ফের ১০০ দিনের কাজের টাকা আটকাল কেন্দ্র

ফের ১০০ দিনের কাজের টাকা আটকাল কেন্দ্র ৷ ৩ মাস ধরে চেয়েও পাওয়া যাচ্ছে না টাকা ৷

Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Aug 14, 2017 05:23 PM IST
ফের ১০০ দিনের কাজের টাকা আটকাল কেন্দ্র
Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Aug 14, 2017 05:23 PM IST

#কলকাতা: ফের ১০০ দিনের কাজের টাকা আটকাল কেন্দ্র ৷ ৩ মাস ধরে চেয়েও পাওয়া যাচ্ছে না টাকা ৷ কেন্দ্রের কাছে বকেয়া রয়েছে দেড় হাজার কোটি টাকা আটকে রয়েছে ১০০ দিনের শ্রমিকদের মজুরি ৷ জেলাগুলিতে থমকে রয়েছে ১০০ দিনের কাজ ৷ এই নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করবেন সুব্রত মুখোপাধ্যায় ৷ কেন্দ্রের বিরুদ্ধে কী পদক্ষেপ? মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পরই তা হবে চূড়ান্ত ৷

১০০ দিনের কাজ নিয়ে এর আগেও কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাত হয়েছিল ৷ মজুরি হিসেবে শ্রমিকদের অ্যাকাউন্টে সরাসরি টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রের মোদি সরকার ৷ সিদ্ধান্তের পুনর্বিবেচনা চেয়ে প্রধানমন্ত্রীকে কড়া চিঠি মুখ্যমন্ত্রীর ৷ চিঠিতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবি জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷

‘ এই সিদ্ধান্ত যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয় আঘাত ৷ কেন্দ্রের বিভিন্ন প্রকল্পে রাজ্যের শেয়ার থাকে ৷ রাজ্যের তত্ত্বাবধানে প্রকল্প চালু হয়ে থাকে ৷ কেন্দ্রের বরাদ্দ দেরিতে এলে রাজ্য টাকা দেয় ৷ রাজ্য টাকা দিয়ে প্রকল্প চালু রাখে ৷ ১০০ দিনের কাজে বকেয়া কেন্দ্রীয় বরাদ্দ ৷ কাজ চালু রাখতে ৫০০ কোটি টাকা দেয় রাজ্য ৷ চলতি বছরের ২৫ অক্টোবর টাকা দেয় রাজ্য ৷ সরাসরি মজুরি দিলে ফল হবে ভয়ঙ্কর ৷ ১০০ দিনের কাজ অত্যন্ত স্পর্শকাতর প্রকল্প’, চিঠিতে প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী ৷

মোদি প্রশাসনের বিরুদ্ধে সরাসরি যুদ্ধ ঘোষণা মমতা বন্দ্যেপাধ্যায়ের। রাজ্যের অধিকারে হস্তক্ষেপ নিয়ে বারবারই ক্ষোভ উগরে দিচ্ছিলেন। ১০০ দিনের কাজ নিয়ে কেন্দ্রের ফরমানে তা চরমে পৌঁছয়। এরপরই শুক্রবার কেন্দ্রের উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন তুললেন মুখ্যমন্ত্রী। কেন্দ্র-রাজ্য কাঠামো ও সাংবিধানিক অধিকার রক্ষায় লড়াই চালানোর অঙ্গীকার মুখ্যমন্ত্রীর।

রাজ্যের ক্ষমতা খর্ব করতে একের এক ফরমান। সাংবিধানিক কাঠামো ধ্বংসের চেষ্টা। এরই সঙ্গে যোগ হয়েছে আর্থিক অনুদান কমিয়ে ভাতে মারারও চেষ্টা। গত আড়াই বছরে বারবার এই অভিযোগে সরব হয়েছেন মমতা বন্দ্যেপাধ্যায়। গত সপ্তাহে ১০০ দিনের কাজ নিয়ে কেন্দ্রের নয়া ফরমানে ধের্যের বাঁধ ভেঙেছে।

ক্ষোভ একদিনের নয়। গত আড়াই বছরে বিভিন্ন ঘটনাতেও তা স্পষ্ট হয়েছে। মোদি প্রশাসনের বিরুদ্ধে অভিযোগের ফিরিস্তিও রীতিমতো লম্বা।

First published: 05:23:42 PM Aug 14, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर