রুজিরার ব্যাঙ্ক লেনদেন জানতে চেয়ে চিঠি FIU-কে, আরেক ধাপ এগোল সিবিআই

রুজিরার ব্যাঙ্ক লেনদেন জানতে চেয়ে চিঠি FIU-কে, আরেক ধাপ এগোল সিবিআই

অভিষেক পত্নী রুজিরাকে বন্দ্যোপাধ্যায়ের ব্যাঙ্ক লেনদেন সংক্রান্ত তথ্য পেতে মরিয়া সিবিআই। ফাইল চিত্র।

এবার রুজিরার ব্যাঙ্ককের দু'টি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে তথ্য জানতে চেয়ে ফিনান্সিয়াল ইন্টালিজেন্স ইউনিটে চিঠি পাঠাল সিবিআই।

  • Share this:

    #কলকাতা: ৪৮ ঘণ্টা আগে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পত্নী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জেরা করার সময় তাঁর বিদেশি অ্যাকাউন্ট নিয়ে তথ্য চেয়েছিল সিবিআই। সূত্রের খবর, তিনি এ বিষয়ে কথা বলতে চাননি। পরিস্থিতি বিবেচনা করে পরবর্তী পদক্ষেপ করল সিবিআই। এবার রুজিরার ব্যাঙ্ককের দু'টি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে তথ্য জানতে চেয়ে ফিনান্সিয়াল ইন্টালিজেন্স ইউনিটে চিঠি পাঠাল সিবিআই।

    কিন্তু ফিনান্সিয়াল ইন্টালিজেন্সই কেন? তথ্য বলছে, কোনও প্রবাসী ভারতীয়র অথবা কোনও ভারতীয় নাগরিকের যদি বিদেশে অ্যাকাউন্ট থাকে, সেই অ্যাকাউন্টে লেনদেন হয়, সেক্ষেত্রে এই সংক্রান্ত সব ধরনের তথ্য থাকে ফিনান্সিয়াল ইন্টালিজেন্স ইউনিটে। সিবিআই সূত্রে খবর, এই লেনদেন সংক্রান্ত বিষয়ে যেহেতু রুজিরা নিজে কিছুই বলেননি, তাই তারা এই ভাবেই তথ্য জানতে চাইছে। উল্লেখ্য অতীতে বিভিন্ন আর্থিক প্রতারণা থেকে শুরু করে নানা অর্থসংক্রান্ত কেলেঙ্কারিতে সিবিআই তথ্য পেয়েছে ফিনান্সিয়াল ইন্টালিজেন্স ইউনিট থেকে । সেই কারণে এবারও তাদের সাহায্য চাওয়া। জানা গিয়েছে, আগামী সপ্তাহের মধ্যে এই বিষয়ের সমস্ত ডিটেল পেতে চাইছে সিবিআই।

    আগামী সপ্তাহ মানে নির্বাচনের নির্ঘণ্ট প্রকাশের আরও কাছাকাছি পৌঁছে যাওয়া। ফলে ফিনান্সিয়াল ইন্টালিজেন্স ইউনিট কী তথ্য দেয়, সেই বিষয়ে আগ্রহ থাকবে প্রতিটি রাজনৈতিক দলের। প্রসঙ্গত ভোটের আগে এই সিবিআই তৎপরতাকে সিবিআই-এর রাজনীতিকরণ হিসেবেই দেখছে তৃণমূল। এই নিয়ে বুধবার কারও নাম না করে তৃণমূল নেত্রীকে সুর চড়াতেও শোনা যায় বুধবার হুগলির ডানলপ মাঠে। তিনি বলেন, ঘরের বউকে কয়লাচোর বলা হচ্ছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বয়ানের মূল সুরটাই ছিল, বিজেপির কারণে মহিলারা সুরক্ষিত নয় তা তুলে ধরা।

    মঙ্গলবার রুজিরাকে জেরা করতে শান্তিনিকেতন বিল্ডিংয়ে গিয়েছিলেন সিবিআই কর্তারা। শান্তিনিকেতন বিল্ডিংয়ে রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সিবিআই জেরা করতে আসার আগেই সেখানে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  তিনি বেরোনোর কিছুক্ষণের মধ্যেই নিজাম প্যালেস থেকে শান্তিনিকেতন বিল্ডিংয়ে পৌঁছয় সিবিআই-র প্রতিনিধিদল। সূত্রের খবর, এ দিন তাঁর থেকে বিদেশি অ্যাকাউন্টের আর্থিক লেনদেনের বিষয়ে জানতে চান সিবিআই অফিসাররা। সূত্রের খবর, অভিষেক পত্নী  এ বিষয়ে কথা বলতে রাজি হননি।

    প্রসঙ্গত আজ বৃহস্পতিবার মতুয়াগড় ঠাকুরনগরে রয়েছে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। সেখান থেকে সিবিআই-কাণ্ড নিয়ে তিনি কিছু বলেন কিনা, তা জানতে মুখিয়ে থাকবে রাজনৈতিক মহল।

    Published by:Arka Deb
    First published: