরে জেলা পরিষদের সদস্য , কর্মাধ্যক্ষ, জেলা সবাধিপতিদের নিয়ে বৈঠক করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নির্দেশ দেন, প্রত্যেক গরিব মানুষের কাছে সঠিক সময়ে যাতে পরিষেবা পৌঁছয় তা নিশ্চিত করতে হবে ৷

কাটমানি কথাটি মুখে না আনলেও কোনও রকম বেনিয়ম যে তিনি বরদাস্ত করবেন না, তা ফের এ দিন বুঝিয়ে দেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর নির্দেশ, ‘সরকারি পরিষেবা দেওয়ার বিনিময়ে কিছু নেওয়া যাবে না। এ বিষয়ে সবাইকে স্বচ্ছ থাকতে হবে।’

জেলা পরিষদের সদস্যদের সাবধানও করে দেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর বার্তা, পরিষেবা দেওয়ার নামে কোনও বেনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না। নিজেদের মধ্যে গন্ডগোল না করে সমন্বয় রেখে উন্নয়নের কাজ করুন ৷

একুশের সমাবেশ থেকে দলের নেতা-কর্মীদের খাটিয়ায় বসে বৈঠক করে জনসংযোগে জোর দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মমতা। এ দিন, নবান্নের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী দাওয়াই নিয়মিত জনতার দরবার ডাকা। তিনি বলেন, ‘মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াতে হবে। সপ্তাহে এক দিন ২ ঘণ্টা করে মানুষের কাছে গিয়ে কথা বলতে হবে। মানুষ যাতে অভিযোগ জানাতে পারে সেই ব্যবস্থা করতে হবে ৷’

মমতার বার্তা, ‘জেলা পরিষদের সদস্য মানে অর্ধেক বিধায়ক। সেই মতো কাজ করুন। আপনাদের উপর অনেক দায়িত্ব।’ পঞ্চায়েতের তিনটি স্তরেই জনপ্রতিনিধিদের ভাতা বাড়ানোর কথাও এ দিন ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। এ দিন মুখ্যমন্ত্রী জানান, জেলা সভাপধিপতি এ বার ভাতা পাবেন ৯ হাজার টাকা ৷ এর জন্য বাড়তি খরচ হবে ২২০ কোটি টাকা৷ ভাতা বাড়ানো হল পঞ্চায়েত সদস্যদেরও৷

First published: July 22, 2019, 7:21 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर