কোথাও বুকে বন্দুক ঠেকিয়ে ‘হুমকি’, কোথাও জয় শ্রী রাম বলার ‘নির্দেশ’, কাঠগড়ায় কেন্দ্রীয় বাহিনী

কোথাও বুকে বন্দুক ঠেকিয়ে ‘হুমকি’, কোথাও জয় শ্রী রাম বলার ‘নির্দেশ’, কাঠগড়ায় কেন্দ্রীয় বাহিনী

বারাসত লোকসভা কেন্দ্রের দেগঙ্গায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা বিজেপিকে ভোট দিতে বলছেন বলে অভিযোগ পেয়ে যান কাকলি ঘোষদস্তিদার।

  • Share this:

#কলকাতা: তাঁরাই রক্ষক। অথচ, সেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধেই শেষ দফাতেও নানা অভিযোগ। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা এই দফাতেও নাকি বিজেপিকে ভোট দিতে বলেন। প্রতিবাদ করলেই লাঠি। বাসন্তীতে আবার বুকে বন্দুক রেখে জয় শ্রীরাম বলার হুমকি দেন বলেও অভিযোগ। যাঁদের হাতে সুষ্ঠুভাবে ভোট করানোর দায়িত্ব, শেষ দফার ভোটেও সেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে ভূরি ভূর অভিযোগ।

বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রের শাসনে এ দিন সকাল থেকেই অভিযোগ ওঠে, কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা ভোটারদের বিজেপি প্রার্থীকে ভোট দিতে বলছেন।
স্থানীয়দের বিক্ষোভ হঠাতে লাঠিচার্জ শুরু করে আধা সেনা। রেহাই পাননি শাজাহান নামে বিশেষভাবে সক্ষম এই যুবকও। জওয়ানদের মারে তাঁর হাত ও পাঁজরের হাড় ভেঙে যায়। মাথাতেও গুরুতর আঘাত পান। ভাটপাড়া বিধানসভা কেন্দ্র এবং কলকাতা দক্ষিণ লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী মদন মিত্র ও মালা রায়কে বুথে ঢুকতে বাধা দেয় কেন্দ্রীয় বাহিনী। বারাসত লোকসভা কেন্দ্রের দেগঙ্গায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা বিজেপিকে ভোট দিতে বলছেন বলে অভিযোগ পেয়ে যান কাকলি ঘোষদস্তিদার। বারাসত কেন্দ্রেরই নিউটাউনের কদমপুকুরেও কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল উঠেছে। স্থানীয়দের দাবি, এ দিন সকালে অন্নপ্রাশনের অনুষ্ঠান চলছি। কিন্তু, বুথের কাছে হওয়ায় বাধা দেয় কেন্দ্রীয় বাহিনী। কামদুনিতে বুথ সংলগ্ন মাঠে কাওয়াদাওয়ার আয়োজনে কেন্দ্রীয় বাহিনী ব্যাপক মারধর করে বলে অভিযোগ। এখানেও আক্রান্ত হন বিশেষভাবে সক্ষম যুবক ৷ জয়নগর লোকসভা কেন্দ্রের বাসন্তীতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগ আরও চাঞ্চল্যকর। ডায়মন্ডহারবারের নুরুপর মাদ্রাসা প্রাইমারি স্কুলে লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে বচসার জেরে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা, মহিলা ভোটারদেরও মারধর করেন বলে অভিযোগ।

First published: May 20, 2019, 1:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर