‘মূর্খেরাও জানে একাদশীর দিন বিসর্জন হয় না’, নাম না করে বিজেপিকে আক্রমণ মমতার

‘মূর্খেরাও জানে একাদশীর দিন বিসর্জন হয় না’, নাম না করে বিজেপিকে আক্রমণ মমতার

‘মূর্খেরাও জানে একাদশীর দিন বিসর্জন হয় না’, নাম না করে বিজেপিকে আক্রমণ মমতার

  • Share this:

 #কলকাতা: মহরমের দিন পুজো বিসর্জনে রাজ্যের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে বিজেপির কৌশলের পালটা দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মেয়ো রোডে টিএমসিপি-র ২০ তম প্রতিষ্ঠা দিবসের মঞ্চ থেকে তাঁর তোপ, রাজ্যের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে ধর্মীয় সুড়সুড়ি দিচ্ছে বিজেপি। উৎসবের সময় অশান্তি পাকানোর চক্রান্ত করছে তারা। তা বানচাল করে দিতে টিএমসিপি কর্মীদেরই এগিয়ে আসার বার্তা দিয়েছেন তিনি।

দুর্গাপুজোর বিসর্জন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে শুরু হয় বিতর্ক ৷ বিরোধীদের একাংশ মুখ্যমন্ত্রীর এই নির্দেশে চুড়ান্ত অসন্তোষ প্রকাশ করে ৷ এদিন TMCP-এর প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে সেই প্রসঙ্গই উঠে এল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখে ৷

সোমবার মেয়ো রোডে TMCP-এর অনুষ্ঠানে দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, ‘একাদশীর দিন কোথাও বিসর্জন হয় না ৷’ রাজ্যে উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের বন্যায় সাধারণ মানুষের পাশে তেমন ভাবে দাঁড়াতে দেখা যায়নি গেরুয়াশিবিরের নেতা-কর্মীদের। কিন্তু, পুজোর বিসর্জন নিয়ে রাজ্যের নিষেধাজ্ঞা জারি হতেই ময়দানে নেমে পড়েছেন বিজেপি নেতারা।

তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কুড়িতম বর্ষপূর্তির মঞ্চ থেকে এবার পালটা তোপ দাগলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘গণেশ পুজোর বিসর্জন আর মহরম একসঙ্গে হলে সামলাতে পারবে? পুজো আনন্দের আর মহরম দুঃখের, তাই একদিন বিসর্জন বন্ধ, বিজেপির টাকায় কিছু সংবাদমাধ্যম কুৎসা করছে, কোন মুর্খ আছে মাকে একাদশীর দিন বিসর্জন দেবে?’ একইসঙ্গে বিজেপির বিরুদ্ধে দাঙ্গা বাধানোর অভিযোগ এনে নেত্রী বলেন, ‘দুর্গাপুজোর বিসর্জন নিয়ে ধর্মের নামে দাঙ্গা বাঁধানোর চেষ্টা করছে বিজেপি ৷’

এখানেই শেষ নয় গেরুয়া শিবিরকে সতর্ক করে মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘কাউকে দাঙ্গা করতে দেবেন না ৷ আগে পাঁচকুলা, উত্তরপ্রদেশ সামলান ৷ তারপর পশ্চিমবঙ্গ নিয়ে কথা বলবেন ৷ ধর্মের নামে হিংসা ছড়ানোর চেষ্টা করবেন না ৷ সব ধর্ম নিয়েই আমাদের বাংলা ৷ যে কোনও মূল্যে অশান্তি রুখবই ৷’

দুই সম্প্রদায়ের দুটি বড় উৎসব। আর তাকে ঘিরেই সতর্ক রাজ্য প্রশাসন। বিজয়া দশমীর পরের দিনই মহরম। একাদশী ও মহরম একইদিনে পড়ায় হিন্দু ও মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে সম্প্রীতি রক্ষার কারণে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্দেশ দেন, গতবারের মতো এবারও মহরমের দিন বিসর্জন হবে না। পরিবর্তে লক্ষ্মীপুজোর আগের দিন পর্যন্ত বিসর্জন চলবে।

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী, - ৩০ সেপ্টেম্বর বিজয়া দশমীর দিন সন্ধে ৬ পর্যন্ত বিসর্জন দেওয়া যাবে ৷ তারপর আবার ২-৪ অক্টোবর বিসর্জন দেওয়া যাবে ৷ ৩ অক্টোবর রেড রোডে হবে পুজো কার্নিভাল ৷

যুব বিশ্বকাপের ফাইনালের কথা মাথায় রেখে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ,

- ৫ অক্টোবরের মধ্যে খুলতে হবে পুজো প্যান্ডেল

- খুলে ফেলতে হবে সমস্ত হোর্ডিং ও ফ্লেক্স

রাজ্যে নানা উৎসবকে ঘিরে মাঝে মাঝেই শক্তিপরীক্ষায় নেমেছে বিজেপি। রামনবমী ও হনুমান জয়ন্তীতে অস্ত্রমিছিলও দেখেছে রাজ্য। তা নিয়ে বিজেপির নাম না করে সতর্কবার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। দুই সম্প্রদায়ের উৎসব ঘিরে রাজনৈতিক উসকানি নিয়েও সতর্ক করে দিয়েছেন তিনি।

First published: 03:55:02 PM Aug 28, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर