corona virus btn
corona virus btn
Loading

খেলনা কেনার জন্য জমানো টাকা মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দিলো চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র ! 

খেলনা কেনার জন্য জমানো টাকা মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দিলো চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র ! 

শিশুটির এই মানবিকতা দেখে উপস্থিত লোকজনের চোখে জল চলে আসে !

  • Share this:

#বালি: তিল তিল করে  জমানো টাকা  করোনা আক্রান্তদের জন্য দান করলো বালির  এক ক্ষুদে ছাত্র। ইচ্ছে ছিল টাকা জমিয়ে একটা ডিজিটাল গেম কেনার, না হলে একটা ট্যাব যা দিয়ে পড়াশোনা থেকে ফুরসত পেলে একটু গেম খেলবে বা গ্রপ এডুকেশনেও কাজে লাগবে |  ইংরেজি মাধ্যমের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র অভিলাশ চ্যাটার্জী নিজেই সেই ইচ্ছাকে চেপে রেখে সাধারণের পশে এসে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেললো, টিভিতে করোনার প্রভাব ও দিন আনা দিন খাওয়া মানুষদের অবস্থা দেখে মঙ্গলবার রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে মায়ের কাছে গল্প শুনতে শুনতে হঠাৎ তার ইচ্ছে প্রকাশ করে বসলো।

মা-বাবা আত্মীয়-স্বজনদের কাছ থেকে পাওয়া উপহারের টাকা   জমিয়েছিল সে।  সেই জমানো টাকা গরিবদের দানের ইচ্ছে প্রকাশ করে, ছোট্ট শিশু। সেই আবদারে সারা দিয়ে পরিবারও ঠিক করে ছেলের জমানো টাকা না দিয়ে নিজের ব্যাঙ্ক থেকে টাকা তুলে ছেলের ইচ্ছাকে সফল করবেন । কিন্তু ছেলেও নাছোড় বান্দা।   তার জমানো টাকাই দিতে হবে। ছেলের মতকে সম্মান দিয়েই সেই রাতে মানিবক্স খুলে জমানো অর্থ গোনার কাজ শুরু হয় |  শখের জমানো টাকায় যেই এই মানুষের কতটা কাজে লাগবে তা হয়তো এখন সে বুঝতে পারছে না ছোট্ট ছেলেটি। মনের ইচ্ছা আর শখ ভুলে  তার ছোট টিনের বাক্সটি নিয়ে মা বাবার হাত ধরে হাজির হয় বালির থানায় | জমানোর টাকার বাক্স হাতে সৃষ্টিকে দেখে একটু হকচকিয়ে গিয়েছিলেন থানার বড় বাবু  রিয়াজুল কবির।   টাকার বাক্স পুলিশের হাতেদিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে সে টাকাটা পৌঁছে দিতে চায়। সেই আবদার শুনে বড়োবাবু ও থানায় উপস্থিত পুলিশ কর্মীরাও কিছুটা স্তম্ভিত হয়ে যায় | শিশুটির এই রূপ মানবিকতা দেখে উপস্থিত  কারো কারো চোখের কোনও চিক চিক করে উঠেছিল। ওই টুকু ছেলে....। কতজনায় তো কত কিছুই দেয় কিন্তু এই খুদে টির এই দান যেন বিশ্ব জুড়ে যে কঠিন পরিস্থির লড়াইয়ে সামিল বিশ্ব বেশি সেই লড়াইয়ে কিছুটা শক্তি যুক্ত হলো বলে দাবি পুলিশ কর্মীদের | টাকার বাক্স পুলিশের হাতে তুলে দিয়ে তার একটাই দাবি যে সব মানুষ গুলো বাইরে ঘুরছেন লক ডাউন উপেক্ষা করে তাদের যেন ঘরে ঢুকতে বলে পুলিশ কাকুরা ।

DEBASISH CHAKRABORTY

Published by: Piya Banerjee
First published: April 2, 2020, 11:48 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर