• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • সাদার্নকে সমীহ ইস্টবেঙ্গলের, দল নিয়ে ধোঁয়াশায় মর্গ্যান

সাদার্নকে সমীহ ইস্টবেঙ্গলের, দল নিয়ে ধোঁয়াশায় মর্গ্যান

 শনিবার সাদার্নের ব্যারিকেড টপকে গিয়ে লিগ জয়ের রাস্তায় আরও এক পা এগিয়ে যেতে চান ইস্টবেঙ্গল কোচ ট্রেভর জেমস মর্গ্যান।

শনিবার সাদার্নের ব্যারিকেড টপকে গিয়ে লিগ জয়ের রাস্তায় আরও এক পা এগিয়ে যেতে চান ইস্টবেঙ্গল কোচ ট্রেভর জেমস মর্গ্যান।

শনিবার সাদার্নের ব্যারিকেড টপকে গিয়ে লিগ জয়ের রাস্তায় আরও এক পা এগিয়ে যেতে চান ইস্টবেঙ্গল কোচ ট্রেভর জেমস মর্গ্যান।

  • ETV
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা:  কলকাতা লিগের তথাকথিত ছোট দলের মধ্যে শক্তিশালী দল গড়েছে সাদার্ন সমিতি। শনিবার সাদার্নের ব্যারিকেড টপকে গিয়ে লিগ জয়ের রাস্তায় আরও এক পা এগিয়ে যেতে চান ইস্টবেঙ্গল কোচ ট্রেভর জেমস মর্গ্যান। লিগে টানা ষষ্ঠ জয় তুলে নিতে মরিয়া লাল-হলুদ শিবির।

    বারাসতের কৃত্রিম ঘাসের মাঠেই সাদার্ন ম্যাচের প্রস্তুতি সেরে নিলেন ইস্টবেঙ্গল কোচ ট্রেভর জেমস মর্গ্যান। টানা ৫ ম্যাচ জিতলেও ডং-রফিকদের খেলায় এখনও পুরনো ঝাঁঝ খুঁজে পাওয়া যায়নি। ফলে বেশ চিন্তায় লাল-হলুদ শিবির। অস্বস্তিতে রয়েছেন মর্গ্যানও। এই অবস্থায় ইচে-দীপক-অসীমদের বিরুদ্ধে নামার আগে চাপ বাড়ছে লাল-হলুদে। ম্যাচের আগের দিন প্রথম এগারো নিয়েও ধোঁয়াশা রাখলেন ব্রিটিশ কোচ। অবিনাশ রুইদাস পুরো সুস্থ নন। একান্তই না পারলে বিকাশ জাইরু খেলবেন। নারায়ণ দাসের বদলে রবার্টকেও তৈরি রাখা হচ্ছে। ডং-কে শুরু থেকে নামিয়ে দিয়ে প্রেসিং ফুটবল খেলানোর ভাবনাও রয়েছে। তবে মুখে অবশ্য বিপক্ষকে সমীহ করছেন মর্গ্যান।

    সাদার্ন ম্যাচ খেলেই জাতীয় শিবিরে যোগ দিতে যাবেন ইস্টবেঙ্গলের পাঁচ ফুটবলার। পরের ম্যাচে অর্নব, রফিকদের পাওয়া যাবে না। তাই সাদার্নকে হারিয়ে চাপমুক্ত হতে মরিয়া ইস্টবেঙ্গল।

    অন্যদিকে চার ম্যাচে সাত পয়েন্ট রয়েছে সাদার্ন সমিতির ৷ শনিবার বারাসতে ইস্টবেঙ্গলকে হারিয়েই লিগ টেবলের ওপরের দিকে পৌঁছতে চাইছে সাদার্ন সমিতি। মোহনবাগানের বিরুদ্ধে লড়েও হারতে হয়েছিল সাদার্নকে। অসীম-ইচে-দীপক-বসন্ত সিং-স্নেহাশিস চক্রবর্তী-অ্যান্টনি সোরেনদের মতো একঝাঁক বড় দল ফেরত ফুটবলার রয়েছেন সাদার্নে। অভিজ্ঞ ফুটবলারদের দিয়েই লাল-হলুদকে থামানোর অঙ্ক কষছেন সাদার্ন কোচ সুব্রত ভট্টাচার্য। ফুটবলাররাও নিজেদের উজাড় করে দিতে তৈরি।

    First published: